বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

প্রশান্ত মহাসাগরে ভাসমান ৩২০০ কেজি কোকেন উদ্ধার

আপডেট : ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২০:৫৬

নিউজিল্যান্ড কর্তৃপক্ষ সমুদ্রে ভাসমান ৩.২ টন বা ৩২০০ কেজি কোকেন উদ্ধার করেছে। ধারণা করা হচ্ছে, বিপুল পরিমাণ কোকেন অস্ট্রেলিয়ায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। উদ্ধারকৃত কোকেনের বাজারমূল্য ৩০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বেশি। গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, নিউজিল্যান্ডের উত্তর-পশ্চিম উপকূল থেকে শত শত কিলোমিটার দূরে প্রশান্ত মহাসাগরে ৮১টি বেল কোকেন ভাসতে দেখা গেছে। নিউজিল্যান্ড কাস্টমস সার্ভিস ও ফাইভ আইস অ্যালায়েন্সের যৌথ অভিযানে এগুলো উদ্ধার করা হয়।

নিউজিল্যান্ড কর্তৃপক্ষ সমুদ্রে ভাসমান ৩.২ টন বা ৩২০০ কেজি কোকেন উদ্ধার করেছে।

নিউজিল্যান্ড ছাড়াও ফাইভ আইস অ্যালায়েন্সের বাকি সদস্যরা হলো অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও যুক্তরাজ্য। নিউজিল্যান্ডের পুলিশ কমিশনার অ্যান্ড্রু কস্টার জানিয়েছেন, এটি কিছু সময়ের মধ্যে নিউজিল্যান্ডের সবচেয়ে বড় অবৈধ মাদক উদ্ধারের ঘটনা।।

কর্মকর্তারা মনে করেন, প্রশান্ত মহাসাগরের একটি 'ভাসমান ট্রানজিট পয়েন্টে' কোকেনটি ফেলে দেওয়া হয়েছিল। সেখান থেকে মাদকগুলো অস্ট্রেলিয়ায় নিয়ে যাওয়ার কথা ছিল।

নিউজিল্যান্ড ছাড়াও ফাইভ আইস অ্যালায়েন্সের বাকি সদস্যরা হলো অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও যুক্তরাজ্য।

কস্টার বলেন, 'আমরা মনে করি কোকেন অস্ট্রেলিয়ায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। এগুলো দিয়ে সেখানে এক বছর বাজার পরিচালনা করা যেত। এবং যদি নিউজিল্যান্ডে ব্যবহার করা হয় তবে এতে ৩০ বছরেরও বেশি সময় লাগতো।

পুলিশের তরফে প্রকাশিত একটি ছবিতে জব্দ করা কোকেন জাল দিয়ে বাঁধা এবং তার সঙ্গে হলুদ রঙের ফ্লোট জড়ানো। কিছু প্যাকেটের গায়ে ব্যাটম্যানের লোগো ছিল এবং প্যাকেটগুলোতে চার পাতার ক্লোভার ছিল। কোস্টার উল্লেখ করেছেন, এটি নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া উভয়ের জন্য একটি বিশাল ঘটনা। 

পুলিশের তরফে প্রকাশিত একটি ছবিতে জব্দ করা কোকেন জাল দিয়ে বাঁধা এবং তার সঙ্গে হলুদ রঙের ফ্লোট জড়ানো।
তার কথায়, এই ঘটনাটি যে দক্ষিণ আমেরিকার প্রযোজক থেকে শুরু করে এর পরিবেশকদের জন্য একটি বড় আর্থিক ধাক্কা তাতে কোনো সন্দেহ নেই। তবে কোকেন কোথা থেকে এসেছে তা এখনো জানা যায়নি বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি।

ইত্তেফাক/ডিএস