শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

অভিভাবকদের মধ্যে আতঙ্ক

বেঙ্গালুরুর ১৫টি স্কুলে বোমা হামলার হুমকি

আপডেট : ০২ ডিসেম্বর ২০২৩, ১১:০৯

ভারতের বেঙ্গালুরু শহর জুড়ে ১৫টিরও বেশি স্কুলে বোমা হামলার হুমকি দেওয়া হয়েছে। শুক্রবার সকালে ই-মেইলে এই হুমকি দেওয়া হয় বলে পুলিশ জানিয়েছে। এতে অভিভাবকদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে আতঙ্ক। এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। 

ই-মেইলে দাবি করা হয়েছে, স্কুল চত্বরে বিস্ফোরক রাখা আছে। এই ই-মেইল পাওয়ার পরই ছাত্রছাত্রী, অভিভাবক এবং স্কুল কর্তৃপক্ষের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে। সঙ্গে সঙ্গে খালি করে দেওয়া হয় স্কুলগুলো এবং পুলিশে দেওয়া হয় খবর। পরে বিভিন্ন স্কুলে স্কুলে গিয়ে তল্লাশি চালানো হলেও এখন পর্যন্ত কোনো স্কুলে বিস্ফোরক বা সন্দেহজনক কোনো বস্তু পাওয়া যায়নি।
 
জানা গেছে, প্রথমে বাসেশ্বর নগরের নেপেল ও বিদ্যাশিল্পসহ মোট সাতটি স্কুলে ই-মেইলে এই হুমকি দেওয়া হয়। এই স্কুলগুলোর মধ্যে একটি আবার কর্ণাটকের উপ-মুখ্যমন্ত্রী ডিকে শিবকুমারের বাসভবনের ঠিক বিপরীতেই অবস্থিত। এর কিছুক্ষণ পর, আরো কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ই-মেইলের মাধ্যমে একই ধরনের হুমকি আসে। বেঙ্গালুরু পুলিশ সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে সবকটি স্কুল থেকে ছাত্রছাত্রী, শিক্ষক-শিক্ষিকা এবং কর্মীদের সরিয়ে দিয়েছে।

প্রাথমিকভাবে পুলিশের অনুমান, কেউ মজা করে এই হুমকি ই-মেইল করেছে। তবে বোমা নিষ্ক্রিয় কারী বাহিনীকে নিয়ে এসে প্রতিটি স্কুল প্রাঙ্গণে ব্যাপকভাবে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। গত বছরও বেঙ্গালুরুর বেশ কয়েকটি স্কুলে একই ধরনের হুমকি ই-মেইল এসেছিল। কিন্তু সেগুলোর সবকটিই পরে ভুয়া হুমকি বলে প্রমাণিত হয়। এই ক্ষেত্রেও সেই রকমই কিছু ঘটেছে বলে মনে করছে পুলিশ।

তবে বেঙ্গালুরুর পুলিশ কমিশনার বি দয়ানন্দ জানিয়েছেন, বেঙ্গালুরু পুলিশের সন্ত্রাস দমন শাখার অসংখ্য কর্মীরা হুমকি পাওয়া স্কুলগুলোর প্রাঙ্গণ স্ক্যান করছে। এখনো পর্যন্ত অস্বাভাবিক কিছুই পাওয়া যায়নি। সংবাদমাধ্যম এএনআই-কে কর্নাটকের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জি পরমেশ্বর বলেছেন, ‘আমরা এখন পর্যন্ত ১৫টি স্কুল থেকে এই ই-মেইল পাওয়ার খবর পেয়েছি। গত বছরও একই রকমের হুমকি দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু ঝুঁকি নেওয়া যায় না। যে বা যারা এই হুমকি দিয়েছে, আমরা তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেব। আমরা সব দিক খতিয়ে দেখছি।’

 

ইত্তেফাক/এমটি