শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

ভুয়া দলিল বানিয়ে বসতবাড়ির জমি দখলের অভিযোগ

আপডেট : ১৬ মার্চ ২০২৩, ১৮:৪৭

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে জাল সই ও ভুয়া দলিল বানিয়ে অবৈধভাবে জায়গা দখলের অভিযোগ উঠেছে প্রতিবেশী প্রভাবশালীর বিরুদ্ধে । বৃহস্পতিবার (১৬ মার্চ) সকালে উপজেলার নওগাঁ ইউনিয়নের কালুপাড়া গ্রামে। দখলের প্রতিবাদ জানিয়েছে ভুক্তভোগী পরিবারের লোকজন। 

সুর্য খাতুন (৫১) নামের একজন ভুক্তভোগী বলেন, এই জায়গাটুকু একমাত্র সম্বল হিসেবে রাখার জন্য ভিক্ষা করে খেয়েছি। ভিক্ষা না পেলে চাল কল ঝাড়ু দিয়ে ময়লা আবর্জনার মধ্যে থেকে চাল বাছাই করে ভাতের মাড় বানিয়ে সন্তানদের মুখে তুলে দিয়েছি। তাও লবণ ছাড়া। কারণ লবণ কেনার পয়সাও ছিল না। এতো কষ্টের জায়গাটুকু ভুয়া দলিল করে ও পেশী শক্তির বলে দখলে নেওয়ার চেষ্টা করছেন প্রতিবেশী তমছের আলী ও তার ছেলে আব্দুল আলীম। এসব কথা বলার সময় কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি। 

সুর্য খাতুনের স্বামী ফজর আলী (৫৪) বলেন, আমরা তিন ভাই। অপর দুই ভাইয়ের নাম আবু হানিফ (৫৭) ও কোবাদ আলী (৬২)। কালু পাড়া মৌজার কালু পাড়া গ্রামে পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া সাড়ে ১৫ শতক জায়গা আমাদের ছিল। ৩০ বছর আগে তিন ভাইয়ের দুই ছেলে ও এক মেয়েকে দলিল মূলে রেজিষ্ট্রি করে দিয়েছি। আমরা কেউ স্বাক্ষর দিতে পারি না, টিপসই ছাড়া। কিন্তু তমছের আলী ও তার ছেলে আব্দুল আলীম আমাদের তিন সন্তানের জায়গা জাল স্বাক্ষর ও জাল দলিল করে দখলে মরিয়া হয়ে উঠেছেন। এরই মধ্যে তমছের আলী ও তার ছেলে আব্দুল আলীম আমাদের বসতঘর ভেঙে দিয়েছেন। আরেক ঘর থেকে জোরপূর্বক বের করে দিয়েছেন। আমরা এখন প্রতিবেশী ও আত্মীয় স্বজনদের বাড়িতে রাত্রিযাপন করছি।  

কোবাদ আলী আরও বলেন, এ নিয়ে আদালতে মামলাও করেছি। কিন্তু বিবাদী তমছের আলী মূল দলিল আদালতে জমা না দিয়ে সময় ক্ষেপণ করছেন। এরই মধ্যে আমাদের জায়গা দখল করে নিয়েছেন। বাধা দিতে গেলে মারধর করেন। 

অভিযুক্ত তমছের আলী ও তার ছেলে আব্দুল আলীম বলেন, তাদের কোনো মন্তব্য নাই।
 
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নিবাহী ম্যজিস্ট্রেট জেবাউল করিম দৈনিক ইত্তেফাককে বলেন, জায়গা নিয়ে যেহেতু আদালতে মামলা রয়েছে। পুলিশকে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বলে দেবো। 

ইত্তেফাক/পিও