শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

করোনাযোদ্ধা মামুনুর রশীদকে গোল্ডেন ভিসায় সম্মানিত করলো আমিরাত সরকার

আপডেট : ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৪:০৩

করোনাকালে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কঠিন পরিস্থিতিতে অনেক মানুষ সাহসী ভূমিকা রেখেছেন। তাদের সাহসী ভূমিকার ফলে করোনা সংকটে মৃত্যুঝুঁকি থেকে মুক্ত থেকেছে অনেকেই। সংকটকালে অনেক মানুষ আপনজনকে দূরে ঠেলে দিয়েছে। কিন্তু কিছু মানবিক মানুষ মৃত্যুভয়কে তুচ্ছ করে মানুষের জীবনকে বাঁচাতে এগিয়ে এসেছেন সাহসিকতার সঙ্গে। তাদেরই একজন সাহসী মানবিক করোনাযোদ্ধা বাংলাদেশ প্রেসক্লাব ইউএই'র সিনিয়র সহ-সভাপতি মামুনুর রশীদ।

করোনাকালে সাহসিকতার সম্মান স্বরূপ সংযুক্ত আরব আমিরাতে ব্যবসায়ী, চিকিৎসক, শিক্ষক, মেধাবী শিক্ষার্থীর পাশাপাশি ফ্রন্টলাইন করোনাযোদ্ধাদের মধ্যে বিশেষ কয়েকজনকে গোল্ডেন ভিসা দিচ্ছে আমিরাত সরকার। এই ক্যাটাগরিতে গোল্ডেন ভিসা পেলেন মামুনুর।

গেল ২০২০ সালের মার্চ মাসে আমিরাতের বাণিজ্য নগরী দুবাইয়ের নাইফ এলাকাকে যখন দুবাই সরকার কর্তৃক "রেড জোন এলাকা" বলে ঘোষণা করে লকডাউন করে দেয়। সবাই যখন আত্মরক্ষায় লকডাউনে ঘরমুখি; তখন তিনি দুবাই প্রশাসনের স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এর সাথে লকডাউন এলাকায় বাংলাদেশি প্রবাসীদের স্বাস্থ্যসেবা ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ কমিউনিটির পক্ষ থেকে 'বাংলা এক্সপ্রেস টিম' নামের ১৯ সদস্যের একটি স্বেচ্ছাসেবক টিম গঠন করে প্রবাসীদের সেবায় ঝাপিয়ে পড়েন। টানা এক মাস ধরে তারা দুবাইয়ের এই এলাকায় প্রায় ৩০ হাজার বাংলাদেশিদের সেবা দিয়ে যান। এ সময় নাইফ এলাকায় কাজের পাশাপাশি প্রবাসীদের সচেতন করতে প্রতিদিন আমিরাত সরকারের দিকনির্দেশনার সংবাদ পরিবেশন করতেন।

প্রবাসীদের সেবায় দিনরাত একাকার করেছেন তার টিম নিয়ে। উক্ত এলাকায় লকডাউন শেষ হলেও থেমে থাকেনি এই টিম। বাংলাদেশী প্রবাসীদের কেউ করোনায় আক্রান্ত হলে তাকে হাসপাতালে পৌঁছানো, পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌছানোর শিডিউল করে দেয়া এবং খাদ্য সামগ্রীর মাধ্যমে সহযোগিতা করেছেন।

উল্লেখ্য, বাংলা এক্সপ্রেস'র সম্পাদক ও প্রকাশক হারুনুর রশীদের প্রথম সন্তান মামুনুর রশীদ। ১৯৯৮ সালে  পরিবারের সঙ্গে দুবাইতে আসেন। শৈশব থেকে কৈশোরে পদার্পন, প্রাইমারি থেকে ইউনিভার্সিটি পর্যন্ত শেষ করেছেন তিনি আমিরাতেই। দুবাইয়ের হ্যারিয়েট ওয়াট ইউনিভার্সিটিতে লেখাপড়া শেষ করে বর্তমানে ব্যবসা করছেন। লেখা পড়ার পাশাপাশি গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজ শেখা, সাংবাদিকতা ও বাবার সাথে পত্রিকায় লেখালেখিসহ বিভিন্ন সংগঠনের বিশেষ পদের দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে তিনি বাংলা এক্সপ্রেসের নির্বাহী সম্পাদক এবং এনটিভির আমিরাত প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। সম্প্রতি আমিরাতের মিডিয়া রেগুলেটরি অথরিটি থেকে প্রথম বাংলাদেশি প্রবাসী সাংবাদিক হিসেবে অনুমোদন পান।

ইত্তেফাক/এসসি