বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগ নেতার বাড়িতে ককটেল বিস্ফোরণ, এলাকায় আতঙ্ক

আপডেট : ২৮ নভেম্বর ২০২৩, ১৯:১৮

সীতাকুণ্ডে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বাকের ভূঁইয়া ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জিলানীর বাড়িতে হামলা করার উদ্দেশ্যে গেটের সামনে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে।

সোমবার (২৭ নভেম্বর) রাতে একদল দুর্বৃত্তদের ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনায় নেতা-কর্মীসহ সাধারণ মানুষের মধ্যে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এখনো আতঙ্ক বিরাজ করছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলের তৃণমূলের ত্যাগী নেতা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল বাকের ভূঁইয়া মনোনয়ন চেয়ে না পাওয়ায় তার সমর্থিত দলীয় নেতা-কর্মীদের মধ্যে মান-অভিমান থেকে যায়। তবে নৌকার মনোনয়ন পান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এসএম আল মামুন। কিন্তু ২ নম্বর ইউনিয়নের বড় দারোগাহাট বাজারে নৌকার মনোনীত প্রার্থীর একটি প্রোগ্রাম শেষে বাকের ভূঁইয়া বাড়ির সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় একদল দুর্বৃত্ত ‌‘এই এলাকার মাটি, মামুন ভাইয়ের ঘাটি’ ও নৌকার স্লোগান দিয়ে পর পর তার বাড়ি লক্ষ্য করে বেশ কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। পরে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে তারা পালিয়ে যায়। 

অপরদিকে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম রিয়াদ জিলানীর ৮ নম্বর সোনাইছড়ি ইউনিয়নে তার বাড়ি আরও কয়েকটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায়। আর এ ধরনের কর্মকাণ্ডে বাকের ভূঁইয়ার সমর্থিত নেতা-কর্মীরাসহ এলাকার জনগণের মধ্যে এখনো আতঙ্ক বিরাজ করছে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের আব্দুল্লাহ আল বাকের ভূঁইয়া অভিযোগ করে বলেন, আমি আগামী সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন পাইনি বলে প্রতিপক্ষ নৌকার প্রতীক পেয়ে আমার বাড়িতে হামলা করছে। আমি তীব্র নিন্দাসহ হামলাকারীদের বের করে আইনের আওতায় আনার আহ্বান জানাই।

সীতাকুণ্ড মডেল থানার ওসি ককটেল বিস্ফোরণের কথা স্বীকার করে বলেন, বাকের ভূঁইয়ার বাড়িতে হামলার কথা শুনা মাত্রই আমি পুলিশ ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে হাজির হই। সেখানে গভীর রাত পর্যন্ত পুলিশ অবস্থান করে এবং অভিযোগ পেলে আইন-শৃঙ্গলা রক্ষার স্বার্থে তদন্ত করে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

ইত্তেফাক/এমএএম/পিও