বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ৮ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

আধিপত্য বিস্তারে দু’পক্ষের কোন্দল, চোরাগোপ্তা হামলায় আওয়ামী লীগ নেতা নিহত

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২৩, ১৮:৪৫

ঝিনাইদহের শৈলকূপায় প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত হয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতা হাবিবুর রহমান রিপন (৪৫)। তিনি শৈলকূপা উপজেলার আবাইপুর ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বর ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আইনবিষয়ক সম্পাদক ছিলেন।

রোববার (১৫ অক্টোবর) রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার মীন গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ২ জন। নিহত হাবিবুর রহমান রিপন আবাইপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদের ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শী হাসিবুল ইসলাম বলেন, থানায় মীমাংসার পর তারা রিপনের সঙ্গে তিনটি মোটরসাইকেল যোগে বাড়ি ফিরছিলেন। গ্রামে প্রবেশের মুখে প্রতিপক্ষরা আগে থেকেই ওত পেতে ছিল। রাত আড়াইটার দিকে সেখানে পৌঁছালে তারা রিপন, রাসেল ও আমিনুর কাজীকে কুপিয়ে জখম করে। বাকি মোটরসাইকেল আরোহীরা পালিয়ে যায়। পরে আহতদের উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রিপন মারা যায়।

শৈলকূপা থানার ওসি ঠাকুর দাস মণ্ডল জানান, গ্রামে আধিপত্য বিস্তার ও ইউনিয়ন রাজনীতি নিয়ে নিহত মেম্বর ও সাবেক মেম্বর রঞ্জু হোসেনের মধ্যে দীর্ঘদিন বিরোধ চলছিল। গ্রামবাসীও এ বিরোধে দুই দলে বিভক্ত হয়ে পড়ে। শুক্রবার নিহত রিপনের সমর্থকরা রঞ্জু সমর্থক মোস্তাককে মারধর করে। পাল্টা রঞ্জু সমর্থকরাও রিপন সমর্থক একজনকে মারধর করে। এ নিয়ে গ্রামে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে পুলিশ উভয়পক্ষের ৪ জনকে থানায় ধরে নিয়ে যায়। রোববার রাতে থানায় উভয়পক্ষকে নিয়ে মীমাংসা বৈঠক বসে। বৈঠকে উভয়পক্ষ আর কোনো ঝামেলা না করার মুচলেকা দিয়ে আটকদের থানা থেকে ছাড়িয়ে নিয়ে যায়। পরে ফেরার পথে, নিহত রিপনের ওপর হামলা হয়।

এদিকে রিপনের মৃত্যুর খবর গ্রামে পৌঁছালে উভয়পক্ষের অন্তত ১৫টি বাড়িঘরে হামলা ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গ্রাম পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

ইত্তেফাক/পিও