মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

জাভা প্রোগ্রামারদের জাগবিডি

আপডেট : ২৩ মার্চ ২০২২, ০২:৩১

বর্তমান বিশ্বে সর্বাধিক ব্যবহৃত প্রোগ্রামিং ভাষার মধ্যে জাভা অন্যতম। স্মার্ট কার্ড থেকে শুরু করে স্যাটেলাইট প্রোগ্রামিং পর্যন্ত আধুনিক বিশ্বের সর্বত্র জাভা ব্যবহৃত হয়। সোশ্যাল মিডিয়া লিংকডিন, আ্যমাজন, ফেসবুক ও উইকিপিডিয়ার মতো জনপ্রিয় ওয়েব এপ্লিকেশনগুলোও জাভা প্রোগ্রামিং ভাষায় তৈরি। কানাডিয়ান কম্পিউটার বিজ্ঞানী জেমস গসলিংয়ের ১৯৯৫ সালে জাভা প্রোগ্রামিং ভাষার প্রবর্তন করেন। একবিংশ শতাব্দীর শুরুতে বিশ্বব্যাপী জাভা জনপ্রিয় হয়ে উঠলে বাংলাদেশেও জাভা প্রোগ্রামিং ভাষার জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকে।

বাংলাদেশে শিক্ষার্থী, জাভা প্রোগ্রামার ও সফটওয়্যার ডেভলপারদের মাঝে সেতুবন্ধন সৃষ্টি ও জাভা বিষয়ক জ্ঞানের আদান-প্রদানের লক্ষ্যে ২০১৩ সালের আগস্ট মাসে 'জাভা ইউজারস গ্রুপ বাংলাদেশ (জাগবিডি) যাত্রা শুরু করে। সংগঠনটি শুরুর দিককার অন্যতম ক'জন ব্যক্তিত্ব হলেন— বাংলা ভাষায় জাভার  জনপ্রিয় কিছু বইয়ের লেখক আ. ন. ম. বজলুর রহমান,  কানাডায় কর্মরত সফটওয়্যার প্রকৌশলী অরণ্য আব্দুল্লাহ আল মামুন, বিকাশের প্রিন্সিপাল ইঞ্জিনিয়ার রুহুল কুদ্দুস স্বাক্ষর, জার্মানীতে কর্মরত সফটওয়্যার প্রকৌশলী সায়েম আহমেদ, যুক্তরাষ্ট্রের অ্যারিজোনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক সাজ্জাদুর রহমানসহ আরও অনেকে।

প্রতিষ্ঠার পর থেকেই জাগবিডি এখন পর্যন্ত ৮ টি কনফারেন্সের আয়োজন করেছে, যার সর্বশেষটি আয়োজিত হয়েছিল ২০২১ সালের ৩০ ডিসেম্বর। এছাড়াও নিয়মিত অনলাইন সেমিনার হচ্ছে। তাদের ফেসবুক গ্রুপে যুক্ত আছে ১২ হাজারেরও বেশি জাভা প্রোগ্রামিং ভাষা ব্যবহারকারী মানুষ। এই গ্রুপে শিক্ষার্থী, জাভা ডেভেলপার, বিভিন্ন কোম্পানির রিক্রুটার থেকে শুরু করে সকল প্রকার মানুষের সমন্বয় ঘটেছে। কাজেই যেকোনো সময় এই কমিউনিটির যেকোনো প্রয়োজনে বাকিরা স্বেচ্ছায় সহযোগিতা করে থাকে, এমনকি বিভিন্ন কোম্পানির শীর্ষস্থানীয় ব্যক্তিবর্গ এবং রিক্রুটাররা থাকায় দক্ষ মানুষেরা খুব সহজেই কর্মসংস্থানের সুযোগ পেয়ে থাকে। এছাড়াও তারা প্রায় প্রতিটি কনফারেন্সে জাভা চ্যাম্পিয়নদের আমন্ত্রণ করে, এতে যে কেউ দেশে বসে খুব সহজেই জাভা বিষয়ক আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন জ্ঞানী ব্যক্তিদের থেকে বিভিন্ন সমস্যার সমাধান জানতে পারে।

অন্যদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন কর্মশালা আয়োজনের পাশাপাশি জাগবিডি বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডও পরিচালনা করে থাকে। জাগবিডির প্রতিষ্ঠাকালীন অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সদস্য আ. ন. ম. বজলুর রহমান বলেন, ' আমরা ২০১৫ সালে জাগবিডি থেকে রোগী ব্যবস্থাপনার জন্য জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটকে বিনামূল্যে একটি সফটওয়্যার তৈরি করে দিয়েছিলাম। যেটি তারা ৪-৫ বছর ধরে তাদের রোগীদের যাবতীয় তথ্য ব্যবস্থাপনার কাজে ব্যবহার করেছেন।'

২০১৩ সালে ছোট কিছু মানুষের হাত ধরে শুরু হওয়া এই গল্পটা আজ বিস্তৃত গোটা বিশ্বজুড়ে। সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা সদস্যরা কিংবা গ্রুপের সাধারণ সদস্যদের অনেকেই যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, জার্মানি, সিঙ্গাপুর, অস্ট্রেলিয়াসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বহুজাতিক কোম্পানিতে কাজ করছেন। যাদের অবদানেই বাংলাদেশে জাভা প্রোগ্রামিং ভাষার সবচেয়ে জনপ্রিয় গ্রুপ হয়ে উঠেছে জাগবিডি।

ইত্তেফাক/এসটিএম