রোববার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

যেসব খাবার অ্যাসিডিটি কমায়

আপডেট : ১১ আগস্ট ২০২২, ১৯:০১

কিছু খেলেই অ্যাসিডিটি হচ্ছে? বুক থেকে টক ঢেকুর আসায় গলা-বুক জ্বলছে? সমস্যাটা বিরক্তিকর। তবে এই পরিস্থিতি বেশিদিন চলতে দেয়া উচিত না। মূলত পেটে গ্যাস হওয়া মানে খাবার হজমের গ্যাস্ট্রিক জুস ঠিকঠাক কাজ করছে। সচরাচর এই জুস নিম্নগতির হয়। কিন্তু প্রায়শই এরা ওপরে উঠে এসে দেহে অস্বাভাবিক পরিস্থিতির সৃষ্টি করে। এতে গাত্রদাহ ও অন্যান্য সমস্যা দেখা দেয়। ধীরে ধীরে তা কোষ্ঠকাঠিন্যে রূপ নেয়। এহেন পরিস্থিতি থেকে মুক্তি পেতে কি করবেন? আস্থা রাখুন ঘরোয়া টোটকায়। 

লেবু শরবত

চোয়া ঢেঁকুর এলে হালকা গরম পানিতে লেবুর রস চিপে গুলিয়ে নিন। খালি পেটে সেই শরবত খেয়ে নিন তাতে উপকার পাবেন। লেবুর প্রভাবে পেটের বাড়তি অ্যাসিডের প্রভাব খানিকটা কমবে।

লেবুর প্রভাবে পেটের বাড়তি অ্যাসিডের প্রভাব কমে

মৌরি ভেজানো পানি

আগের দিন এই সমস্যা দেখা দিলে একটি বাটিতে সারারাত এক চামচ মৌরি পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। সকালে উঠে পানি ছেঁকে নিন। তারপর পান করুন। এই পদ্ধতিটি গর্ভবতী মায়েদের উপকারে আসে।

মাঠা বা লাবাং

টক দই এনে তাতে লবণ আর চিনি মিশিয়ে ঘরেই বানিয়ে নিতে পারেন লাবাং কিংবা মাঠা। মূলত টক দইয়ে থাকা ল্যাকটিক অ্যাসিড দেহে বাড়তি এসিডের হাত থেকে পরিত্রাণ পেতে সাহায্য করে।

ক্যালসিয়াম পেটে অ্যাসিড হতে বাধা দেয়

ঠাণ্ডা দুধ

দুধে প্রচুর ক্যালসিয়াম থাকে। এই ক্যালসিয়াম পেটে অ্যাসিড হতে বাধা দেয়। তাই পেটে গ্যাস অ্যাসিড হলেই ঠাণ্ডা দুধ খেয়ে নিন। তবে দুধে চিনি মেশাবেন না। অনেকে বলেন ঠাণ্ডা দুধে এক চামচ ঘি মিশিয়ে নিলে আরো উপকার দেয়।

আদার ক্যান্ডি

হজমশক্তি বাড়ানোর ক্ষেত্রে আদার জুড়ি মেলা ভার। আপনি চাইলে আদা টুকরো টুকরো করে খেতে পারেন। অথবা আদা বেটে তালগুড়ের ছোট একটা টুকরোর সাথে মিশিয়ে নিন। সেই ক্যান্ডি মুখে রেখে চুষে খান। তাতেও অ্যাসিডের ঝামেলা থেকে মুক্তি পাবেন। 

ইত্তেফাক/আরএম

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন