মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

সবজিতে স্বস্তি ফিরলেও বাড়তি মাংসের দাম

আপডেট : ৩০ মার্চ ২০২৪, ০৭:২০

বাজারে এখন সব ধরনের সবজির দাম কমতির দিকে। রমজানের শুরুতে যে বেগুনের কেজি ছিল ১০০ টাকার ওপরে তা এখন বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৬০ টাকায়। একই অবস্থা অন্য সবজির ক্ষেত্রেও। তবে সবজির দামের এ স্বস্তি হারিয়ে যাচ্ছে মাংসের বাড়তি দামে। গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে রাজধানীর বাজারে ব্রয়লার মুরগির দাম বেড়েছে। এছাড়া, গরুর মাংসের দামও চড়া। এ দুটি পণ্যের কোনটিই সরকার নির্ধারিত দরে বিক্রি হচ্ছে না।

গতকাল শুক্রবার রাজধানীর নিউমার্কেট, কাওরান বাজার ও তুরাগ এলাকার নতুন বাজারে খোঁজ নিয়ে বিভিন্ন পণ্যের দামের এ চিত্র পাওয়া যায়।

গতকাল বাজারে বিভিন্ন ধরনের সবজির মধ্যে বেগুন ৪০ থেকে ৬০ টাকা, শিম ৪০ টাকা, টম্যাটো ৫০ টাকা, মূলা ৪০ টাকা, গাজর ৫০ টাকা, শসা ৬০-১০০ টাকা, করল্লা ৮০ টাকা, পেঁপে ৪০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ৩০ টাকা, ঢ্যাঁড়শ ৫০- ৬০ টাকা, পটোল ৫০ থেকে ৬০ টাকা,  চিচিঙ্গা ৪০-৫০ টাকা, ধুন্দল ৬০ টাকা, বরবটি ৬০-৭০ টাকা, কচুর লতি ৮০-৯০ টাকা, শজনে ১২০ টাকা ও কাঁচা মরিচ ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া, মানভেদে প্রতিটি লাউ ৪০-৫০ টাকা, চাল কুমড়া ৪০ টাকা, ফুলকপি ও বাঁধাকপি ৩০ থেকে ৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এসব সবজি গত এক মাসের ব্যবধানে কেজিতে ১০ থেকে ৫০ টাকা পর্যন্ত কমেছে। এছাড়া, রমজানের শুরুতে চড়া দামে লেবু বিক্রি হলেও এখন তা কমতির দিকে। গতকাল বাজারে প্রতি হালি লেবু মানভেদে ৩০ থেকে ৫০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে।

এদিকে ভারত অনির্দিষ্টকালের জন্য পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করলেও বাজারে খুব বেশি প্রভাব পড়েনি। গতকাল রাজধানীর খুচরা বাজারে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ ৬০ থেকে ৭০ টাকায় বিক্রি হয়। যদিও বর্তমানে পেঁয়াজের এ দর গত বছরের এই সময়ের তুলনায় দ্বিগুণের বেশি। তবে গত এক মাসের তুলনায় পেঁয়াজের দাম কেজিতে ৩০ থেকে ৪০ টাকা কমেছে। কাওরান বাজারের পেঁয়াজ ব্যবসায়ী বেলায়েত হোসেন বলেন, বাজারে হালি পেঁয়াজ উঠতে শুরু করেছে। এটিই দেশে পেঁয়াজের সবচেয়ে বড় মৌসুম। ফলে বাজারে পেঁয়াজের সরবরাহ এখন বাড়বে। তাই, ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করলেও তা বাজারে খুব বেশি প্রভাব ফেলবে না।

গতকাল বাজারে নতুন দেশি রসুন ১২০-১৪০ টাকা, চায়না রসুন ২০০- ২২০ টাকা, আমদানিকৃত আদা ১৮০- ২০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে ঈদের আগে ব্রয়লার মুরগির দাম বাড়তে শুরু করেছে। গতকাল বাজারে প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি ২২০ থেকে ২৩০ টাকা, সোনালি মুরগি ৩০০-৩১০ টাকা, লেয়ার মুরগি ৩২০ টাকা, দেশি মুরগি ৬২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হতে দেখা গেছে। যা সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিতে ১০ থেকে ২০ টাকা বেশি। এছাড়া গরুর মাংস ৭৫০-৭৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। কোন কোন বাজারে তা ৮০০ টাকা কেজিতে বিক্রি হতেও দেখা গেছে। যা এক মাস আগেও ৭৩০ টাকা কেজিতে পাওয়া গেছে। এছাড়া, এই দর সরকার-নির্ধারিত দরের চেয়ে অনেক বেশি। সরকারের কৃষি বিপণন অধিদপ্তর পবিত্র রমজানে বাজার স্থিতিশীল রাখতে প্রতি কেজি গরুর মাংস ৬৬৪ টাকা, ব্রয়লার মুরগি ১৭৫ টাকা ও সোনালি মুরগি ২৬২ টাকা নির্ধারণ করে দিয়েছে। কিন্তু কোথাও সরকার-নির্ধারিত দরে এসব পণ্য বিক্রি হচ্ছে না।

গতকাল বাজারে ফার্মের লাল ডিম ১২০ টাকা এবং সাদা ডিম ১১৫ টাকা ডজন বিক্রি হয়। বাজারে বিভিন্ন ধরনের মাছের মধ্যে প্রতি কেজি রুই মাছ ৩২০-৪৫০ টাকা,  কাতল মাছ ৩৫০-৫০০ টাকা, চিংড়ি মাছ ৮০০ -১২০০ টাকা, চাষের কই মাছ ২২০ থেকে ৩০০ টাকা, পাবদা মাছ ৩৫০-৫০০ টাকা, শিং মাছ ৪০০-৫৫০ টাকা, ট্যাংরা মাছ ৪৫০-৬০০ টাকা, বোয়াল মাছ ৬০০- ৮০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

ইত্তেফাক/এএইচপি