রোববার, ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

কে থাকবেন আর কে ফিরবেন বাড়ি?

আপডেট : ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৫:৫৪

মেক্সিকো বাধা পার করা আর্জেন্টিনাকে পার করতে হবে পোল্যান্ড ম্যাচ। দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠার আগেই হার্ডল টপকাতে হচ্ছে লাতিন আমেরিকার দেশটিকে। আর্জেন্টিনা-পোল্যান্ড ম্যাচ ছাপিয়ে এটি আবার লিওনেল মেসি-রবার্ট লেভান্ডোভস্কিরও। প্রথম ম্যাচে সৌদি আরবের কাছে ২-১ গোলে হেরে গিয়ে চাপে পড়ে গিয়েছিল আর্জেন্টিনা। সেই ম্যাচে পেনাল্টি থেকে একমাত্র গোলটি করেছিলেন মেসি। পরের ম্যাচেও কুড়ি গজ দূর থেকে লক্ষ্য ভেদ করেন সেই মেসিই। পরে এনজো ফার্নান্দেজও একটি গোল করেন। মেক্সিকো ম্যাচ আর্জেন্টিনা জিতে নেয় ২-০ গোলে।

দুই ম্যাচে দুই গোল করে দিয়েগো মারাদোনার সমান ২১ ম্যাচ খেলে ফেললেন মেসি। গোলসংখ্যাতেও (৮) প্রয়াত কিংবদন্তিকে ছুঁঁয়ে ফেলেছেন। সামনে কেবল গ্যাব্রিয়েল বাতিস্তুতা। তার গোলসংখ্যা ১০। কে জানে কাতার বিশ্বকাপে বাতিস্তুতাকে ছাপিয়েও যেতে পারেন মেসি।

তার আগে পোল্যান্ড বাধা টপকাতে হবে যে! তা না হলে ঘোর বিপদে পড়তে হবে আর্জেন্টিনাকে। বলা চলে পোল্যান্ডের বিরুদ্ধে ম্যাচটিও মেসিদের জন্য ডু অর ডাই। ম্যাচটি আর যাই হোক হারা যাবে না!

পোল্যান্ড সেখানে বেশ সুবিধায় রয়েছে। পোলিশরা আর্জেন্টিনার সঙ্গে ড্র করলেই দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠে যাবে।  সৌদি আরবের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপে প্রথম গোলের দেখা পেয়েছেন পোলিশদের সবচেয়ে বড় তারকা লেভান্ডোভস্কি।  ফুটবল ক্যারিয়ারে তার ছয় শতাধিক গোল রয়েছে। তবুও এই গোলটি তার কাছে আলাদা হয়েই থাকবে। এ যে বহু আরাধ্য এক গোল, কত অপেক্ষা করতে হয়েছে বিশ্বকাপের এই মঞ্চের জন্য, একটি গোলের জন্য!  এর আগে বর্তমান সময়ের অন্যতম সেরা স্ট্রাইকার লেভান্ডোভস্কির কোনো গোল ছিল না বিশ্বকাপ মঞ্চে। পোল্যান্ড দলে তার অভিষেক ২০০৮ সালে। এরপর ২০১০ ও ২০১৪ বিশ্বকাপে যোগ্যতা অর্জন করতে পারেনি পোল্যান্ড। তাই লেভান্ডোভস্কির  বিশ্বকাপ খেলার প্রশ্নও উঠে না। ২০১৮ বিশ্বকাপে খেললেও গ্রুপপর্বের বৈতরণী পেরোতে পারেনি পোল্যান্ড। রাশিয়া বিশ্বকাপ থেকে কোনো গোল না করে শূন্য হাতে ফিরতে হয়েছিল লেভান্ডোভস্কিকে।

সেই অপূর্ণতা বার্সেলোনা তারকা ঘোচালেন সৌদি আরব ম্যাচে গোল করে। সুযোগটা আগের ম্যাচে মেক্সিকোর বিপক্ষেই পেতে পারতেন লেভান্ডোভস্কি, যদি তার নেওয়া পেনাল্টি শটটি আটকে না দিতেন মেক্সিকান গোলরক্ষক গিয়ের্মো ওচোয়া।  সৌদির বিরুদ্ধে গোল করে লেভান্ডোভস্কি  ঠিকই একটা বার্তা দিয়েছেন। সেটি ছিল তার আন্তর্জাতিক ফুটবলে ৭৭তম গোল। এই সংখ্যা পোলিশ তারকা আর্জেন্টিনার বিরুদ্ধে যে বাড়াতে চাইবেন সেটিই স্বাভাবিক।

মেসির জন্য যেমন, আর্জেন্টিনার জন্যও এ ম্যাচ জীবনমরণ! বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে নিজেকে মেলে ধরতে না পারলেও দ্বিতীয় ম্যাচে মেক্সিকোর বিপক্ষে পায়ের জাদু দেখিয়েছেন। নিজে করেছেন এক গোল এবং এনজোকে দিয়ে করিয়েছেন আরেক গোল। সব কিছু ঠিক থাকলে মেসির কারিকুরি পোল্যান্ড ম্যাচেও দেখা যাবে। এ পর্যন্ত মেসি তাই করেছে যেটা আলবিসেলেস্তাদের প্রয়োজন ছিল।

ইত্তেফাক/এসএস

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন