বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

সারবোঝাই ট্রাকে ইয়াবার চালান

তিন মাদক কারবারি গ্রেফতার

আপডেট : ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৩:০০

সার পরিবহনের আড়ালে ৫ হাজার পিস ইয়াবাসহ তিন মাদক কারবারিকে  গ্রেফতার করেছে র‍্যাব। বৃহস্পতিবার রাতে রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। তারা  হলেন—রিজু মিয়া, রিফাত ইসলাম ও রিপন  মোল্লা তিন জনেরই বাড়ি বগুড়ায়।

র‍্যাব-২-এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) এএসপি খান আসিফ তপু জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‍্যাব-২-এর একটি দল ঢাকার  মোহাম্মদপুর থানাধীন আসাদগেট হর্টিকালচার  সেন্টারের সামনে সড়কে  চেকপোস্ট স্থাপন করে।  চেকপোস্টে একটি সারবাহী ট্রাক তল্লাশি করা হলে তার  ভেতর বিভিন্ন স্থানে বিশেষভাবে লুকিয়ে রাখা ৫ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় তিন জনকেই  গ্রেফতার করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা জানান, তারা দীর্ঘদিন ধরে ট্রাক ব্যবহার করে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ইয়াবা ও বিভিন্ন ধরনের মাদকদ্রব্য ক্রয়-বিক্রয় ও সরবরাহ করে আসছিলেন। এর আগেও তারা ট্রাকে সার ও অন্যান্য দ্রব্য পরিবহনের আড়ালে মাদকদ্রব্য পরিবহন করেছে। কক্সবাজার থকে এসব ইয়াবা ঢাকায় এনে বিক্রি করতেন তারা। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

এদিকে রাজধানীর সবুজবাগ এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে বিটিআরসির অনুমোদনহীন ফ্রিকোয়েন্সি ও অবৈধ বেতার যন্ত্র  সামগ্রীসহ  এক জনকে  গ্রেফতার করেছে র‍্যাব। র‍্যাব-১০-এর উপ-পরিচালক (অপ্স অফিসার) আমিনুল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে র‍্যাব-১০ ও বিটিআরসির সমন্বয়ে যৌথ দল  সবুজবাগ থানার দক্ষিণ মাদারটেক সরকারপাড়া এলাকায় একটি অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানে বিটিআরসির অনুমোদন ছাড়া ফ্রিকোয়েন্সি ও বিভিন্ন  বেতার যন্ত্র সামগ্রী স্থাপন করে অবৈধ ব্যবসা পরিচালনা করার অপরাধে মিজানুর রহমান  নামে এক জনকে  গ্রেফতার করা হয়। তিনি গাজীপুরের গাছা উপজেলার দক্ষিণ কলমেশ্বরের  আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে। এ সময় তার কাছ  থেকে ২৮টি বিভিন্ন মডেলের সেটআপ বক্স, একটি ইনকোডার, একটি রিসিভার, একটি মডুলেটর, দুটি এন্টিনা ও তিনটি এলএনবি উদ্ধার করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, মিজান  বেশ কিছুদিন ধরে বিটিআরসির অনুমোদন ছাড়াই ফ্রিকোয়েন্সি ও বিভিন্ন বেতার যন্ত্র সামগ্রী স্থাপন করে বিদেশি স্যাটেলাইট  থেকে বিদেশি বিভিন্ন চ্যানেল ডাউনলিঙ্ক করে  গ্রাহকের কাছে বিতরণের মাধ্যমে অবৈধ ব্যবসা পরিচালনা করে আসছিলেন। তার বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা করে গতকাল সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

ইত্তেফাক/এএইচপি