শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১
The Daily Ittefaq

যুক্তরাষ্ট্র-পাকিস্তান লড়াই

শক্তি, নাকি আত্মবিশ্বাস?

আপডেট : ০৬ জুন ২০২৪, ১৩:০৫

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দ্বিতীয় আসরে ইংল্যান্ডের মাটিতে দাঁড়িয়ে শিরোপা উত্সব করেছিল পাকিস্তান। আজ থেকে ৫ হাজার ৪৬৪ দিন আগের সেই কথা এখনো একক হয়ে আছে। প্রথম আসরের মতো গেল আসরে হাতছোঁয়া দূরত্ব থেকে ফিরেছে এশিয়ার দলটি। তাতে এককে আর দুই করতে পারেনি পাকিস্তান। চলতি আসরে নিজেদের প্রথম ম্যাচে আজ বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টায় স্বাগতিক যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে মাঠে নামছে পাকিস্তান।

বিশ্বকাপে পা দেওয়ার আগে টানা টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলে এসেছে পাকিস্তান। পরপর চার সিরিজ খেলে তারা কাঙ্ক্ষিত ফল তুলে আনতে পারেননি। মাত্র একটিতে জয় এসেছে। বাকি তিনটির মধ্যে একটি ড্র ও দুটি হার। সবশেষ ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ২০ ওভারের ক্রিকেটে পাত্তাই পায়নি পাকিস্তান। চার ম্যাচের সিরিজের দুটি পরিত্যক্ত হওয়ায় ২-০তে সেটি হারতে হয়েছে। এর আগে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ জয় পেলেও একটি ম্যাচ হেরে লজ্জায় ডুবেছিল দলটি। তাতে বৈশ্বিক আসরে বাবর আজম বাহিনী কতটুকু সফল হতে পারবে, তা নিয়ে সংশয় থেকে যায়।

পাকিস্তানকে বলা হয় আনপ্রেডিক্টেবল দল। অর্থাৎ, দলটি কখন ভালো খেলবে আর কখন খারাপ খেলবে কিছুই বোঝা যায় না। ক্রিকেটাররা চূড়ান্ত ফর্মে থাকার পরেও দলটি যেমন একের পর এক হার দেখে, তেমনি খারাপ ফর্মের সময়েও সফলতার দেখা পাওয়া যায়। উদাহরণ হিসেবে বলা যায় গেল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের কথা। প্রথম পর্ব থেকে বাদ পড়ার শঙ্কায় থাকা দলটিই চলে গেল ফাইনালে। অবশ্য শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে ইংলিশদের বিপক্ষে সফল হতে পারেনি তারা। এবার যখন আরেকটি বিশ্বকাপ শুরু হয়েছে, তখন সেই পুরোনো আলোচনা নতুন করে সামনে এসেছে।

ঘরের মাটিতে বিশ্বকাপ খেলছে যুক্তরাষ্ট্র। ইতিমধ্যে স্বাগতিক এই দলটি রেকর্ড গড়ে জয় পেয়েছে কানাডার বিপক্ষে। তাই কাগজে-কলমে পাকিস্তান এগিয়ে থাকলেও নিজেদের মাটিতে আত্মবিশ্বাস বেশি থাকবে মোনাক প্যাটেল-অ্যারন জোনসদের। পাকিস্তানের রয়েছে বাবর আজম, ফখর জামান, মোহাম্মদ রিজওয়ান, ইফতিখার আহমেদের মতো শক্তিশালী ব্যাটার। অন্যদিকে বল হাতে শাহিন শাহ আফ্রিদি, হারিস রউফ, নাসিম শাহ কিংবা মোহাম্মদ আমিরদের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের কারো তুলনা করা যাবে না। 

কিন্তু কানাডার বিপক্ষে যেভাবে দলটি ম্যাজিক দেখিয়েছে, তাতে পাকিস্তানেরও কিছুটা শঙ্কায় থাকা অমূলক কিছু নয়। খেলা হবে ডালাসের গ্র্যান্ড পেইরি ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। মাঠটিতে এবারের উদ্বোধনী ম্যাচে নেমেছিল যুক্তরাষ্ট্র। দ্বিতীয়বারের মতো বাবরদের বিপক্ষে নামবে স্বাগতিকেরা। আত্মবিশ্বাসে এগিয়ে থাকা দলটি শক্তি কিংবা কৌশলের দিক পিছিয়ে থাকবে। তবে হারানোর কিছু নেই, যুক্তরাষ্ট্রের এমন মানসিকতা লড়াইকে আরও জমিয়ে তুলবে।

এদিকে অপর ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কেনসিংটন ওভালে বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় মুখোমুখি হবে নামিবিয়া-স্কটল্যান্ড। দুটি দলই একটি করে ম্যাচ খেলে এসেছে। নিজেদের প্রথম ম্যাচে ওমানকে সুপার ওভারে হারিয়ে এসেছে নামিবিয়া। অন্যদিকে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে খেলে কোনো ফল পায়নি স্কটল্যান্ড। বৃষ্টির বাগড়ায় ১টি করে পয়েন্ট ভাগাভাগি করে নিয়েছে তারা। আজকের রাতের ম্যাচে যারাই জয় পাবে, তারাই থাকবে টেবিলের শীর্ষে। গ্রুপ ‘বি’র এই দুই দল (নামিবিয়া-স্কটল্যান্ড) ইংলিশদের চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ইত্তেফাক/জেডএইউচ