বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

হরমোনের ভারসাম্য রক্ষায় খাবেন যেসব খাবার

আপডেট : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২:৪৫

ব্যস্ততার প্রভাবে ক্লান্তি, সেই ক্লান্তি থেকে হরমোনের ভারসাম্যহীনতা যেন এক সাধারণ সমস্যায় পরিণত হয়েছে। হরমোনের ভারসাম্যহীনতার কারণে শরীরে বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিতে পারে। বিশেষত নারীদের এ ব্যাপারে সবসময় সতর্ক থাকতে হবে।

হরমোনের ভারসাম্যহীনতা নিরাময়ে চিকিৎসকরা অধিকাংশ সময় বীজ জাতীয় খাবার খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। কিন্তু সব বীজ জাতীয় খাবারে তো আর সমস্যার সমাধান হবে না। চলুন জেনে নেওয়া যাক যেসব বীজ জাতীয় খাবার খেলে হরমোনের সমস্যা থেকে দূর থাকা যাবে:

হরমোনের ভারসাম্য বজায় রাখতে তিল খেতে পারেন

তিল

হরমোনের ভারসাম্য বজায় রাখতে তিল খেতে পারেন। তিলে ক্যালসিয়াম, আয়রন এবং প্রচুর পরিমাণে ফাইবার থাকায় অন্যান্য শারীরিক উন্নতিও দৃশ্যমান হবে। তবে খালি তিল কখনো খাওয়া উচিত নয়। প্রয়োজনে শাকসবজি, চাটনি, কিংবা লাড্ডুতে এই বীজ মিশিয়ে নিন।

সূর্যমুখী বীজ

ভিটামিন ই ও সেলেনিয়ামের প্রধান উৎস হিসেবে সূর্যমুখী বীজের কদর বেশ। মূলত এই বীজ দেহে প্রোজেস্টেরণ হরমোন বাড়াতে সাহায্য করে। এই বীজ খেতে  হলে আপনি দইয়ের সাথে মিশিয়ে খেতে পারেন। আবার পানিতে ভিজিয়ে কিংবা ফলের সঙ্গেও খাওয়া যেতে পারে।

ভিটামিন ই ও সেলেনিয়ামের প্রধান উৎস হিসেবে সূর্যমুখী বীজের কদর বেশ

কুমড়ো বীজ

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে এমনিতেও কুমড়ো বীজ জনপ্রিয়। কিন্তু কুমড়ো বীজে ওমেগা থ্রি, জিঙ্ক ও ম্যাগনেশিয়াম প্রচুর পরিমাণে থাকায় হরমোনের ভারসাম্যহীনতা দূর করতে সাহায্য করে।

ওপরের এই তিন ধরণের বীজ জাতীয় খাদ্য খেলে হরমোনের ভারসাম্যহীনতা দূর করতে পারবেন। যেকোনো একটি খেলেও চলে। তবে ক্ষেত্রবিশেষে একেক সময় একেক ধরণের বীজ খেয়ে বৈচিত্র্য ধরে রাখা ভালো অভ্যাস। 

ইত্তেফাক/এআই

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন