শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

দখল-দূষণে বেহাল গুলশান লেক

আপডেট : ০৯ মে ২০২২, ২০:১০

পচা পানির দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে চারদিকে। পানির ওপর ভাসছে প্লাস্টিকের বোতল, পলিথিন, প্যাকেট, কৌটা ও পয়োবর্জ্য। সঙ্গে মশার লার্ভা জমছে পানিতে। গুলশান-বনানী লেকের চিত্র এটি। দুর্গন্ধ চারদিকে এমনভাবে ছড়াচ্ছে যে, লেকপাড়ের বাসিন্দারা দরজা-জানালা বন্ধ রাখতে বাধ্য হচ্ছেন। এর মধ্যেই আবার করা হচ্ছে মাছ চাষ।

ময়লা-আবর্জনাযুক্ত বিষাক্ত পানির কারণে মাছ মরে ভেসে উঠছে। প্রায় ৪০ একর জয়গার এই লেকটিতে অধিকাংশ মাছের গায়ে, পেটে ও লেজে ঘা ও পঁচন ধরছে। রাজউক কর্তৃক এই দূষিত পানির মাছ স্বাস্হে্যর জন্য ক্ষতিকর লেখা সাইনবোর্ড থাকলেও তা আশপাশের বাজারে বিক্রি হচ্ছে দেদার। অন্যদিকে লেকের আশপাশে গড়ে উঠেছে গ্যারেজ ও টং দোকান। আবার লেকের  মধ্যে কয়েকটি স্থানে ঘেরাও করে মাছ চাষ করার কারণে সেখানে গরু-মহিষের নাড়িভুঁড়ি ফেলা হচ্ছে খাবার হিসেবে।

স্থানীয়রা জানান, এ থেকেও উত্কট দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। লেকের পাশের অনেক বাসিন্দা গৃহস্থালির বর্জ্যও লেকে ফেলছেন। এছাড়া বাসাবাড়ির পয়োবর্জের লাইন লেকে দেওয়া হয়েছে। এমনকি উন্মুক্ত আবর্জনার ড্রেনও লেকের সঙ্গে সংযুক্ত করে দেওয়া হয়েছে। বৃষ্টি হলেই ড্রেন দিয়ে আশপাশের বর্জ্য লেকের ভেতরে পড়ছে। এতে পানি দূষিত হচ্ছে। ক্রমেই বর্জে্য ভরাট হয়ে যাচ্ছে লেকটি।

 

রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক) গুলশান, বনানী ও বারিধারা লেকের উন্নয়ন এবং রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব দিয়েছে গুলশান সোসাইটিকে। কিন্তু সোসাইটি থেকে লেকটি রক্ষায় তেমন কোনো কার্যকর উদ্যোগ দেখা যায়নি বলে স্থানীয় বাসিন্দারা জানান। লেকের বর্তমান অবস্থা পরিবেশের জন্য হুমকিও বলছেন তারা।

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, দুর্গন্ধযুক্ত পানি ও আবর্জনা প্রতিনিয়ত এলাকার বিশুদ্ধ বাতাস নষ্ট করছে। যেখানে মানুষ নাক ঢেকেও দুর্গন্ধ থেকে মুক্তি পাচ্ছে না। আবর্জনা এবং বর্জ্য দ্বারা দূষিত দুর্গন্ধযুক্ত বায়ুর কারণে লেকের পাশে হাঁটতে আসা মানুষ বেশ ভোগান্তিতে পড়ছে। এছাড়া লেকটি কূটনৈতিক এলাকায় হওয়ায় এ ধরনের দূষণ দেশের ভাবমূর্তিও নষ্ট করছে বলে তাদের অভিযোগ। তারা অচিরেই এই লেকের প্রাণ ফিরিয়ে আনার কার্যকরী উদ্যোগ নেওয়ার দাবি জানান।

লেকের মধ্য দিয়ে সুয়ারেজ লাইনের বিষয়ে ওয়াসার চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা বলেন, যেহেতু এটি রাজউক দেখাশোনা করে সেহেতু লেকের ক্ষতি হয় এমন কাজ থেকে বিরত রাখার জন্য রাজউককেই ব্যবস্থা নিতে হবে। লেকের মধ্যে পয়োবর্জে্যর বিষয়ে রাজউক চেয়ারম্যান আমিন উল্লাহ নূরী বলেন, ওয়াসা যেহেতু সুয়ারেজ বিল নেয় সেহেতু সুয়ারেজের লাইন কোথায় কী অবস্থায় আছে, সে বিষয়টি তাদেরও দেখা উচিত। তারপরেও আমরা এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেব।

ইত্তেফাক/কেকে

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

খিলগাঁওয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে রিকশাচালকের মৃত্যু

দুর্ঘটনায় পা হারানো শিশু জান্নাতের পাশে পুনাক সভাপতি

ঐক্য ডটকম ডটবিডি-চ্যানেল আই নজরুল মেলা

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সহজেই মিলছে স্যানিটারি ন্যাপকিন

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

হলি আর্টিজানের ঘটনার পর স্থগিত ফুলব্রাইট প্রোগ্রাম আবারও চালু

প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঢাকা-বেনাপোল ট্রেনটি আবার চালুর দাবি

হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টাল থেকে প্রকৌশলীর লাশ উদ্ধার

সেনাবাহিনীতে প্রথমবারের মতো চাকরি মেলা