শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

শাবি উপাচার্য কার্যত অবরুদ্ধ 

আপডেট : ২৫ জানুয়ারি ২০২২, ০৫:০৮

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের পদত্যাগের এক দফা দাবিতে ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের আমরণ অনশনসহ নানা কর্মসূচি অব্যাহত রয়েছে। নিজ বাসভবনে কার্যত অবরুদ্ধ হয়ে আছেন ভিসি। পুলিশ সদস্য ও গণমাধ্যমকর্মী ছাড়া কাউকে সেখানে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। গতকাল সোমবার ভিসির বাসায় খাবার নিয়ে যেতেও বাধা দেন শিক্ষার্থীরা। আগের দিন বিদু্যত্ ও পানির সংযোগ কেটে দিলে রাতে ভবনটিতে ভূতুড়ে অবস্থা বিরাজ করে। ভিসি বিদু্যত্হীন অবস্থায় কীভাবে সময় কাটাচ্ছেন, তা অবশ্য জানা যায়নি। এদিকে গতকাল সকাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে পাহারা বসিয়েছেন আন্দোলনকারীরা। আন্দোলনকালীন শিক্ষার্থী ছাড়া কেউ যাতে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করতে না পারে, সেজন্য এই উদ্যোগ নিয়েছেন তারা।

দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষার্থীরা বলেন, ‘আর কোনো দাবি নেই, ভিসির পদত্যাগই একমাত্র সমাধান। আমরা মরে গিয়ে প্রমাণ করে দেব, শিক্ষার্থীদের প্রাণের চেয়ে চেয়ারের মূল্য অনেক বেশি।’ তারা বলেন, আন্দোলন চালু রেখে শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করা যাবে। তবে গতকাল তাদের সঙ্গে কোনো ধরনের যোগাযোগ করেনি শিক্ষা মন্ত্রণালয়। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের পক্ষে এসব কথা বলেন সাব্বির হোসেন, নাফিসা আনজুম প্রমুখ। বিকালে শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে মিছিল বের করেন। এ সময় স্লোগানে মুখর হয়ে ওঠে গোটা ক্যাম্পাস।

এর আগে দুপুরে দুই জন সিটি কাউন্সিলর আন্দোলনকারী শিক্ষার্থী ও অবরুদ্ধ ভিসির জন্য খাবার নিয়ে যান। আন্দোলনকারীরা খাবার আনার জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে সেই খাবার পথশিশুদের মধ্যে বিলিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। তবে তারা কাউন্সিলরদের ভিসির বাসভবনে খাবার নিয়ে যেতে দেননি। অন্যদিকে শাবির প্রক্টর আলমগীর কবিরের নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি দল ভিসির বাসভবনের দক্ষিণ পাশের  ডরমেটরিতে আটকে পড়া কয়েক জন শিক্ষকের জন্য খাবারের প্যাকেট নিয়ে গেলে শিক্ষার্থীরা তাদের ভেতরে যেতে দেননি। তখন শিক্ষকেরা বলেন, ভেতরে আটকে পড়া এক জন শিক্ষক অসুস্হ। তখন আন্দোলনকারীরা বলেন, এক জন শিক্ষক যেতে পারবেন এবং যদি কেউ অসুস্হ থাকেন, তবে তার চিকিত্সার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করা যাবে। কিন্তু পরে কোনো শিক্ষক ভেতরে যাননি বলে সংশ্লিষ্টরা জানান।

গত ১৩ জানুয়ারি শাবির একটি ছাত্রী হলে প্রভোস্টের পদত্যাগের দাবিতে ছাত্রীরা আন্দোলন শুরু করেন। সেই আন্দোলনে পুলিশ হামলা চালালে শেষ পর্যন্ত সেটি ভিসিবিরোধী আন্দোলনে রূপ নেয়। শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠকেও সংকটের সমাধান হয়নি। ভিসির পদত্যাগের এক দফা দবিতে আমরণ অনশন করছেন শিক্ষার্থীরা।

অপারেশনেও অনশন ভাঙেননি রাতুল

অ্যাপেন্ডিক্স অপারেশন করলেও অনশন ভাঙেননি শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী মাহিন শাহরিয়ার রাতুল। রবিবার বিকালে অনশনরত রাতুলের অ্যাপেন্ডিক্স ধরা পড়ে। রাত ১০টা ৪৫ মিনিটে রাগীব রাবেয়া মেডিক্যালে তার অপারেশন হয় বলে জানান রাতুলের সহপাঠী মিজানুর রহমান। এদিকে অনশন করার সময় অসুস্হ হয়ে যারা হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন, তাদের মধ্যে অনেক শিক্ষার্থী সুস্হ হয়ে আবার অনশনে যোগ দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

সহিংসতা পরিহারের আহ্বান শাবি শিক্ষক সমিতির

ভিসির বাসভবনের বিদু্যত্, গ্যাস ও ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন করাকে শাবি শিক্ষক সমিতি কোনোভাবেই সমর্থন করে না বলে সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. তুলসী কুমার দাস ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মহিবুল আলম রবিবার রাতে এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন। তারা এমন ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, আন্দোলনকারীরা সব ধরনের সহিংসতা পরিহার করবে বলে শিক্ষক সমিতি বিশ্বাস করে।

অবিলম্বে ভিসির অপসারণ চাইলেন বিশিষ্ট নাগরিকেরা

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে অনশনরত শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নিয়ে দ্রুত ভিসির অপসারণে পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন সিলেটের বিশিষ্ট নাগরিকবৃন্দ। গতকাল বিকেলে সিলেট কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে এক সংহতি সমাবেশে বিশিষ্ট ব্যক্তিরা এ দাবি জানান। এতে সভাপতিত্ব করেন সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এমাদ উল্লাহ শহীদুল ইসলাম।

আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দের নিন্দা

শাবি ভিসির বাসভবনের বিদু্যত্ ও ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন করায় সিলেট জেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। রবিবার গভীর রাতে এক বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, আন্দোলনের যৌক্তিক সমাধানের জন্য যখন আলোচনা চলছে, সেই অবস্থায় এরকম কার্যক্রম অন্য কিছুর ইঙ্গিত বহন করে।

ঢাবি শিক্ষক সমিতির বিবৃতি

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার জানান, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে পুলিশের হামলার পেছনে কারো কোনো উসকানি আছে কি না, তা জানতে চায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি। পাশাপাশি আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে অবিলম্বে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার সুষ্ঠু ও স্বাভাবিক পরিবেশ নিশ্চিত করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে সংগঠনটি। গতকাল সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. রহমত উল্লাহ ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. নিজামুল হক ভূইয়া স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই আহ্বান জানানো হয়। 

ইত্তেফাক/কেকে

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

পিএইচডিকালীন ইনক্রিমেন্টে ইউজিসির স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার দাবি

অসমাপ্ত কাজ সম্পন্ন করবে বর্তমান শাবি শিক্ষক সমিতি: ড. আখতারুল ইসলাম

জরুরী সেবা চালু করলো শাবির প্রক্টর অফিস

শাবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি আখতারুল, সম্পাদক জহির

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

১১ দফা দাবি জানিয়েছেন শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মচারীরা

শাবিতে স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি অনুষ্ঠিত

বহুভাষিক চলচ্চিত্র উৎসব করবে শাবির চোখ ফিল্ম সোসাইটি

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ