মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১
The Daily Ittefaq

বিদায়বেলা কাঁদলেন, কাঁদালেন ক্লপ

আপডেট : ২১ মে ২০২৪, ১৫:৪৬

রেফারির শেষ বাঁশি। অ্যানফিল্ডে গ্যালারিতে থাকা দর্শকরা তখন ‘ক্লপ-ক্লপ’ বলে রব তোলেন। এর আগে এই মাঠে অসংখ্যবার এসেছেন লিভারপুরের মাস্টারমাইন্ড ইয়ুর্গেন ক্লপ। তবে গেল পরশু ম্যাচে ক্লপের আগমনটা ছিল ব্যতিক্রম। কেননা এই ম্যাচের মধ্যে দিয়ে ইংলিশ জায়েন্ট লিভাপুলের সঙ্গে তার আট বছরের সম্পর্কের ইতি ঘটেছে। গেল পরশু রাতে ২০২৩-২৪ মৌসুমের শেষ ম্যাচে উলভারহ্যাম্পটনের বিপক্ষে মাঠে নামে লিভারপুল। 

যদিও এর আগে চলতি মৌসুমের প্রিমিয়ার লিগ জয়ের দৌড় থেকে ছিটকে যায় দ্য রেডসরা। তাতে কি! লিভারপুলের ইতিহাসে অন্যতম সেরা কোচ ক্লপকে রাজকীয় বিদায় দিতে গ্যালারির কানায়-কানায় পূর্ণ ছিল। গ্যালারিতে থাকা সমর্থকদের গায়ে ছিল দ্য রেডসদের জার্সি। হাতে ছিল ‘ধন্যবাদ ক্লপ’ লিখা ব্যানার-ফেস্টুন। ম্যাচ শুরুর আগে লিভারপুলের খেলোয়াড়রা ক্লপকে দেন গার্ড অফ অনার। তখন দাড়িয়ে করতালির মধ্যেদিয়ে বিদায় জানান গ্যালারিতে থাকা দর্শকরা। অনেক দর্শকের চোখ তখন অশ্রুসিক্ত। এরপর শুরু হলো লিভারপুলের চলতি মৌসুমের শেষ ম্যাচ। সেই ম্যাচে উলভসকে ২-০ গোলে হারিয়ে মৌসুমে শেষ করে জার্গেন ক্লপের শিষ্যরা।

এর আগে ২০১৫ সালে স্বদেশী ক্লাব বরশিয়া ডটমুন্ডের দায়িত্ব ছেড়ে লিভাপুলের দায়িত্ব নেয় ক্লপ। মৌসুম হিসেবে আট মৌসুমে। এর মধ্যে ২০১৯-২০ মৌসুমে প্রিমিয়ার লিগে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার স্বাদ দেন এই জার্মান কোচ। এছাড়াও ক্লপের অধীনে ২০১৮-১৯ ও ২০২১-২২ মৌসুমে প্রিমিয়ার লিগের রানার্সআপ হয় লিভারপুল। সেইসঙ্গে ২০১৯ সালে প্রথমবারের মতো ক্লাব বিশ্বকাপ জয়ের স্বাদ পায় দ্য রেডসরা। ঐ মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন লিগ ও ইউরোপা সুপার কাপের শিরোপা জিতে লিভারপুল। পরিসংখ্যান হিসেবে ২০১৫ সালে ক্লপ দায়িত্ব নেওয়ার পর প্রিমিয়ার লিগে মোট ৩৩৪টি ম্যাচ খেলে লিভারপুল। সেখানে ২০৯টি ম্যাচে জয় পায় দ্য রেডসরা। গেল আট মৌসুমে শতাংশ হিসেবে ৬২.৫৭% জয় ক্লাবটি। আর আগে লিভারপুলের ইতিহাসে কোনো কোচের অধীনে এতো জয়ের স্বাদ পায়নি ইংলিশ জায়েন্টরা।

ম্যাচ শেষে নিজের বিদায় নিয়ে ক্লপ বলেন, ‘আমি ভেবেছিলাম, বিদায় বেলায় আমি ভেঙে পড়ব। কিন্তু না আজ আমি খুবই খুশি। এটি শুরুর মতো মনে হয়। কারণ আজ আমি তারুণ্য, পূর্ণশক্তি সম্পন্ন দল দেখছি।’ আগামী মৌসুম শেষে  অলরেডসদের দায়িত্ব নিবেন আর্নে স্লট। দলের অনাগত কোচকে নিয়ে ক্লপ বলেন, ‘নতুন ম্যানেজার, আমি চাই আপনারা তার নাম ঘোষণা করুন। আর্নে স্লট, না না না না না! পরের মৌসুম শুরু হলে নতুন ম্যানেজারের সঙ্গে পুরো সুর মিলিয়ে নিন। সে যখন শুরু করবে বিশ্বাস রাখতে শুরু করবেন। বিশ্বাস করা বন্ধ করবেন না।’

ক্লপকে নিয়ে দলটির তারকা ফুটবলার মোহাম্মদ সালাহ বলেন, ‘আমরা যখন প্রথমবার কথা বলেছিলাম, তার একটা কথাটি আমার মনে আটকে গিয়েছিল। সেটি হলো, তিনি আমাকে এখানে (লিভারপুল) নিয়ে আসতে চান। তিনি ব্যাখ্যা করেছিলেন, নতুনভাবে একটি দল গঠন করছেন তিনি এবং সেখানে সাদিও (মানে) ও ববি (ফিরমিনো) আছে, আমাকেও সেখানে খেলাতে চান। তিনি আমাকে বলেছিলেন, ফুটবলে আমি তোমার ধার আরও বাড়াবো এবং তুমি যেভাবে চাও তার স্বাধীনতা দেব। আমার অবস্থা এমন ছিল যে, আচ্ছা আমি আসছি। আমি এসেছি এবং তার পরেরটা তো আপনারাই দেখেছেন।’

বিদায় বেলা ম্যানচেস্টার সিটি কোচ পেপ গার্দিওলাকে পাশে পেলেন ইয়ুর্গেন ক্লপ। গেল পরশু রাতে প্রিমিয়ার লিগ শিরোপা জয়ের পর ক্লপকে নিয়ে গার্দিওলা বলেন, ‘আমি তাকে মিস করবো। ইয়ুর্গেন আমার জীবনের খুবই গুরুত্বপূর্ণ অংশ হয়ে গেছে। তিনি আমাকে কোচ হিসেবে অন্য মাত্রায় (দর্শনের মাধ্যমে) পৌঁছে দিয়েছেন। আমরা একে অপরকে অনেক সম্মান করি। আমার এমন মনে হয় যে উনি আবার ফিরে আসবেন।’

ইত্তেফাক/জেডএইচ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন