শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

যুক্তরাষ্ট্রে খালিস্তানি নেতা হত্যাচেষ্টার অভিযোগ তদন্তে ভারতের প্যানেল গঠন

আপডেট : ২৯ নভেম্বর ২০২৩, ১৭:২৭

ভারতের বিরুদ্ধে আমেরিকার মাটিতে একজন শিখ নেতাকে হত্যার ষড়যন্ত্র করার অভিযোগ দায়ের করেছিল যুক্তরাষ্ট্র। এই অভিযোগ তদন্তের জন্য উচ্চ-পর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে ভারত।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে ফাইন্যান্সিয়াল টাইমস জানিয়েছে, মার্কিন কর্তৃপক্ষ গত সপ্তাহের এক রিপোর্টে দাবি করেছে শিখ নেতা গুরপতবন্ত সিং পান্নুনকে হত্যার ষড়যন্ত্র ব্যর্থ হয়েছে। এই ষড়যন্ত্রের সঙ্গে ভারত সরকার জড়িত আছে বলে সতর্কতা জারি করা হয়েছিল।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচি বুধবার বলেছেন, ভারত এই বিষয়টির সমস্ত প্রাসঙ্গিক দিক খতিয়ে দেখতে ১৮ নভেম্বর একটি উচ্চ-পর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে।

পান্নুন একজন শিখ নেতা। তিনি আমেরিকান ও কানাডিয়ান নাগরিক হিসেবে পরিচিত। ভারতীয় তদন্ত সংস্থা তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের অভিযোগ তালিকাভু্ক্ত করেছে। ভারত সরকারের কাছে তিনি এখন মোস্ট ওয়ান্টেড সন্ত্রাসী।

বাগচি বলেন, ‘আমরা ইতোমধ্যে বলেছি, দ্বিপাক্ষিক নিরাপত্তা সহযোগিতার বিষয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনার সময় মার্কিন পক্ষ সংগঠিত অপরাধী, বন্দুকধারী, সন্ত্রাসী ও অন্যান্যদের মধ্যে সম্পর্ক বিষয়ক কিছু তথ্য শেয়ার করেছে।’

তিনি আরও বলেছেন, ‘আমরা এও ইঙ্গিত দিয়েছিলাম যে ভারত এই জাতীয় বিষয়াদি গুরুত্ব সহকারে নেয় কারণ তারা আমাদের জাতীয় সুরক্ষার স্বার্থকেও প্রভাবিত করে। প্রাসঙ্গিক বিভাগগুলো ইতিমধ্যেই বিষয়টি যাচাই করছে। এই প্রসঙ্গে ১৮ নভেম্বর ভারত সরকার সমস্ত প্রাসঙ্গিক দিক খতিয়ে দেখার জন্য একটি উচ্চ-পর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে।’

কমিটির ফলাফলের ভিত্তিতে ভারত প্রয়োজনীয় ফলোআপ ব্যবস্থা নেবে বলেও জানিয়েছেন বাগচি।

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো জুন মাসে ভ্যাঙ্কুভার শহরতলিতে খালিস্তানি নেতা হরদীপ সিং নিজ্জার হত্যায় ভারতীয় এজেন্টদের ‘সম্ভাব্য’ জড়িত থাকার অভিযোগ করার কয়েক সপ্তাহ পরে এই প্রতিবেদন এসেছে।

প্রতিবেদনের পরে বাগচি ২২ নভেম্বর বলেছিলেন, মার্কিন পক্ষ সংগঠিত অপরাধী, বন্দুক চালানো, সন্ত্রাসবাদী ও অন্যান্য বিষয় সংক্রান্ত কিছু তথ্য অদান-প্রদান করেছে। এগুলো উভয় দেশের জন্যই ‘উদ্বেগের কারণ’ এবং তারা প্রয়োজনীয় ফলোআপ পদক্ষেপ নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

ইত্তেফাক/এসএটি