বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ৮ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

অবরোধে পর্যটকশূন্য বান্দরবান শহর, হোটেল-মোটেলের সব বুকিং বাতিল

আপডেট : ০৪ নভেম্বর ২০২৩, ০৫:৩৮

পর্যটন শহর বান্দরবান এখন পর্যটকশূন্য। বিএনপি জামায়াতসহ সরকারবিরোধী বিভিন্ন রাজনৈতিক দল তিন দিনের অবরোধ ঘোষণা করায় পর্যটকশূন্য হয়ে পড়েছে পর্যটন শহর বান্দরবান। মূলত বিএনপির শনিবারের মহাসমাবেশ থেকে হরতালের ঘোষণা, পরে অবরোধের কর্মসূচি দেওয়ার পর এখানকার সব বুকিং বাতিল হয়েছে। এ সময় পর্যটকে মুখরিত হওয়ার কথা থাকলেও হঠাত্ রাজনৈতিক অস্থিরতা পর্যটন মৌসুমের শুরুতেই হোটেল-মোটেল ব্যবসায় ধস নামার আশঙ্কা প্রকাশ করছেন পর্যটন ব্যবসায়ীরা। বান্দরবানে হরতাল ও অবরোধ আতঙ্কে খালি যাচ্ছে হোটেল-মোটেলের ৯০ শতাংশ কক্ষ। বান্দরবান হোটেল-মোটেল রিসোর্ট রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি অমল কান্তি দাশ ও সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম জানান, এ সময় বান্দরবানে পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড় থাকে। হোটেল-মোটেলে কোনো কক্ষই ফাঁকা থাকে না। আর এ বছর মৌসুমের শুরুতে বান্দরবানে কোনো পর্যটক নেই। হোটেলের সব কক্ষই খালি পড়ে আছে। পর্যটনের জন্য নিরাপত্তাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। দেশের পরিস্থিতি নিরাপদ না হওয়া পর্যন্ত পর্যটক আসবে না। এতে বান্দরবানের পর্যটন খাতসহ আবাসিক হোটেলগুলো ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হবে।

এমনিতেই গত দুই বছর ধরে সন্ত্রাসী সংগঠন কুকি চিন ন্যাশনাল ফ্রন্টের (কেএনএফ) এর চাঁদাবাজি, অপহরণ, খুন ও সন্ত্রাসী কার্যক্রমের কারণে জেলাটিতে ব্যবসাবাণিজ্যে ধস নেমেছে। ভ্রমণপিপাসুদের কাছে পর্যটন স্থানগুলোর মধ্যে অন্যতম আকর্ষণীয় স্থান হলো পার্বত্য চট্টগ্রামের বান্দরবান জেলা। প্রতি বছর ঈদের টানা ছুটিতে পাহাড়প্রেমীদের ভিড়ে মুখর হয়ে ওঠে পর্যটন নগরী বান্দরবান। হোটেল, মোটেল ও রিসোর্টগুলো থাকে কানায় কানায় পরিপূর্ণ। আগাম বুকিংয়ের কারণে অনেক ক্ষেত্রে হিমশিম খেতে হয় হোটেল মালিকদের। কিন্তু এ বছর সম্পূর্ণ বিপরীত চিত্র। কেএনএফের জঙ্গি কার্যক্রমের কারণে পাঁচ দিনের ছুটিতেও পর্যটকশূন্য ছিল বান্দরবান। ছাড় দিয়েও মেলেনি পর্যটক।

পাহাড়ের আতঙ্ক সশস্ত্র সন্ত্রাসী সংগঠন কেএনএফ খুনোখুনি, অপহরণ, চাঁদাবাজি ও সমতলের জঙ্গীদের সশস্ত্র প্রশিক্ষণ দিয়ে পাহাড় অশান্ত করে তুলেছিল। মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে গিয়ে এ পর্যন্ত সেনাবাহিনীর চার সদস্য জীবন দিয়েছেন। তবে সেনাবাহিনী সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করে পালটা ব্যবস্থা না নিয়ে ঠান্ডা মাথায় পেশাদারিত্বের মাধ্যমে তাদের সব ঘাঁটি দখল করতে সক্ষম হয়েছে। অস্ত্রসহ অনেক কেএনএফ সদস্য গ্রেফতার হয়েছেন।

তবে এখন অবরোধ এবং ভবিষ্যতে আরো রাজনৈতিক কর্মসূচির আশঙ্কায় হতাশ ব্যবসায়ীরা। দেশের মধ্যে বেশি পর্যটন স্পট বান্দরবানে। এগুলোর মধ্যে আকর্ষণীয় পর্যটন স্পট হলো নীলগিরি, নীলাচল, শৈলপ্রপাত, বগালেক, তাজিংডং, কেওক্রাডং, তমাতুঙ্গী, নাফাকুম, অমিয়খুম, বড়পাথর, বাকলাই ঝরনা, রিজুক ঝরণা, মেঘলা, স্বর্ণজাদী ও স্বর্ণমন্দির অন্যতম। এ সব পর্যটন এলাকায় দেশি বিদেশি পর্যটকরা ঘুরে ফিরে রাত্রি যাপন করতে বেশ স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন।

ইত্তেফাক/এসটিএম