বেটা ভার্সন
আজকের পত্রিকাই-পেপার ঢাকা সোমবার, ১০ আগস্ট ২০২০, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭
৩২ °সে

ভেদরগঞ্জে ভাঙ্গন প্রতিরোধের জন্য ৯০ লক্ষ টাকা দিলেন পানিসম্পদ উপমন্ত্রী

ভেদরগঞ্জে ভাঙ্গন প্রতিরোধের জন্য ৯০ লক্ষ টাকা দিলেন পানিসম্পদ উপমন্ত্রী
ভেদরগঞ্জে ভাঙ্গন প্রতিরোধের জন্য ৯০ লক্ষ টাকা দিলেন পানিসম্পদ উপমন্ত্রী। ছবিঃ ইত্তেফাক

শরীয়তপুর জেলার ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুর থানার উত্তর তারাবুনিয়া চেয়ারম্যান ষ্টেশন বাজার রক্ষায় ৯০ লক্ষ টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম এমপি। ভাঙ্গন শুরু হওয়ার একদিন পরেই এই বরাদ্দ মঞ্জুর করেন। গত ২৯ জুন দুপুরে পদ্মানদীর আকস্মিক ভাঙ্গনে ১৬ টি দোকান ক্ষতিগ্রস্থ হয়। এর মধ্যে ৫ টি দোকান সম্পূর্ণভাবে নদীগর্ভে তলিয়ে গেছে। বিষয়টি জানার পরপরই শরীয়তপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম ভাঙ্গন প্রতিরোধের জন্য জিও ব্যাগ ফেলার জন্য ৩ টি প্যাকেজে ৯০ লক্ষ টাকা মঞ্জুর করেন।

উত্তর তারাবুনিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ইউনুস সরকার বলেন, উত্তর তারাবুনিয়া চেয়ারম্যান ষ্টেশন বাজার হঠাৎ করেই নদীভাঙ্গন শুরু হয়। নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায় চেয়ারম্যান ষ্টেশন বাজারের বেশ কিছু দোকান। আমি সংবাদ শোনার সাথে সাথেই পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম, এমপি মহোদয়কে ফোন করে নদীভাঙ্গার কথা অবহিত করি এবং সাথে সাথেই মাননীয় উপ-মন্ত্রী মহোদয়ের নির্দেশে শরীয়তপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আহসান হাবিব ও ভেদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার তানভীর আল নাসীফ ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শনে আসেন।

তিনি আরও বলেন, মাননীয় উপমন্ত্রী ভাঙ্গন শুরু হওয়ার ২৪ ঘন্টার মধ্যেই জিও ব্যাগের ডাম্পিং করে নদী ভাঙ্গনরোধের ব্যবস্থার গ্রহণ জন্য ৯০ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করেন।

শুক্রবার (৩ জুলাই) সকালে চেয়ারম্যান ষ্টেশন বাজারের নদীর তীর রক্ষায় ৩টি পয়েন্টে জিও ব্যাগ ডাম্পিংয়ের কাজ শুরু হয়েছে। তাৎক্ষণিক নদীভাঙ্গন রোধের ব্যবস্থা নেওয়ায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও পানি সম্পদ উপমন্ত্রী মহোদয়ের প্রতি উত্তর তারা বুনিয়াবাসীর পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা জানাই।

আরো পড়ুনঃ মাগুরায় করোনা ভাইরাসে আরো ১ জনের মৃত্যু, ২১ জন আক্রান্ত

শরীয়তপুর জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডর নির্বাহী প্রকৌশলী আহসান হাবিব বলেন, গত ২৯ জুন দুপুর ১ টার দিকে পদ্মার পানি বৃদ্ধির সাথে সাথে তারাবুনিয়া স্টেশন বাজারের ৩ টি স্থানে ব্যাপক ভাঙ্গন শুরু হয়েছে। এ এলাকার সংসদ সদস্য, পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম সাহেব এর নির্দেশে আমরা ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শন করে চাহিদাপত্র দেয়ার সাথে সাথে ৩ টি প্যাকেজের জন্য ৯০ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করেন।

ভেদরগঞ্জে উপজেলা নির্বাহী অফিসার তানভীর আল নাসীফ বলেন, ভাঙ্গনে সংবাদ শোনার ২৪ ঘন্টা ব্যবধানে মাননীয় পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম মহোদ্বয়ের নির্দেশে জিও ব্যাগ ফেলার কাজ শুরু হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ত্রাণ সহায়তা দেয়া হয়েছে। অপর দিকে স্থানীয় চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ইউনুস সরকার ব্যক্তিগতভাবে ৫ বস্তা চাল বিতরণ করেছে।

পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম বলেন, আমরা সারাদেশের বন্যা কবলিত এলাকা ও নদী ভাঙ্গন এলাকাগুলোকে চিহ্নিত করে সার্বিকভাবে নজরদারিতে রেখেছি এবং যেকোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলায় আমরা প্রস্তুত রয়েছি। বন্যা কবলিত এলাকা ও নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকাগুলোর যেখানে যেখানে যা প্রয়োজন বরাদ্দ দিচ্ছি। এছাড়া গেল কয়েকদিনে শরীয়তপুর ছাড়াও মুন্সিগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, সিরাজগঞ্জ, নেত্রকোনায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ এলাকায় বিশেষ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

ইত্তেফাক/এমএএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত