শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২৩, ১৩ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

চীনে টানা কোভিড শনাক্তে রেকর্ড

আপডেট : ২৯ নভেম্বর ২০২২, ০৩:৩৩

চীনে সরকারের কঠোর কোভিড বিধিনিষেধের বিরুদ্ধে দেশ জুড়ে বিক্ষোভ চলার মধ্যেই টানা পঞ্চম দিনের মতো রেকর্ড কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়েছে। সোমবার দেশটির জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন জানায়, আগের দিন দেশটিতে ৪০ হাজার ৫২ জন করোনা ভাইরাসবাহী শনাক্ত হয়। তার আগের দিন শনিবার ৩৯ হাজার ৫০৬ জনের দেহে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছিল। শুক্রবার ৩৫ হাজার ১৮৩ জনের দেহে অত্যন্ত সংক্রামক এ ভাইরাসটি শনাক্ত হয়। মেগাসিটি গুয়াংজু এবং দক্ষিণপশ্চিমের চংশিং শহরে হাজার হাজার সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এসব মহানগরী সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে হিমশিম খাচ্ছে। এর পাশাপাশি রবিবার চীনের আরো অনেকগুলো শহরে শত শত মানুষের দেহে ভাইরাসটির উপস্থিতি শনাক্ত হয়। এদিন দেশটির বৃহত্তম শহর সাংহাই, রাজধানী বেইজিং, প্রথম করোনা ভাইরাস রোগী শনাক্ত হয়েছিল যেই শহরে সেই উহান ও উত্তরপশ্চিমাঞ্চলীয় শহর লানচোতে সরকারের কোভিড বিধিনিষেধের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ হয়।

নানজিং, ছাংদু ও উহানের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতেও বিক্ষোভ হয়েছে। এর জেরে সাংহাইয়ের বিক্ষোভের কেন্দ্রস্থল উলুমুকি মিডল রোডে সোমবারও পুলিশের ব্যাপক উপস্থিতি দেখা যায়। তারা সেখানে রাস্তায় নীল রংয়ের দীর্ঘ ব্যারিকেডও বসায় এবং পুলিশ অন্তত দুই জনকে আটক করে। সোমবারের প্রথম কয়েক ঘণ্টায় এদের একটি দল কাগজের সাদা পৃষ্ঠা হাতে ‘আমরা কোভিড পরীক্ষা চাই না, আমরা স্বাধীনতা চাই’ শ্লোগান দেয়। চীনের সাম্প্রতিক বিক্ষোভের প্রতীক হয়ে উঠেছে কাগজের সাদা পৃষ্ঠা। বিক্ষোভরতদের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় গাড়ির চালকরা হর্ন বাজিয়ে ও বুড়ো আঙুল তুলে তাদের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করছিল, বিক্ষোভকারীরা ব্যাপক হর্ষধ্বনি করে তাদের স্বাগত জানাচ্ছিল। উর্দি পরা কয়েক ডজন পুলিশ কর্মকর্তা তাদের অনুসরণ করছিল আর পুলিশের গাড়িগুলো পাশাপাশি এগিয়ে যাচ্ছিল।

সাদা পোশাকের নিরাপত্তা সদস্যরা বিক্ষোভরত জনতার সঙ্গে মিশে ছিল বলে জানা যায়। যদিও চীনের সরকার এসব বিক্ষোভের কথা স্বীকার করেনি এবং দাপ্তরিকভাবে কোনো প্রতিক্রিয়াও জানায়নি। ব্যাপক নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা সত্ত্বেও চীনের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এসব বিক্ষোভের খবর দ্রুত দেশ জুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। এর জেরে সোমবার স্টক এক্সচেঞ্জে দরপতন হয়েছে এবং তেলের দাম কমে যায়। বিশ্বের দ্বিতীয় শীর্ষ অর্থনীতিতে এর প্রভাবও পড়ে। পরিস্থিতি সামাল দিতে চীনের কর্তৃপক্ষ অনলাইন থেকে বিক্ষোভ সম্পর্কিত ছবি ও পোস্ট সরানো শুরু করেছে।

ইত্তেফাক/ইআ