বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

নিউইয়র্কে জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের নির্বাচন ৫ জুন

সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ মূল ৫টি পদে লড়াই 

আপডেট : ০১ জুন ২০২২, ১৪:২১

উত্তর আমেরিকার অন্যতম বড় আঞ্চলিক সংগঠন জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন অব আমেরিকা ইনকের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন আগামী ৫ জুন রবিবার। এ উপলক্ষে চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি ও প্রচার। প্রস্তুত নির্বাচন কমিশন। প্রায় ১১ হাজার সদস্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন ভোট দেওয়ার। তাদের মূল্যবান ভোটে নির্বাচিত হবেন কারা নেতৃত্বে আসবেন এই সংগঠনের।

ভোটের দিন যত ঘনিয়ে আসছে, প্রার্থীদের উদ্বেগ উৎকণ্ঠা ততই বাড়ছে। ঘুম নেই তাদের চোখে। ভোট যুদ্ধে নেমে চলছে তাদের বিরামহীন প্রচার। যদিও কার্যকরী পরিষদের ১৯টি পদের মধ্যে ১৪টি পদের প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। ফলে সভাপতি, সহ-সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, কোষাধ্যক্ষ ও সাদস্যিক সম্পাদক নির্বাচিত করদে সদস্যদের যেতে হবে ভোটকেন্দ্রে।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার আতাউর রহমান সেলিম জানিয়েছেন, নির্বাচন সুষ্ঠু ও সুন্দর করতে সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। আগামী ৫ জুন রোববার পাঁচটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। তিনি ভোটারদের আইডি নিয়ে ভোটকেন্দ্রে আসার আহ্বান জানিয়েছেন। পাশাপাশি প্রার্থী, তাদের এজেন্ট ও সমর্থকদের নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে চলার অনুরোধ জানান তিনি।

নির্বাচন কমিশন জানায়, নিউইয়র্কের কুইন্সের এনটিভি স্টুডিও, ব্রঙ্কসের নিরব রেস্টুরেন্ট ও ওজোন পার্কের দেশি সিনিয়র সেন্টার কেন্দ্রে সকাল ৯টা থেকে রাত ৮টা, নিউজার্সির প্যাটারসন ফায়ারম্যান হল কেন্দ্রে সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা এবং পেনসিলভেনিয়ার ফিলাডেলফিয়ার আল-শাম রেস্টুরেন্ট কেন্দ্রে সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ করা হবে। ৪৪৪ জন আজীবন সদস্যসহ ১১ হাজার ৯২ জন সদস্য তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। 

আতাউর রহমান সেলিম আরও জানান, জিপ কোড অনুযায়ী নির্ধারণ করা হয়েছে ভোট কেন্দ্রগুলো। আজীবন সদস্যরা আইডি কার্ড দেখিয়ে ভোট দিতে পারবেন। তবে সাধারণ সদস্যদের অবশ্যই আইডি কার্ডের সঙ্গে ভোটার তালিকার জন্মসাল মিল থাকতে হবে। নির্বাচনের দিন ভোট কেন্দ্রের ১০০ গজের মধ্যে কোনো পোস্টার লাগানো, লিফলেট বিতরণ এবং শব্দযন্ত্র ব্যবহার করা যাবে না। প্রতিটি কেন্দ্রে প্রত্যেক প্রার্থী দুই জন করে এজেন্ট নিয়োগ দিতে পারবেন। তবে একজনের বেশী কেন্দ্রের ভেতরে থাকতে পারবেন না। ভোটার তালিকার ব্যাপারে কোনো আপত্তি গ্রহণ করবে না নির্বাচন কমিশন। নির্বাচন সুষ্ঠু ও সুন্দর করতে সবার সহযোগিতা কামনা করেন।

এখানে উল্লেখ্য, জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের ৫ সদস্য বিশিষ্ট নির্বাচন কমিশনের অন্য সদস্যরা হলেন- মোশাররফ হোসেন, সাব্বির হোসেন, আহমেদ এ হাকিম ও মিনহাজ আহমেদ।

কার্যকরী পরিষদের ১৯টি পদের মধ্যে ১৪টি পদের প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন এবং তারা সকলেই ‘বদরুল-মঈনুল’ প্যানেলের প্রার্থী। এই প্যানেলের প্রার্থীরা হলেন, সভাপতি বদরুল হোসেন খান, সহ-সভাপতি (সিলেট) মো. লোকমান হোসেন লুকু, সহ-সভাপতি (সুনামগঞ্জ) মোহাম্মদ শাহীন কামালী, সহ-সভাপতি (হবিগঞ্জ) মো. শফি উদ্দিন তালুকদার, সহ-সভাপতি  মৌলভীবাজার) বশির খান, সাধারণ সম্পাদক মইনুল ইসলাম, সহ-সাধারণ সম্পাদক রোকন হাকিম, কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলীম, সাংগঠনিক সম্পাদক ইফজাল আহমেদ চৌধুরী, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক হোসেন আহমদ, প্রচার ও দপ্তর সম্পাদক ফয়ছল আলম, ক্রীড়া সম্পাদক মান্না মুনতাসির, আইন ও আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক বুরহান উদ্দিন, সমাজকল্যাণ সম্পাদক জাহিদ আহমেদ খান, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক সুতিপা চৌধুরী, কার্যকরী সদস্য (সিলেট) হেলিম উদ্দিন, কার্যকরী সদস্য (সুনামগঞ্জ) শামীম আহমেদ, কার্যকরী সদস্য (হবিগঞ্জ) দেলোয়ার হোসেন মানিক, কার্যকরী সদস্য (মৌলভীবাজার) মিজানুর রহমান।

এদিকে স্বতন্ত্রভাবে সভাপতি পদে লড়ছেন মাসুদুল হক ছানু, সাধারণ সম্পাদক পদে লড়ছেন সাইকুল ইসলাম, সহ-সভাপতি (সিলেট জেলা) পদে শাহ মিজানুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ পদে মিসবাহ উদ্দিন আহমেদ, সাংগঠনিক ও সাদস্যিক সম্পাদক পদে শাহীদুল হক।

সামাজিক যোগাযোগ এবং সভা-সমাবেশের মাধ্যমে চলছে শেষ মুহূর্তের নির্বাচনী প্রচারণা। 

ইত্তেফাক/এমআর