বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১
The Daily Ittefaq

রাহুলের প্রশংসা করলেন বোন প্রিয়াঙ্কা

আপডেট : ০৪ জানুয়ারি ২০২৩, ১৩:১৬

ভারত জোড়ো যাত্রাকে স্বাগত জানিয়ে কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভদ্র মঙ্গলবার (৩ জানুয়ারি) বলেন, 'আমার বড় ভাই সত্যের পথে। সকল সহযাত্রী একতা ও ভালোবাসার বার্তা ছড়িয়ে দেন সারাদেশে।' ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, দিল্লি-উত্তর প্রদেশের লোনি সীমান্তে ভারত জোরো যাত্রীদের স্বাগত জানালেন কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক এবং উত্তর প্রদেশের পার্টি ইনচার্জ প্রিয়াঙ্কা। 

ভারত জোড়ো যাত্রাকে স্বাগত জানিয়ে কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভদ্র মঙ্গলবার (৩ জানুয়ারি) বলেন, 'আমার বড় ভাই সত্যের পথে।

তিনি জানান, সরকার রাহুল গান্ধীর ভাবমূর্তি নষ্ট করতে কোটি কোটি টাকা খরচ করেছে কিন্তু ব্যর্থ হয়েছে। আম্বানি ও আদানি সবই কিনছে বড় বড় সংগঠন। নেতারা, রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা, মিডিয়া। কিন্তু রাহুল গান্ধীকে কেনা যায়নি। প্রিয়াঙ্কা বলেন, 'আমি আমার ভাইকে নিয়ে গর্বিত।' 

৯ দিনের বিরতির পর, কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীর নেতৃত্বে মঙ্গলবার আবার ভারত জোড়ো যাত্রা শুরু হয়েছে। দিল্লির কাশ্মিরি গেটের যমুনা বাজার এলাকায় হনুমান মন্দিরে প্রার্থনার পর স্থানীয় সময় সকাল ১০টার দিকে পদযাত্রা শুরু করেন রাহুল। 

সরকার রাহুল গান্ধীর ভাবমূর্তি নষ্ট করতে কোটি কোটি টাকা খরচ করেছে কিন্তু ব্যর্থ হয়েছে।

রাহুল ও তার সহযাত্রীরা ২০২০ সালে দিল্লি দাঙ্গায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করার পর বিকেলে লোনি সীমান্তে পৌঁছেছিলেন। আগামী তিন দিন উত্তর প্রদেশের কৃষি অধ্যুষিত এলাকা পেরিয়ে তারা ৬ জানুয়ারি হরিয়ানায় প্রবেশ করবে। তারপর পাঞ্জাবে প্রবেশ করবেন। 

১১ থেকে ২০ জানুয়ারি পাঞ্জাবে থাকার সময়, রাহুল ও তার সহযাত্রীরা ১৯ তারিখ হিমাচল প্রদেশে কাটাবেন। যাত্রার শেষ ধাপটি জম্মু ও কাশ্মিরে ২০ জানুয়ারি শুরু হবে। ৩০ জানুয়ারি শ্রীনগরে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে ভারত জোড়ো যাত্রার প্রথম পর্ব শেষ হবে। 

রাহুল ও তার সহযাত্রীরা ২০২০ সালে দিল্লি দাঙ্গায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করার পর বিকেলে লোনি সীমান্তে পৌঁছেছিলেন।

রাহুল জানিয়েছেন, জনগণের সঙ্গে কথা বলে ভারত জোড়ো যাত্রার পরবর্তী পর্ব শুরু করা হবে কি না, তাদের চাহিদা ও দাবি নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবে দলটি। ভারত জোড়ো যাত্রায় যোগ দিতে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাদের চিঠি দিয়েছে কংগ্রেস। 

উত্তর প্রদেশের তিন নেতা অখিলেশ যাদব, মায়াবতী ও জয়ন্ত চৌধুরী যাত্রার প্রতি তাদের সমর্থন প্রকাশ করলেও ব্যক্তিগত কারণে তারা অংশ নিতে পারেননি বলে জানিয়েছেন। এখন দেখা যাক তারা দলের অন্য কাউকে যাত্রায় যোগ দেওয়ার নির্দেশ দেন কি না। 

ভারত জোড়ো যাত্রায় যোগ দিতে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাদের চিঠি দিয়েছে কংগ্রেস। 

রাষ্ট্রীয় লোকদল নেতা জয়ন্ত চৌধুরীর প্রয়াত পিতা চরণ সিং অল্প সময়ের জন্য ভারতের প্রধানমন্ত্রী হন। ভারত জোড়ো যাত্রায় দিল্লিতে প্রবেশের পর, রাহুল অন্যান্য প্রধানমন্ত্রীর মতো তার সমাধিতেও শ্রদ্ধা জানাতে গিয়েছিলেন।

মঙ্গলবার রাহুলের যাত্রাকে সমর্থন করেছেন অযোধ্যার রাম জন্মভূমি মন্দিরের প্রধান পুরোহিত আচার্য সত্যেন্দ্র দাস। দেশকে ঐক্যবদ্ধ করতে রাহুলের প্রচেষ্টাকে সমর্থন জানিয়ে এক চিঠিতে তিনি লেখেন, 'এই যাত্রা সবার মঙ্গলের জন্য। ভগবান রামচন্দ্র এই মহান কাজের জন্য আপনাকে আশীর্বাদ করুন। তোমার উদ্দেশ্য সফল হোক।' 

রাষ্ট্রীয় লোকদল নেতা জয়ন্ত চৌধুরীর প্রয়াত পিতা চরণ সিং অল্প সময়ের জন্য ভারতের প্রধানমন্ত্রী হন।

মঙ্গলবার রাহুলের ভ্রমণ সঙ্গী ছিলেন শিবসেনা (উদ্ধব গ্রুপ) নেতা প্রিয়াঙ্কা চতুর্বেদী এবং ভারতের গোয়েন্দা ব্যুরোর সাবেক বিশেষ সচিব এবং আরএ এর সাবেক সচিব এএস দৌলত। অটল বিহারী বাজপেয়ী প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন দৌলতকে জম্মু ও কাশ্মিরের উপদেষ্টা হিসেবে নিযুক্ত করেছিলেন।

ইত্তেফাক/ডিএস