বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

শিক্ষকের গাফিলতিতে এসএসসি পরীক্ষা দিতে পারছে না ১৪ শিক্ষার্থী

আপডেট : ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ২১:৪৬

প্রধান শিক্ষক আব্দুল হান্নান ও আইসিটি শিক্ষক রেজাউল ইসলামের গাফিলতির কারণে ময়মনসিংহের একটি বিদ্যালয়ের ১৪ শিক্ষার্থী প্রবেশপত্র না পেয়ে পরীক্ষায় অংশ নিতে পারছেন না অভিযোগ উঠেছে।

গফরগাঁও উপজেলার মুখী পল্লীসেবক উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৪ শিক্ষার্থীর ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ডে নিবন্ধনই হয়নি। এ ঘটনায় প্রধান শিক্ষক ও আইসিটি শিক্ষক অভিযুক্ত করছেন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। 

জানা গেছে, ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হতে যাওয়া এসএসসি পরীক্ষার চারদিন আগে মুখী পল্লীসেবক উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৪ জন শিক্ষার্থী জানতে পারে পরীক্ষার জন্য প্রবেশপত্র আসা দূরের কথা, তাদের ফরম পূরণ হয়নি। দুই বছরে আগে ২০২২ সালে নবম শ্রেণিতে তারা পড়ার সময়ে তারা যে নিবন্ধন করেছিল । স্কুল কর্তৃপক্ষের ভুলে তাদের সে নিবন্ধনও  হয়নি। তারা এ বছর এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারছে না। ২০২৫ সালে অনুষ্ঠিতব্য এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে কি না, সন্দেহ আছে।

শিক্ষার্থী মেঘলা পারভিন, মো. জিহাদ আল আবিদ, মো. মেহেদি হাসান কাঁদতে কাঁদতে বলেন আমরা বিদ্যালয়ের সব সহপাঠীদের মতো গত দুই বছর ধরে স্কুলের বেতন, সেশন ফি, নিবন্ধন ফি, ফরম পূরণ ফি সবই সব ধরনের ফি পরিশোধ করেছি। তাহলে আমরা পরীক্ষা দিতে পারব না কেন ? আমাদের দোষ কোথায়?

অভিভাবক হারেজ আলী ও আজিজুল ইসলাম জানান, আমরা ঘটনা জানার পর বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের শরণাপন্ন হই। তিনি আশ্বাস দেন সমাধান করে দেওয়ার। মঙ্গলবার বিকালে তিনি দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, এ বছর তাদের পরীক্ষা দেওয়া আর সম্ভব না। সামনের বার হয়তো সমস্যাগুলো সমাধান করে দেওয়া যাবে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল হান্নান বলেন, ২০২৩ ব্যাচে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের নবশ শ্রেণির রেজিস্টেশনের সময় ছবি ও নাম এলোমেলো হয়ে যাওয়ায় ১১৯ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ১৪ জনের রেজিস্টেশন (নিবন্ধন) হয়নি। এই সমস্য সমাধানের চেষ্টা করা হচ্ছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ শফিকুল ইসলাম বলেন, মুখী পল্লীসেবক উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৪ জন শিক্ষার্থী চলতি এসএসসি পরীক্ষার প্রবেশপত্র পায়নি এ মর্মে অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টির তদন্ত চলছে।

ইত্তেফাক/পিও