মিরপুরে ৭৫ ফুট জায়গার মধ্যে ৪৫ ফুটই দখল

মিরপুরে ৭৫ ফুট জায়গার মধ্যে ৪৫ ফুটই দখল
সড়কের জায়গা দখল করে গড়ে ওঠা এসব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। ছবি: ইত্তেফাক

রাজধানীর মিরপুরে দ্বিতীয় দিনের মতো উচ্ছেদ অভিযান চালিয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)।

শুক্রবার (২২ জানুয়ারি) সকাল ১০টা থেকে ১১ নম্বর সেকশনের ৪ নম্বর সড়কে এসব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়।

ওই সড়কের ৭৫ ফিট জায়গার মধ্যে প্রায় ৪৫ ফিট জায়গা দখল করে অবৈধভাবে দোকানপাট ও তিন তলা থেকে চার তলা বিশিষ্ট ভবন গড়ে তোলা হয়।

আরও পড়ুন: মিরপুরে উচ্ছেদ অভিযানে বাধা, স্থানীয়দের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ

সরেজমিনে দেখা গেছে, বৃহস্পতিবার সড়ক থেকে যেসব অবৈধ স্থাপনা ভাঙা হয়, সেগুলোই আজকের অভিযানে পুরোপুরি অপসারণ করা হয়। এর আগে এ সড়কের জায়গা দখল করে গড়ে ওঠা প্রায় ৪০০ দোকানপাট ও ভবন উচ্ছেদ করা হয়।

৪ নম্বর সড়কে এসব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। ছবি: ইত্তেফাক

এছাড়া ব্যক্তি উদ্যোগে মালামাল সরিয়ে নিতে দেখা যায় ব্যবসায়ী ও ভবনের বাসিন্দাদের। যেকোনো রকমের বিশৃঙ্খলা এড়াতে আজও অভিযানকালে পুলিশ, র‌্যাব এবং আনসার সদস্যদের মোতায়েন করা হয়।

আরও পড়ুন: বাদামতলীতে ফল ব্যবসায়ীদের দখলে থাকা শতাধিক অবৈধ স্থাপন উচ্ছেদ

বৃহস্পতিবারের উচ্ছেদ অভিযানে ডিএনসিসির কর্মকর্তা ও পুলিশের সঙ্গে স্থানীয় কজনের পাল্টাপাল্টি ধাওয়া হয়েছিলো। অভিযানে স্থানীয় লোকজন বাধা দিলে এ পরিস্থিতি তৈরি হয়। স্থানীয় বিহারিদের সঙ্গে সেখানকার রাজনৈতিক নেতা-কর্মীদের পাল্টাপাল্টিও ধাওয়া হয়। তবে আজ কোনো প্রকার বাধা ছাড়াই অভিযান পরিচালনা করা হয়।

অবৈধ স্থাপনার উচ্ছেদ কার্যক্রম দেখতে এসে ডিএনসিসির মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম আক্ষেপ করে বলেন, যে দিকই হাত দিচ্ছি তাই অবৈধ। বৈধর সংখ্যা খুবই কম। তাই কোনো প্রকার নোটিশ দেওয়া হবে না দখলদারদের।

উচ্ছেদ কার্যক্রম দেখতে এসেছিলেন ডিএনসিসির মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম। ছবি: ইত্তেফাক

তিনি বলেন, স্বাধীনতার পর থেকে এখন পর্যন্ত এই জায়গাটি বিহারীরা অবৈধভাবে দখল করে রাখে। উদ্ধার কার্যক্রম শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই মাস্টারপ্ল্যান অনুযায়ী সড়ক নির্মাণের কাজ শুরু হবে। যাতে করে পুনরায় দখল করা না যায়।

ইত্তেফাক/এমএ/জেডএইচ

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x