অভিজিৎ-দীপনদের ভুলে গেছে বইমেলা!

অভিজিৎ-দীপনদের ভুলে গেছে বইমেলা!
একুশের বইমেলা। ছবি: ইত্তেফাক

আমরা বিস্মৃতিপ্রবণ জাতি। একজন মানুষ হারিয়ে গেলে ভুলতে সময় নিই না। ২০১৫ সালে আজকের দিনে এই ২৬ ফেব্রুয়ারিতে হত্যা করা হয়েছিল লেখক অভিজিৎ রায়কে। ২০১৫ সালের ৩১ অক্টোবর জাগৃতির ফয়সাল আরেফিন দীপনকে হত্যা এবং শুদ্ধস্বরের আহমেদুর রশীদ চৌধুরী টুটুলকে আহত করে মৌলবাদী গোষ্ঠী। ২০০৪ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি মৌলবাদীদের হামলায় গুরুতর আহত হন লেখক হুমায়ুন আজাদ। বইমেলায় মুক্তবুদ্ধির লেখক-প্রকাশকদের ওপরে বারবার হামলা হয়েছে। অথচ বইমেলায় তাদের কোথাও কোনো অস্তিত্ব নেই। হুমায়ুন আজাদ, অভিজিৎ, দীপনের কথা কেউ বলে না।

হুমায়ুন আজাদের স্মরণে আগামী প্রকাশনী প্রতি বছর মেলায় প্রতিবাদী সমাবেশ করে লেখকের ওপরে হামলার প্রতিবাদ জানায়। তবে অন্য দুজন উপেক্ষিতই রয়ে গেছেন। ফয়সাল আরেফিন দীপনের প্রকাশনী প্রতিষ্ঠান জাগৃতির স্টলে দীপনের একটি ছবি। এছাড়া আর কোথাও তার চিহ্নমাত্র নেই। মেলায় জাগৃতির স্টলে এসে দীপনের ছবি দেখে অনেকেই দুঃখভারাক্রান্ত হয়ে পড়ছেন। এমনকি বইমেলায় অভিজিৎ রায়ের বইগুলোও আর পাওয়া যায় না।

লিটল ম্যাগাজিন চত্বরে কথা হয় তরুণ লেখক মামুন মিজানুর রহমানের সঙ্গে। তিনি বলেন, অভিজিৎ ও ফয়সাল আরেফিন দীপনকে স্মরণ করে একটি সভার আয়োজন হতে পারত। বইমেলার চত্বরগুলো তাদের নামে করেও সম্মান জানানো যেত তাদের। বাংলা একাডেমি তো এই উদ্যোগটা নিতেই পারে।

আরও পড়ুন: প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশেই পাপিয়া গ্রেফতার : কাদের

বেরসিক বৃষ্টিতে বেসুরো বইমেলা :বিরক্তিকর গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি শেষ বেলায় এসে মেলার বেচাকেনা কমিয়ে দিয়েছে। বৃষ্টির সঙ্গে ঠান্ডা বাতাসের কারণে মেলায় লোকসমাগম স্বাভাবিকভাবেই ছিল কম। বিশেষ করে বইমেলার মূল বিক্রিটা হয় এই শেষ বেলায়। তাই শেষ সময়ে বৈরী আবহাওয়া বাগড়া দেওয়ায় বিক্রিতে ভাটার টান। আবহাওয়া অফিসের পূর্বঘোষণা ছিল—২৪, ২৫ ও ২৬ তারিখ বৃষ্টি হতে পারে। সেই অনুযায়ী মেলার তথ্যকেন্দ্র থেকে সোমবারই প্রকাশকদের আগাম সতর্ক করা হয়। অনেক প্রকাশকই বই যেন বৃষ্টিতে না ভেজে, তার জন্য ব্যবস্থা নিয়েছিলেন। তাই বৃষ্টিতে স্টলগুলোর ক্ষতি হয়নি।

মোড়ক উন্মোচন :গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টির মধ্যেই গতকাল মঙ্গলবার বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেছেন সরকারের কয়েক জন মন্ত্রী। মেলায় এদিন মত্স্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী ও সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ লেখক-প্রকাশকদের নিয়ে গণসংগীতশিল্পী ফকির আলমগীরসহ আরো কয়েক জনের বেশ কয়েকটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেন।

নতুন বই :বাংলা একাডেমির জনসংযোগ উপবিভাগের তথ্য অনুযায়ী গতকাল বইমেলায় নতুন বই এসেছে ৯১টি। এর মধ্যে কবিতাচর্চা এনেছে হাবীবুল্লাহ সিরাজীর ‘মধুময় দুপুর মেখেছি’, দোয়েল প্রকাশনী এনেছে স্বপন কুমার সাহার কবিতাগ্রন্থ ‘মানবতার পঙিক্তমালা’, দেশ পাবলিকেশন্স এনেছে সীরাজুম মুনিরের ‘নিষিক্ত’, ঐতিহ্য এনেছে আফজাল হোসেনের ‘ঈশ্বরের ঐশ্বর্য দাপট’, মিজান পাবলিশার্স এনেছে আনিসুল হকের ‘সে’, শিশু গ্রন্থকুটির এনেছে জ্যোতির্ময় সেনের ছড়ার বই ‘ভূত নিয়ে খুঁতখুঁত’ প্রভৃতি।

মেলামঞ্চে অনুষ্ঠান :গতকাল বিকালে মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় সমীর কুমার বিশ্বাস রচিত ‘বঙ্গবন্ধুর সমবায়-ভাবনা’ শীর্ষক গ্রন্থ নিয়ে আলোচনা। প্রবন্ধ পাঠ করেন সেলিম জাহান। আলোচনায় অংশ নেন রাজু আলাউদ্দিন, তপন বাগচী এবং এ এফ এম হায়াতুল্লাহ। সভাপতিত্ব করেন অধ্যাপক আবুল আহসান চৌধুরী। পরে কবিকণ্ঠে কবিতা পাঠ করেন কবি সিদ্ধার্থ হক, মিলু শামস, আফরোজা সোমা, মন্দিরা এষ ও গিরীশ গৈরিক। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে ছিল মীর জাহিদুল হাসানের পরিচালনায় এবং মহাকাল নাট্য সম্প্রদায়ের পরিবেশনায় নাটক ‘মহাপ্রয়াণের শোক আখ্যান’।

ইত্তেফাক/এসি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত