শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১
The Daily Ittefaq

বিজেপি-আপের কাউন্সিলরদের মধ্যে ঘুষি, লাথি

আপডেট : ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৩:৫২

দিল্লির মেয়র শেলি ওবেরয় অভিযোগ করেছেন, ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) কিছু সদস্য তার উপর মারাত্মক হামলা চালিয়েছে। ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে মিউনিসিপ্যাল ​​কাউন্সিলে বিজেপি ও আম আদমি পার্টির (এএপি) কাউন্সিলরদের মধ্যে সংঘর্ষের কয়েক ঘণ্টার মধ্যে তিনি এই অভিযোগ করেন। খবর ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের।

এক সাংবাদিক সম্মেলনে মেয়র শেলি ওবেয়ার আরও জানান, তার সহকর্মী আশু ঠাকুরও বিজেপির আরেক কাউন্সিলর দ্বারা আহত হয়েছেন। সংবাদ সম্মেলনের কিছুক্ষণ আগে পৌরসভার অধিবেশন স্থগিত করেন মেয়র। 

তিনি আরও ঘোষণা করেছেন, দিল্লি মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের (এমসিডি) ছয় সদস্যের স্থায়ী কমিটির নির্বাচন সোমবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) স্থানীয় সময় সকাল ১১টার দিকে অনুষ্ঠিত হবে। মেয়র ওবেরয় শুক্রবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) স্থায়ী কমিটির ভোটকে 'বেআইনি' বলে ঘোষণা করেন। 

এরপরই বিজেপি কাউন্সিলরদের সঙ্গে তর্ক শুরু করেন আপ কাউন্সিলররা। দুই দলের কাউন্সিলররা একে অপরকে ঘুষি, লাথি ও চড় মারেন। তাদের মধ্যে ধাক্কাধাক্কি হয়। কয়েকজন কাউন্সিলরের পোশাকও ছিঁড়ে যায়। 

আপ বিধায়ক অতীশি সিং অভিযোগ জানিয়েছেন, একজন বিজেপি সদস্য আশু ঠাকুরকে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে পৌরসভার গেটে টেনে নিয়ে যান। তারা কমলা মার্কেট থানায় যাবেন। মেয়র ও অন্যান্য নারী কাউন্সিলরদের ওপর প্রাণঘাতী হামলার ঘটনায় থানায় মামলা করা হবে।

বিজেপির এক কাউন্সিলর এনডিটিভিকে জানান, ভোট বৈধ ছিল। ভোট অবৈধ হলে আপের প্রার্থী জয়ী হতেন। এ সময় প্রার্থীর শার্টের বোতাম ছিঁড়ে যায়।
পৌরসভায় হট্টগোলের এক পর্যায়ে এক কাউন্সিলর মঞ্চে উঠে মেয়রের মাইক ধরেন। বিজেপি কাউন্সিলররা মেয়রের চেয়ার ধাক্কা দিয়ে ছুড়ে ফেলে দেন। গতকালের ভোটের ব্যালট পেপার ছিঁড়ে ফেলা হয়েছে।

গতকাল রাতে এক টুইটে মেয়র বলেন, 'পৌরসভায় নারীরা নিরাপদ না থাকলে দিল্লি নিরাপদ হবে কীভাবে? বিজেপিকে পৌরসভা নির্বাচনে পরাজয় মেনে নিতে হবে।'

ইত্তেফাক/ডিএস