বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৩ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

বিশ্বজুড়ে ‘জাতীয় শোক দিবস’ পালিত

আপডেট : ১৬ আগস্ট ২০২২, ২১:৩৩

আজ ১৫ আগস্ট, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস। শ্রদ্ধা ও যথাযথ মর্যাদার সঙ্গে দিবসটি পালিত হয়েছে বিশ্বজুড়ে। বাংলাদেশ ছাড়াও বিভিন্ন দেশে অবস্থিত হাইকমিশনগুলো এ উপলক্ষে পালন করেছে নানা কর্মসূচি।

নয়াদিল্লী, ভারত

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন করেছে ভারতের নয়াদিল্লিস্থ বাংলাদেশ হাই কমিশন। এদিন সকালে প্রথমেই দূতাবাস কার্যালয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন দূতাবাসের মান্যবর হাই কমিশনার মোহাম্মদ ইমরান। জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণের পর দূতাবাস কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পন করেন হাই কমিশনার মোহাম্মদ ইমরান। এ সময়ে দূতাবাসের কর্মকর্তাগণ/কর্মচারীবৃন্দ ও ষ্টাফদ্বয় উপস্থিত ছিলেন। বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পন শেষে দূতাবাসের বঙ্গবন্ধু হল মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধুর ৪৭তম শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। হাই কমিশনার মোহাম্মদ ইমরানের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ নেন মিনিস্টার (প্রেস) শাবান মাহমুদ।

ক্যানবেরা, অস্ট্রেলিয়ায়

অস্ট্রেলিয়ার রাজধানী ক্যানবেরায় আজ স্বাধীনতার মহান স্থপতি শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদৎবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। জাতির পিতার প্রতিকৃতিতেপুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদন করেন হাইকমিশনার মোহাম্মদ সুফিউর রহমান ও তার সহধর্মিনী সামসিয়া রহমানসহ উপস্থিত প্রবাসী বাংলাদেশি ও হাইকমিশনের সদস্যবৃন্দ । এসময় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের শহীদ সদস্যদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। সকালে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণের মধ্যে দিয়ে শোকদিবসের কর্মসূচি শুরু হয়। এছাড়া জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী কর্তৃক প্রদত্ত বাণী পাঠ করা হয়।

ব্যাংকক, থাইল্যান্ড

যথাযোগ্য মর্যাদায় স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদত বার্ষিকীপালন করেছে বাংলাদেশ দূতাবাস, ব্যাংকক। অনুষ্ঠানের শুরুতে মান্যবর রাষ্ট্রদূত কর্তৃক আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের অন্যান্য শহীদ সদস্য ও শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে ১ মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। অনুষ্ঠানে দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী ও প্রবাসী বাংলাদেশি কমিউনিটির গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

রিয়াদ, সৌদি আরব

যথাযথ মর্যাদা ও বিনম্র শ্রদ্ধায় সৌদি আরবের রিয়াদস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। এদিন সকালে দূতাবাস প্রাঙ্গণে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করেন সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বিপিএম (বার)। এরপর দূতাবাসে স্থাপিত জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুস্পার্ঘ্য অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন রাষ্ট্রদূত ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী। এ সময় দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা, কর্মচারীগণ উপস্থিত ছিলেন। রিয়াদস্থ বাংলাদেশি অভিবাসীদের বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়।

কাঠমান্ডু, নেপাল

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদাৎ বার্ষিকী এবং জাতীয় শোক দিবস বিনম্র শ্রদ্ধায় ও যথাযথ ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে পালন করেছে কাঠমান্ডুস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস। সকালে দূতাবাস প্রাঙ্গণে রাষ্ট্রদূত সালাহউদ্দিন নোমান চৌধুরী কর্তৃক জাতীয় পতাকা আনুষ্ঠানিকভাবে অর্ধনমিতকরণের মধ্য দিয়ে শোক দিবসের কর্মসূচি শুরু হয়। এরপর জাতির পিতা ও ১৫ আগস্টের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। দূতাবাস প্রাঙ্গনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন রাষ্ট্রদূত সালাহউদ্দিন নোমান চৌধুরী এবং দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী ও পরিবারের সদস্যবৃন্দ।

রোম, ইতালি 

যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে ইতালির রোমে বাংলাদেশ দূতাবাসে, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয়। ইতালি, মন্টেনিগ্রো ও সার্বিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. শামীম আহসান তার বক্তব্যে বঙ্গবন্ধুর প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন এবং বাঙালির প্রতিটি ন্যায়সঙ্গত আন্দোলনে তার অবিস্মরণীয় ভূমিকার কথা তুলে ধরেন। অনুষ্ঠানে দূতাবাসের প্রথম সচিব আসিফ আনাম সিদ্দিকী এবং দ্বিতীয় সচিব জনাব মো. আশফাকুর রহমান অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন। অনুষ্ঠানে দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারী ছাড়াও বীর মুক্তিযোদ্ধা, বিপুল সংখ্যক রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং গণমাধ্যম কর্মীরা অংশগ্রহণ করেন।

ম্যানিলা, ফিলিপাইন

বিনম্র শ্রদ্ধা ও যথাযথ মর্যাদায় নানান কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদাত বার্ষিকী এবং জাতীয় শোক দিবস ২০২২ পালন করেছে ম্যানিলাস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস। সোমবার জাতীয় পতাকা আনুষ্ঠানিকভাবে অর্ধনমিতকরণের মধ্য দিয়ে জাতীয় শোক দিবসের কার্যক্রম শুরু হয়। এরপর পবিত্র ধর্মগ্রন্থ থেকে পাঠের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের ২য় পর্বের সূচনা হয়। অত:পর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবসহ পঁচাত্তরের ১৫ আগস্টের সকল শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের উদ্দেশ্যে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এরপর রাষ্ট্রদূত এফ. এম. বোরহান উদ্দিনের নেতৃত্বে উপস্থিত সুধীবৃন্দ জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে জাতির পিতার স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানান। পরে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী প্রদত্ত বাণী পাঠ করেন দূতাবাস কর্মকর্তাবৃন্দ।

সিঙ্গাপুর

বিনম্র শ্রদ্ধায় সিঙ্গাপুরে পালিত হলো জাতীয় শোকদিবস’ ২০২২। এ উপলক্ষ্যে আজ সকালে বাংলাদেশ হাইকমিশনে এক বিশেষ অনুষ্ঠান আয়োজন করে। হাইকমিশনের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং সিঙ্গাপুরে প্রবাসী বাংলাদেশী কমিউনিটির সদস্যবৃন্দ এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন।সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশের হাইকমিশনার মো. তৌহিদুল ইসলাম, এনডিসি জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও অর্ধ্বনমিতকরণের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা করেন। এসময়ে বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত পরিবেশিত হয়। অতঃপর হাইকমিশনারের নের্তৃত্বে মিশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ এবং আমন্ত্রিত অতিথিবর্গ জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণের মাধ্যমে নিজেদের গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। জাতির পিতাসহ সেই কালরাতের সকল শহিদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়, ১৫ আগস্টের শহিদদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে করা হয় বিশেষ মোনাজাত।

হ্যানয়, ভিয়েতনাম

জাতীয় শোক দিবস ২০২২ এবং স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ৪৭-তম শাহাদাত বার্ষিকী বাংলাদেশ দূতাবাস, হ্যানয়, ভিয়েতনাম-এ যথাযোগ্য মর্যাদায় এবং ভাব  গম্ভীর পরিবেশে স্মরণ করা হয়। দিবসটি স্মরণ ও পালন উপলক্ষে জাতীয় পতাকার আনুষ্ঠানিক উত্তোলন ও অর্ধনমিতকরণ, দোয়া ও প্রার্থনা, এক মিনিট নিরবতা পালন, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করা হয়।

ভিয়েতনাম-এ নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সামিনা নাজ দূতাবাস প্রাঙ্গনে সকালে জাতীয় সঙ্গীত সহকারে জাতীয় পতাকা আনুষ্ঠানিকভাবে উত্তোলন এবং অর্ধনমিতকরণের মাধ্যমে জাতীয় শোক দিবসের কর্মসূচির সূচনা করেন। এর পরেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং তার পরিবারের শহীদ সদস্যগণসহ অন্যান্য শহীদদের রূহের মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া ও প্রার্থনা করা করা হয়। 

কুনমিং, চীন

কুনমিং চীনে আজ সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদতবার্ষিকী এবং জাতীয় শোক দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করেছে বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল।

এ উপলক্ষে  জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করা হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে যথাযথ শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করা হয়। আলোচনা সভায় কনসাল জেনারেল এ এফ এম আমিনুল ইসলাম বঙ্গবন্ধুর প্রতি যথাযথ শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন বাঙালি জাতির স্বপ্নদ্রষ্টা এবং মহান স্বাধীনতার রূপকার। বঙ্গবন্ধু বাঙালি জাতির মুক্তি ও অধিকার আদায়ে পরিচালিত প্রতিটি গণতান্ত্রিক ও স্বাধিকার আন্দোলনে  নেতৃত্ব দেন। বাঙালির অধিকারের প্রশ্নে বঙ্গবন্ধু ছিলেন আপোসহীন।



এদিন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের শাহাদাতবরণকারী সদস্যগনসহ ১৫ আগস্ট কালরাতে শাহাদাতবরনকারী সকল শহিদদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

সুইডেন
     
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদত বার্ষিকী এবং জাতীয় শোক দিবস ২০২২ বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে যথাযথ মর্যাদায় সুইডেনস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসে পালিত হয়েছে। দিনের শুরুতে দূতাবাস প্রাঙ্গণে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করা হয়। বিকেলে দিবসটি উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানের শুরুতে প্রথমে পবিত্র ধর্মগ্রন্থসমূহ থেকে পাঠ করা হয়। এরপর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবসহ পঁচাত্তরের ১৫ আগস্টে শাহাদাতবরণকারী সকল শহিদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদনের উদ্দেশ্যে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এরপর রাষ্ট্রদূত জনাব মেহ্‌দী হাসান-এর নেতৃত্বে উপস্থিত সুধীবৃন্দ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

দূতাবাস কর্তৃক গৃহীত বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যে ছিল জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা, জাতির পিতা ও তাঁর  পরিবারের শহিদ সদস্যবর্গের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন, তাঁর জীবন, আদর্শ ও কর্মের ওপর উন্মুক্ত আলোচনা সভা, প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শনী এবং বিশেষ দোয়া ও মোনাজাতের আয়োজন। এ অনুষ্ঠানে দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী ও পরিবারবর্গ এবং কমিউনিটি সদস্যবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।

নিউইয়র্ক, যুক্তরাষ্ট্র

“জাতির পিতার আদর্শ ধারণ করে তরুন সমাজ বাংলাদেশকে এগিয়ে নিবে, আজকের দিনে এই হোক আমাদের প্রত্যয়” শ্লোগানে জাতীয় শোক দিবস ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদত বার্ষিকী পালন করেছে নিউইয়র্কস্থ জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। উল্লেখ্য তিনি সরকারি সফরে নিউইয়র্ক অবস্থান করছেন।

স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাতটায় মিশনস্থ বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে যথাযোগ্য মর্যাদায় ও অত্যন্ত ভাবগম্ভীর পরিবেশে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাৎ বার্ষিকী এবং জাতীয় শোক দিবস পালন অনুষ্ঠান আয়োজন করে জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন। এতে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠন, মুক্তিযোদ্ধাগণ, এবং যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার বিপুল সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশি অংশগ্রহণ করেন। জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা ও জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মাধ্যমে শুরু হয় দিবসটির কর্মসূচি। এরপর জাতির পিতা, বঙ্গমাতা এবং তাঁদের শহীদ পরিবারবর্গসহ ১৫ আগস্টের সকল শহীদদের বিদেহী আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দাঁড়িয়ে একমিনিট নিরবতা পালন করা হয়। বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে রক্ষিত জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পনের মাধ্যমে শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপন করেন জাতীয় সংসদের স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। এসময় স্পীকারের সাথে ছিলেন জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ আব্দুল মুহিতসহ মিশনের সর্বস্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারিগণ।

লন্ডন, যুক্তরাজ্য

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন করেছে বাংলাদেশ হাই কমিশন, লন্ডন। দিবসটি উপলক্ষে এদিন সকালে হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনীম হাইকমিশন প্রাঙ্গণে মিশনের কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের নিয়ে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করেন। এরপর জাতির পিতাসহ ১৫ আগস্টের শহীদদের স্মরণে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ ও জাতির পিতার ও তাঁর পরিবারের শহীদ সদস্যদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন এবং তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

অনুষ্ঠানের শুরুতে বঙ্গবন্ধু ও ১৫ আগস্টের শহীদদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। পরে পবিত্র কোরান, গীতা, ত্রিপিটক ও বাইবেল থেকে পাঠ করা হয়। হাইকমিশনার অতিথিবৃন্দ এবং মিশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নিয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এরপর তিনি অতিথিদের নিয়ে বাংলাদেশ হাইকমিশন, লন্ডনের স্মারক প্রকাশনা "বঙ্গবন্ধু-দ্য ফ্রেন্ড অব বেঙ্গল"-এর মোড়ক উন্মোচন করেন।

যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনিম সোমবার রয়্যাল বা’রা অব কেনজিংটনের একটি হোটেলে আয়োজিত এই হাই-প্রোফাইল অনুষ্ঠানে স্মারক বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন এশিয়া ও প্যাসিফিক বিষয়ক শ্যাডো মন্ত্রী ক্যাথরিন ওয়েস্ট এমপি এবং অল পার্টি পার্লামেন্টারি গ্রুপ অন বাংলাদেশের ভাইস চেয়ার লর্ড শেখ । অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্বপক্ষে গঠিত স্টুডেন্ট একশন কমিটির অন্যতম সদস্য সৈয়দ মোজাম্মেল আলী।

ওয়াশিংটন ডিসি, যুক্তরাষ্ট্র

জাতীয় শোক দিবস ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদত বার্ষিকী পালন করেছে ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস। এ উপলক্ষে যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. শহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন নর্থ ক্যারোলিনা সেন্ট্রাল ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক ড. এবিএম নাসির।

এদিনের অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে ছিল রাষ্ট্রদূত কর্তৃক জাতির পিতার আবক্ষ মূর্তিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, বঙ্গবন্ধু  ও ১৫ আগস্টের অন্যান্য শহিদদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা প্রদর্শন করে এক মিনিট নিরবতা পালন এবং  বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্মের ওপর একটি আলোকচিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন। ১৭ দিনব্যাপী আলোকচিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানি বিষয়ক উপদেষ্টা।

পোল্যান্ড

পোল্যান্ডে বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্দ্যোগে স্বাধীনতার মহান স্থপতি বাংলাদেশিদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাৎ বার্ষিকী এবং জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলওয়াত করা হয়। এরপর অন্নান্য ধর্মগ্রন্থ থেকেও পাঠ করা হয়। 

আলোচনা অনুষ্ঠানের সঞ্চালনা করেন দূতাবাসের কর্মকর্তা কামিল। এরপর বক্তব্য রাখেন দূতাবাসের পক্ষ থেকে আশা। তিনি বঙ্গবন্ধুর বর্ণাঢ্য জীবন তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে সূচনা বক্তব্য রাখেন শেখ এরশাদুর রহমান। এছাড়া বক্তব্য রাখেন আওয়ামীলীগ নেত্রী তানিয়া আফরিন এবং সাবেক ছাত্রলীগ নেতা পোল্যান্ড বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পক্ষে মোহাম্মদ মুনিরুজ্জামান। 

মাদ্রিদ, স্পেন 

জাতীয় শোক দিবস ও স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদত বার্ষিকী যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে পালন করেছে মাদ্রিদস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস। 

জাতীয় শোক দিবসের প্রধান কর্মসূচীর মধ্যে ছিল জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ, আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ। রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ সারওয়ার মাহমুদ, এনডিসি-এর নেতৃত্বে দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী, বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধি, সাংবাদিক প্রতিনিধি ও প্রবাসী বাংলাদেশীদের উপস্থিতিতে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করার মধ্য দিয়ে দিনের কর্মসূচী শুরু হয়। এরপর অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী, বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিবৃন্দ, সাংবাদিক প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা সভা শেষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৫ আগস্টে শাহাদাৎ বরণকারী ব্যক্তিবর্গ, জাতীয় চার নেতা, এবং বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে সকল শহীদের রূহের মাগফিরাত এবং দেশ ও জাতির উন্নতি ও সমৃদ্ধি কামনায় মোনাজাত করা হয়। সভা শেষে উপস্থিত অতিথিবৃন্দকে দুপুরের খাবারে আপ্যায়ন করা হয়।

বাগদাদ, ইরাক

স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন করেছে বাংলাদেশ দূতাবাস, বাগদাদ। দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ ও তাদের পরিবারের সদস্যবর্গ এবং ইরাকস্থ প্রবাসীদের অংশগ্রহণে দিবসটি পালন করা হয়। 

অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে সকাল ৮টায় দূতাবাসে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ করা হয় এবং উপস্থতি সবাইকে নিয়ে রাষ্ট্রদূত মো. ফজলুল বারী জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুস্পার্ঘ্য অর্পণ করেন। সকাল ১১টায় দূতাবাসে আগত সকলের কালো ব্যাজ ধারণ করে দূতাবাস প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠানস্থলে আসন গ্রহণ করনে। এরপরই, পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করা হয়। এরপর ১৫ আগস্ট ১৯৭৫-এ শহীদ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের সকলের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয় । 

১৫ আগস্ট নির্মম হত্যাকাণ্ডের শিকার বঙ্গবন্ধু, বঙ্গবন্ধুর পরিবারের সদস্যসহ সকল শহীদের আত্মার মাগফেরাত ও দেশের অগ্রগতি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা এবং ইরাকস্থ সকল প্রবাসীদের নিরাপদ জীবন কামনায় দোয়া ও মোনাজাত করে উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করা হয়।

ইত্তেফাক/জেডএইচডি