বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

নকশাবহির্ভূত ভবন নির্মাণ, ভেঙে দিলো রাজউক

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২৩, ১৬:৪৯

রাজধানীর দক্ষিণ বনশ্রী এলাকায় নকশাবহির্ভূত কয়েকটি ভবনে রাজউক উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানটি পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শারমিন আরা।

মঙ্গলবার (১৭ অক্টোবর) সকাল থেকে শুরু হওয়া অভিযান দুপুরে শেষ হয়। অভিযান চলাকালীন কয়েকটি ভবনের নকশা বহির্ভূত সেটব্যাক ও ভয়েড দখল এবং রাস্তার জায়গা দখল করে ইমারতের নির্মাণ কাজ করায় তা আংশিক অপসারণসহ কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শারমিন আরা বলেন, রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক জোন-৬/১) দক্ষিণ বনশ্রী এলাকায় নকশাবহির্ভূত কয়েকটি বহুতল ভবনের আংশিক অপসারণসহ দুইটি ভবনের তিন লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। কয়েকটি ভবনের মালিককে সতর্ক করে দেওয়া হয় যাতে তারা পরবর্তীতে নকশাবহির্ভূত ভবন নির্মাণ না করে। একই সাথে কয়েকটি ভবন মালিকের কাছ থেকে রাজউকের অনুমোদন ব্যতীত ইমারত নির্মাণ না করে সে বিষয়ে মুচলেকা গ্রহণ করা হয়। এছাড়াও কয়েকটি ভবনে ডেঙ্গুর লাভা সনাক্ত হওয়া তাৎক্ষনিকভাবে আমরা সেখানে ব্লিচিং পাউডার ছিটিয়ে দেই এবং প্রাথমিক ভাবে ভবন মালিকদের সতর্ক করি।

রাজউকের জোন ৬/১ এর অথরাইজড অফিসার নগর পরিকল্পনাবিদ জান্নাতুল মাওয়া বলেন, দক্ষিণ বনশ্রী এলাকায় কয়েকটি ভবনের আমাদের রাজউকের অভিযান চলে। কয়েকটি ভবনের মালিকে কয়েক বার লিখিতভাবে সতর্ক করলেও তার রাজউকের নকশা মানেনি। রাজউকের নকশা বহির্ভূত বিল্ডিং তুলতে যেন না পারে তার জন্য রাজউকের এই উচ্ছেদ কার্যক্রম চলমান থাকবে।

স্থানীয় লোকজন বলেন, নকশাবহির্ভূত ভবনে নিয়মিত এই অভিযান পরিচালনা করলে আর এভাবে কেউ নিয়মের বাইরে ভবন নির্মাণ করবে না। রাস্তার জায়গা দখল করে ভবন নির্মাণ করার সাহস করবে না।

মোবাইল কোর্টের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন অথরাইজড অফিসার নগর পরিকল্পনাবিদ জান্নাতুল মাওয়া, সহকারী অথরাইজড অফিসার প্রকৌশলী মো. সাবিরুল ইসলাম, প্রধান ইমারত পরিদর্শক ইমরান হোসেন, মঞ্জুরুল আলম, বেলাল হোসেন, ইমারত পরিদর্শক মো. সাইফুল ইসলাম, মো. ইমরান শেখ, মো. জিয়াউদ্দিন, মো. কামরুজ্জামান, নাহিদুল ইসলাম, বিশ্বজিৎ সিংহ, তুষার চন্দ্র বর্মন, তন্নয় দেবসহ রাজউকের অন্যান্য কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

ইত্তেফাক/এআই