বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

মৌলিক মানবিক চাহিদা নিশ্চিত করতে হবে

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০০:১০

সমাজে বসবাসরত মানুষমাত্রই মূলত দুটি সত্তার অধিকারী। প্রথমত, জীবসত্তা; অর্থাৎ জীব হিসেবে মানুষ এবং দ্বিতীয়ত, মানবসত্তা অর্থাৎ মানুষ হিসেবে মানুষ। প্রাণী হিসেবে মানুষের বৃদ্ধি ও বিকাশ, অস্তিত্ব রক্ষা ও বেঁচে থাকার জন্য খাদ্য, ঘুম, যৌন প্রবৃত্তি ইত্যাদি জৈবিক চাহিদাগুলো প্রয়োজন। কিন্তু মানুষের দ্বিতীয় অনন্য সত্তা; অর্থাৎ মানবসত্তা বা মানুষ হিসেবে তার চাহিদাসমূহ; যেমন :বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, চিত্তবিনোদন ইত্যাদি এবং কিছু মানবিকতা; যেমন : স্নেহ, ভালোবাসা, নিরাপত্তা ইত্যাদি একান্ত প্রয়োজন। এসব প্রয়োজন বা চাহিদাসমূহ মানুষকে শারীরিক, মানসিক ও সামাজিক জীবনে উৎকর্ষসাধনে সহায়তা করে।

বাংলাদেশের সংবিধানের দ্বিতীয় ভাগের ১৫ (ক, গ ও ঘ) ধারা অনুযায়ী—অন্ন, বস্ত্র, আশ্রয়, শিক্ষা, চিকিৎসা, চিত্তবিনোদন এবং সামাজিক নিরাপত্তা—এই সাতটি চাহিদাকে মৌলিক মানবিক চাহিদা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে। মৌল মানবিক চাহিদার প্রধান বৈশিষ্ট্য হলো মানবজীবনে এগুলোর পরিপূরণ অবশ্যই অপরিহার্য। তাই স্বাভাবিক উপায়ে এসব চাহিদা পূরণ না করতে পারলে মানুষ অস্বাভাবিক ও অবৈধ উপায়ে হলেও সেগুলো পূরণের চেষ্টা করে থাকে। যেমন :কারো খাবার না থাকলে এবং স্বাভাবিকভাবে খাদ্য জোগাড় করতে না পারলে, সে অস্বাভাবিক উপায়ে (যেমন :ভিক্ষা করা, চুরি করা, মিথ্যা বলা, সন্ত্রাসী কার্যকলাপ ইত্যাদি) হলেও খাবার জোগাড়ের চেষ্টা করে। আর যারা এসব করতে পারে না, তারা অর্ধাহারে, অনাহারে অপুষ্টি ও অসুস্থতার শিকার হয়। এ বাস্তবতার পরিপ্রেক্ষিতে সমাজ গবেষকগণ মৌল মানসিক চাহিদা পূরণের ব্যর্থতাকে সামাজিক সমস্যার মৌলিক উৎস বা কারণ হিসেবে চিহ্নিত করেছেন। 

মৌলিক মানবিক চাহিদা পূরণের ব্যর্থতা থেকে সৃষ্ট সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য মানবিক সমস্যা হলো অপুষ্টি বা পুষ্টিহীনতা। খাবারের ছয়টি পুষ্টি উপাদানের (আমিষ, শর্করা, স্নেহপদার্থ, খনিজ পদার্থ, ভিটামিন ও পানি) যে কোনো একটি খাদ্যতালিকায় পর্যাপ্ত পরিমাণে না থাকলে পুষ্টি প্রক্রিয়া ব্যাহত হয়ে অপুষ্টি দেখা দেয়। এর শিকার মূলত শিশু ও নারী। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর ২০১৩-এর পরিসংখ্যান পকেট বুকে উপস্থাপিত তথ্যানুযায়ী, বাংলাদেশে মাত্র ১১ দশমিক ৫ শতাংশ শিশু স্বাভাবিক এবং প্রায় ৮৯ শতাংশ শিশু কোনো না কোনো পর্যায়ে অপুষ্টির শিকার হচ্ছে। বাংলাদেশে মৌলিক চাহিদা পূরণের ব্যর্থতা থেকে সৃষ্ট অন্যতম সমস্যা হলো স্বাস্থ্যহীনতা। অন্যদিকে স্বাস্থ্য রক্ষার অপরিহার্য উপাদান হলো স্বাস্থ্যসম্মত বাসস্থান এবং বস্ত্রের ব্যবহার। কিন্তু বস্ত্রের চাহিদা পূরণের জন্য বিদেশ থেকে আমদানিকৃত পুরোনো কাপড় জনস্বাস্থ্যের প্রতি হুমকির সৃষ্টি করছে। এছাড়া বাসস্থানের অভাবে বাংলাদেশে বস্তির সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। বস্তির নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ সংক্রামক ব্যাধির উর্বর ক্ষেত্র। জরাজীর্ণ অস্বাস্থ্যকর গৃহ ও বস্তির নোংরা পরিবেশ স্বাস্থ্যহীনতার প্রধান কারণ হিসেবে ভূমিকা পালন করে। চিকিৎসা সুযোগ-সুবিধার অভাবে গ্রামবাংলার বৃহত্তর দরিদ্র জনগোষ্ঠী স্বাস্থ্যহীনতার শিকার। শহরকেন্দ্রিক ব্যয়বহুল চিকিৎসার সুযোগ থেকে দেশের বৃহত্তর দরিদ্র জনগোষ্ঠী বঞ্চিত। চিত্তবিনোদন অন্যতম মৌলিক মানবিক চাহিদা। নির্মল ও গঠনমূলক চিত্তবিনোদনের অভাবে বাংলাদেশের মানুষের মধ্যে মানসিক অবসাদগ্রস্ততা, হতাশা, দৈহিক দুর্বলতা প্রভৃতি রোগ সৃষ্টি হচ্ছে।

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানে বর্ণিত ১৫ ধারা অনুযায়ী রাষ্ট্রের অন্যতম মৌলিক দায়িত্ব হলো পরিকল্পিত অর্থনৈতিক বিকাশের মাধ্যমে উৎপাদন শক্তির ক্রমবৃদ্ধি সাধন এবং জনগণের জীবনযাত্রার বস্তুগত ও সংস্কৃতিগত মানের দৃঢ় উন্নতি সাধন, যাতে নাগরিকদের অন্ন, বস্ত্র, আশ্রয়, শিক্ষা, চিকিৎসা এবং যুক্তিসংগত অবকাশের অধিকার অর্জন নিশ্চিত হয়। অতএব, মানুষের এসব মৌলিক অধিকার আগে নিশ্চিত করতে হবে।
লেখক : শিক্ষার্থী, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা

ইত্তেফাক/ইআ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন