শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২০ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

জাবিতে ‘অনৈতিক সম্পর্কে‘র অভিযোগে শিক্ষককে বরখাস্ত করে তদন্তের দাবি

আপডেট : ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:৫১

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) প্রলোভন দেখিয়ে একাধিক ছাত্রীর সঙ্গে ‘অনৈতিক সম্পর্ক’ গড়ে তোলার অভিযোগ তুলে পাবলিক হেলথ অ্যান্ড ইনফরমেটিকস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাহমুদুর রহমান জনিকে সাময়িক বরখাস্ত করে তদন্তের দাবি করেছেন শিক্ষকদের একটি অংশ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন কলা ভবনের শিক্ষক লাউঞ্জে বৃহস্পতিবার (০১ ডিসেম্বর) বিকেলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান তারা।

সংবাদ সম্মেলনে মাহমুদুর রহমান জনির বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ তদন্তের জন্য স্ট্র্যাকচারাল কমিটি গঠন, অভিযুক্তকে সব পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত এবং তদন্ত সাপেক্ষে অব্যাহতি দেওয়ার দাবি জানানো হয়। এক সঙ্গে ৮ ডিসেম্বরের মধ্যে স্ট্র্যাকচারাল কমিটি গঠন করা না হলে আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়।

এ সময় লিখিত বক্তব্যে নৃবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক মানস চৌধুরী বলেন, নিজের পদ ব্যবহার করে এবং রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে ছাত্রীর সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপন এবং শিক্ষক হিসেবে নিয়োগে প্রভাব বিস্তারের মতো গুরুতর অভিযোগ রয়েছে জনির বিরুদ্ধে। এছাড়া শিক্ষক জনি আরেক ছাত্রীকে গর্ভপাত ঘটাতে বাধ্য করেছে বলেও আরেকটি অভিযোগ উঠেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সংবিধি অনুযায়ী এগুলো নৈতিক স্খলন ও অসদাচরণজনিত অপরাধ।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন, জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক কামরুল আহসান, ফার্মেসি বিভাগের অধ্যাপক সোহেল রানা, অধ্যাপক মোস্তাফিজুর রহমান চয়ন, ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক আনিছা পারভীন ও অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষক ফাহিমা আল ফারাবি প্রমুখ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পাবলিক হেলথ অ্যান্ড ইনফরমেটিক্স বিভাগের এক সাবেক ছাত্রী বলেন, শিক্ষক বানানোর প্রলোভন দেখিয়ে আমাকে কুপ্রস্তাব দেন শিক্ষক জনি। তা প্রত্যাখ্যান করায় যোগ্যতা ও পদ খালি থাকা সত্বেও আমাকে শিক্ষক হিসেবে নেওয়া হয়নি। উপরন্তু যাকে নেওয়া হয়েছে তার সঙ্গে জনির অন্তরঙ্গ ছবি ফাঁস হয়েছে। কিন্তু তার চেয়েও যোগ্য প্রার্থী ছিল।

অভিযোগের বিষয়ে মাহমুদুর রহমান জনি বলেন, এসব তথ্য মিথ্যা ও বানোয়াট। বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি অংশ আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচারে লিপ্ত হয়েছে। সাইবার ক্রাইম ইউনিটের সঙ্গে পরার্মশ করেছি অচিরেই এদের বিরুদ্ধে দেশের প্রচলিত আইনে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ইত্তেফাক/আরএজে