শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

সুস্থ থাকতে খান ভাত

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১:১৩

বাঙালির পাতে ভাতের বিকল্প কোথায়? সাদা ভাতের চেয়ে সঙ্গত খাবার আর কিই বা হতে পারে। কিন্তু দেহে যেভাবে মেদের পরিমাণ বাড়ছে, সে হিসেবে ভাতকে কারাদণ্ডাদেশ দিয়ে বসেন অনেকে। বিশেষত ফিটনেস সচেতনরা প্রায়ই বলেন ভাত বাদ দিতে। চালের বাড়তি দামের কথা সামনে এনেও অনেকে ভাত এড়িয়ে চলতেই চান। কিন্তু সেসবের প্রয়োজন নেই। ভাত সহজপাচ্য ও উপকারি খাদ্য।  

ভাত বাদ দেওয়ার প্রয়োজন নেই। খাদ্যতালিকায় কিছু বদভ্যাসের কারণে মাত্রাতিরিক্ত পরিমাণে ভাত খেলে এই সমস্যা হয়। কিন্তু ভাতের কিছু ভালো গুণ আছে। সেগুলো জেনে নেওয়া দরকার: 

ভাতে থাকা অ্যামিনো এসিড পেশির বৃদ্ধিতে সহায়তা করে

লো ক্যালরি ফুড

১০০ গ্রাম ভাতে ফ্যাটের পরিমাণ মাত্র ০.৪ গ্রাম। এতে ভিটামিন ও ফাইবার আছে অনেক। এতে থাকা স্টার্চ আমাদের স্বাভাবিক মুভমেন্টে সহায়তা করে।

গ্লুটেন নেই

অনেকেই গ্লুটেন সহ্য করতে পারে না। উন্নত বিশ্বে গ্লুটেন ফ্রি নানা শর্করা থাকলেও দেশে তার দাম অনেক বেশি। আবার ঠিকঠাক পাওয়া যায় না। সেক্ষেত্রে ভাত একদম গ্লুটেনমুক্ত। উলটো ভাতে থাকা অ্যামিনো এসিড পেশির বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।

গ্যাসের সমস্যা হলেও ভাত খাওয়া যায়

গ্যাস কিংবা পেটের সমস্যাতেও ভাত খাওয়া যায়। এর মধ্যে থাকা ভিটামিন বি-১১ হার্ট এবং স্নায়ু সুস্থ রাখে। এছাড়া এর মধ্যে থাকা অ্যামিনো অ্যাসিড হার্টে রক্তসঞ্চালন বাড়ায়।

ভাত দ্রুত হজম হয় বলে দ্রুত খিদে পায়

ব্রাউন রাইস খেয়ে দেখুন

ব্রাউন রাইস কম পালিশ করা হয়। এতে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টি সংরক্ষিত থাকে। ব্রাউন রাইসে থাকা ফাইবার, অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, ফাইটোনিউট্রিয়েন্ট, ম্যাগনেশিয়াম আছে। তা উচ্চ রক্তচাপ, স্ট্রেস, ও হার্টের সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে।

অর্থাৎ ভাত খাওয়ায় বাধা নেই। তবে পরিমিত মাত্রায় খাবেন। ওজন বেশি হলে ভাত খাবারের মাত্রায় কিছুটা কাটসাট করা যেতে পারে। এছাড়া ভাত দ্রুত হজম হয় বলে দ্রুত খিদে পায়। সেজন্যেই পরিমিত ভাত এবং অন্যান্য খাবার দিয়ে খাদ্যতালিকা পূরণ করুন।  

ইত্তেফাক/এআই

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন