শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১
The Daily Ittefaq

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রকৃত ইসলামবান্ধব সরকার প্রধান: পানিসম্পদ উপমন্ত্রী

আপডেট : ১০ নভেম্বর ২০২৩, ১৭:৩২

পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম বলেছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন একজন খাঁটি ঈমানদার মুসলমান। তিনি কখনও ইসলামকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে ব্যবহার করেননি। তিনি ইসলামিক ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। আর বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রকৃত ইসলামবান্ধব সরকার প্রধান। তিনি প্রতিটি উপজেলায় মডেল মসজিদ কমপ্লেক্স নির্মাণ করছেন। তিনি কওমী মাদরাসাকে স্বীকৃতি দিয়েছেন। 

শুক্রবার (১০ নভেম্বর) সকালে শরীয়তপুরের সখিপুর থানায় ২ কোটি ৫৪ লাখ টাকা ব্যয়ে সখিপুর কেন্দ্রীয় মসজিদের নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্কুলের পাশাপাশি মাদরাসাকেও এমপিওভুক্তর ব্যবস্থা করেছেন। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইসলামের উন্নয়ন করে মুসলিম জনগোষ্ঠীর ধর্মীয় কর্মকাণ্ডকে যথাযোগ্য মর্যাদায় উন্নতি করেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যুগান্তকারী অবদানের কথা বাংলাদেশের ইতিহাসে চিরদিন স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে।


উপমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পূর্বের সরকারদের ন্যায় ধর্মের নামে কোন কুসংষ্কারকে ধারণও করেন না পাত্তাও দেন না, প্রকৃত ধর্মানুসারীদের যথাযোগ্য মর্যাদা প্রতিষ্ঠায় কাজ করে চলেছেন। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার মতো ধর্মপ্রাণ রাষ্ট্র প্রধান থাকলে সে দেশে কোন অধর্মের কাজ করা অসম্ভব।

এনামুল হক শামীম বলেন, ফিলিস্তিনের নিরপরাধ মানুষের ওপরে জুলুম নির্যাতনের প্রতিবাদে যেখানে পৃথিবীর সব বিবেকবান মানুষ সরব, সেখানে ইসরায়েল নাখোশ হবে এমন প্রতিবাদ করছে না বিএনপি। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকেও প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। আমরা রাষ্ট্রীয় শোকও পালন করেছি। আর বিএনপি’র মুখে কোনো কথা নাই। একটা বৃহত্তর গোষ্ঠী অখুশি হতে পারে সেই কারণে বিএনপি এই নিয়ে কোন কথা বলে না। অর্থাৎ তাদের অবস্থান ইসরাইলের পক্ষে। বিএনপি ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য যেকোনো সময় কারো পক্ষে বা বিপক্ষে যেতে পারে। বাংলাদেশের মানুষ আবারও নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে পঞ্চমবারের মতো ক্ষমতায় আনবে।

ভেদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবদুল্লাহ আল মামুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, বাহাদুরপুরের পীর সাহেব আবদুল্লাহ মোহাম্মদ হাসান, ভেদরগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান ও সখিপুর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি হুমায়ুন কবির মোল্যা, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান এমএ কাইয়ুম পাইক, সাধারণ সম্পাদক আতিকুর রহমান মানিক সরকার, সখিপুর ইউপি চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান মানিক সরদার। 

এছাড়াও ২৭ কোটি টাকা ব্যয়ে ভেদরগঞ্জ-কাশেমপুর সড়ক, চরসেনসাস থেকে সখিপুর সড়ক এবং চরভাগা মমিন আলী মোল্লার বাজার থেকে ঘড়িষার লঞ্চঘাট পর্যন্ত সড়কের উন্নয়ন কাজ, সখিপুর বাইপাস সড়ক ও কালভার্ট, সখিপুর সোলাইমানিয়া ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসার "জয় বাংলা" ভবন এবং সখিপুর ইসলামিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের "বিজয় ৭১" ভবনের উদ্বোধন করেন উপমন্ত্রী। পরে তিনি উত্তর তারাবুনিয়া ও দক্ষিণ তারাবুনিয়া ইউনিয়নে গণসংযোগ করেন।

ইত্তেফাক/এমএএম