রোববার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

বাঘায় বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে র‌্যালি ও আলোচনা সভা

আপডেট : ১০ জানুয়ারি ২০২৪, ১৭:০৫

রাজশাহীর বাঘায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উৎযাপন করেছে উপজেলা আওয়ামী লীগ। বুধবার (১০ জানুয়ারি) সকালে আলোচনা সভা, র‌্যালি ও জাতির পিতার ম্যুরালে পুস্পস্তবক অর্পনের মধ্য দিয়ে এ দিবসটি পালন করা হয়। 

সকাল সাড়ে ১১টার দিকে দলীয় কার্যালয়ের সামনে বাঘা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ওয়াহেদ সাদিক কবিরের সঞ্চলনায় ও সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুলের সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

ছবি: নুরুজ্জামান

এ সভায় বক্তব্য দেন রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও সাবেক অধ্যক্ষ আমজাদ হোসেন নবাব, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম মন্টু, আওয়ামী লীগের সিনিয়র সদস্য মাসুদ রানা তিলু, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল কুদ্দুস সরকার, বাঘা পৌর সভার সাবেক প্যানেল মেয়র ও যুবলীগ নেতা শাহিনুর রহমান পিন্টু ও বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন মিল্টন।

উক্ত সভায় বক্তারা বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান পাকিস্তানের বন্দিদশা থেকে মুক্তি পেয়ে ১৯৭২ সালের এই দিনে তিনি সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশের মাটিতে প্রত্যাবর্তন করেন। দীর্ঘ নয় মাস কারাভোগের পর পাকিস্থানের কারাগার থেকে তিনি ৮ জানুয়ারি মুক্তি লাভ করেন। পরে তিনি পাকিস্তান থেকে লন্ডন যান এবং দিল্লি হয়ে ঢাকা ফেরেন। জাতির জনকের কারণে আজকে আমরা স্বাধীন দেশের নাগরিক হতে পেরেছি। তিনি এই দেশকে সোনার বাংলা হিসাবে গড়ে তোলার স্বপ্ন দেখেছিলেন। বর্তমানে তার সুযোগ্য কন্যা ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা পিতার প্রতিটি স্বপ্ন বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন। সেইসঙ্গে আমাদের গর্ব ও চারঘাট-বাঘার উন্নয়নের রূপকার এবং পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম তিনি তার নির্বাচনী এলাকায় একের-পর এক উন্নয়ন চলমান রেখেছেন। এই দৃশ্যমান উন্নয়নের কারণে তিনি চতুর্থবারের মতো আবারও সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। 

এদিকে আলোচনা শেষে দলীয় নেতারা একটি র‌্যালি করে উপজেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পাশে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালে পুস্পস্তবক অর্পণ করে কর্মসূচির সমাপ্তি করেন।  এতে অংশগ্রহণ করেন আওয়ামী লীগের বিভিন্ন সহযোগী সংগঠন।

ইত্তেফাক/পিও