সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

'লার্ন উইথ সুমিত'

আপডেট : ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০২:০৯

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী সুমিত সাহা। বাবা-মা চেয়েছিলেন সুমিত ডাক্তার হবেন। কিন্তু  সুমিতের ইচ্ছা কম্পিউটার প্রকৌশলী হওয়ার। ২০০৪ সালে ভর্তিও হয়েছিলেন দেশের সর্বোচ্চ প্রকৌশল বিদ্যাপীঠে। কিন্তু কিছুদিন পরই বুঝতে পারলেন—এ জগতটা অন্য আর চারটি প্রকৌশল বিভাগ থেকে আলাদা।

সুমিত বুঝতে পারেন, এখানে দক্ষতার কোনো বিকল্প নেই। আর দক্ষতা অর্জন করতে প্রয়োজন প্রচুর পরিমাণে আত্মচর্চা; কারিকুলামের বাইরে গিয়ে বিশেষ বিশেষ বিষয়ে পারদর্শিতা অর্জনের আগ্রহ। তবে সমস্যা হলো সেসব বিষয়ের রিসোর্সের অভাব। বিশেষ করে সেই সময়ে ইন্টারনেটে কম্পিউটার প্রকৌশল বিদ্যার বাংলা কনটেন্টের তেমন প্রাচুর্যতা ছিল। তাই নির্ভর করতে হতো ক্লাস লেকচারেই।

কিন্তু সংক্ষিপ্ত সময় ও ব্যবহারিক শিক্ষার সীমাবদ্ধতার কারণে লেকচার বুঝতে বেগ পেতে হতো। এমনসব পরিস্থিতি দেখে সুমিত ভাবলেন, কম্পিউটার প্রকৌশলের শিক্ষার্থী ও যারা এ বিষয়ে আগ্রহী তাদের জন্য প্রয়োজন একটি কমিউনিটি; যেখানে নবীনরা অভিজ্ঞতা ও পরামর্শ নিতে পারবেন অভিজ্ঞ ও সিনিয়রদের নিকট থেকে। সেই চিন্তা থেকে ২০২০ সালে তিনি প্রতিষ্ঠা করেন ‘লার্ন উইথ সুমিত’ নামে একটি প্রোগ্রামিং ও ওয়েব ডেভেলপমেন্ট ভিত্তিক কমিউনিটি।

কম্পিউটার প্রোগ্রামিং-এর নিয়মিত প্রশিক্ষণ ও পরামর্শ প্রদানের মাধ্যমে দক্ষ জনগোষ্ঠী গঠনে অবদান রেখে যাচ্ছে তার এ কমিউনিটি।

এ বিষয়ে ইত্তেফাক প্রজন্মকে সুমিত বলেন, ‘বুয়েটে ভর্তির আগে আমার কম্পিউটার নিয়ে ভালো নলেজ ছিল না। তাই প্রথমদিকে খুব সাফার করতে হয়েছে। হলে ইন্টারনেট কানেকশন ভালো ছিল না। তাছাড়া ইন্টারনেটে তেমন কোনো রিসোর্সও ছিল না সেলফ লার্নিংয়ের জন্য। তাই শিক্ষকদের সাথে তাল মিলিয়ে ওঠা ছিল খুব কষ্টকর। এখন চেষ্টা করছি আমাকে যে চ্যালেঞ্জগুলো ফেস করতে হয়েছে, সেগুলো যেন অন্যদের পোহাতে না হয়। যেহেতু প্রোগ্রামিং ব্যাপারটাই একটু কমপ্লেক্স, তাই চেষ্টা করি পুরো ব্যাপারটা একটু সহজভাবে তুলে ধরার—যেন নতুনরা প্রথমেই আগ্রহ হারিয়ে না ফেলে।’

বর্তমানে সুমিতের প্লাটফর্মে প্রায় ৩৫০ প্রোগ্রামিং রিলেটেড ভিডিও টিউটোরিয়াল রয়েছে। যেখানে প্রোগ্রামিংয়ের জটিল বিষয়গুলো উপস্থাপন করা হয়েছে অত্যন্ত সহজ-সরল ও সাবলীল ভাষায়।

ইত্তেফাক/এসটিএম