সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

মানসিক সুস্বাস্থ্যে আয়ুর্বেদ 

আপডেট : ২২ নভেম্বর ২০২২, ১৯:৫৭

মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বাড়ানোর জন্য বাড়তি মনোযোগ প্রয়োজন। এক্ষেত্রে নির্ধারিত ওষুধ না থাকলেও মেডিক্যাল কন্ডিশন ঠিকই আছে। তবে চাইলে আয়ুর্বেদিক নির্দেশনার মাধ্যমে মস্তিষ্কে শান দেওয়া যায়। সেটি কিভাবে আসুন জেনে নেওয়া যাক: 

বাদাম ও কিছু আয়ুর্বেদিক উপাদান
হাজার বছর ধরে আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে বাদামের কথা বলা হচ্ছে। মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বাড়াতে প্রতিদিন খাদ্যতালিকায় কিছু বাদাম রাখা জরুরি। এক্ষেত্রে আখরোট, ভেজানো কাঠবাদাম, কিশমিশ, ঘি, অলিভ অয়েল ও খেজুর রাখতে পারেন। তাছাড়া মসুর ডাল, শিম ও পনিরও মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বাড়ায়।

মশলা
আয়ুর্বেদ শাস্ত্র অনুসারে জিরা আমাদের মস্তিষ্কের ভেতরের 'চ্যানেল' খুলে দিতে পারে। অন্যদিকে কালো গোলমরিচ মগজে মেধাশক্তির জোগান দেয়।

ভেষজ উপাদান
থানকুনি, অশ্বগন্ধা পাতা স্মৃতিবর্ধক হিসেবে উপকারি। শহরে এসব ভেষজ পাওয়া একটু কঠিন হলেও অসম্ভব কিছু নয়।

অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ খাবার
মস্তিষ্কে নির্বিঘ্নে অক্সিজেন সরবরাহের ব্যবস্থা রাখতে হয়। অপরদিকে মস্তিষ্কে অক্সিডেটিভ স্ট্রেস হতে পারে। সেক্ষেত্রে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ খাবার খেতে হবে। শীতে এমন অনেক সবজি পাওয়া যাবে যেগুলোতে প্রচুর অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট পাওয়া যাবে।

চা
শুনতে অবাক লাগলেও, মগজে পানিশূণ্যতা হতে পারে। আয়ুর্বেদ শাস্ত্র বলে হিং, হলুদ, আজওয়ান, তুলসী চা নিয়মিত পান করলে মস্তিষ্কের পানিশূণ্যতা দূর হয়। 

ইত্তেফাক/আরএম

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন