বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

বসন্ত বাতাসে সই গো..

আপডেট : ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৮:৪৪

মাঘের কনকনে শীতকে বিদায় দিয়ে আসছে ঋতুর রাজা বসন্ত! শীতের পরে রূপ, রস, বর্ণ, গন্ধ, স্পর্শ আর সৌন্দর্যের ডালি নিয়ে আসে ঋতুরাজ বসন্ত। দখিনা মলয়ে বসন্ত ঋতুর আগমনী বার্তা শোনা যায়। নতুন পত্রে-পুষ্পে শোভিত হয়ে প্রকৃতি দূর করছে শীতের শ্রীহীনতা। বসন্ত রাজাকে বরণ করতে হবে উৎসবের আবহে।  

চারদিকের প্রকৃতির সঙ্গে উৎসবে মুখরিত হয় সবাই হতে মন যেন নেচে উঠছে। প্রকৃতি ঠিক সজীব হয়ে ঋতুরাজ বসন্তকে বরণ করতে প্রস্তুতি নিচ্ছে। তাই আমাদেরও এবার প্রস্তুতি নেওয়া উচিত! আজকাল প্রতিটি মানুষই অনেক সৌখিন। প্রতিটা উৎসবেই নিজেকে রঙ্গিন প্রাণে রঙ্গিন সাজে গুছিয়ে চলতে চায়। তাই উৎসবকে কেন্দ্র করে এখন থেকেই শুরু হোক  পহেলা ফাল্গুনের সাজসজ্জার পরিকল্পনা। 

প্রথমে যে কথাটি আসবে কেমন হবে বসন্তের সাজ তবে এর আগেও যেটি প্রয়োজন কি পড়ছেন বসন্তে? কোন রং কে প্রাধান্য দিচ্ছেন তার ওপর নির্ভর করে মানানসই ভাবে সাজতে হবে:  

ত্বককে প্রস্তুত করি
যে কোন সময় সাজার আগে ত্বককে সঠিকভাবে প্রস্তুত করাটা সবচেয়ে বেশি জরুরী। যদি ত্বক সতেজ, মসৃণ এবং প্রাণবন্ত থাকে তবে মেকআপ করার ক্ষেত্রে পরে গ্লোটা দ্বিগুণ বাড়বে। তাই ভালো করে যেকোন একটি ফেসওয়াশ দিয়ে মুখটা ধুয়ে নিন। তারপর ফেসপ্যাক, সিটমাস্ক কিংবা যেকোনো একটি জেল ব্যবহার করতে পারেন। তারপর পুনরায় ভালো করে ঠান্ডা জল নিয়ে ত্বকে ধুয়ে নিন। এরপর ত্বকে বরফ লাগান। বরফ মুখে রক্ত সংবহন বাড়িয়ে তুলে একটা বাড়তি আভা এনে দেয়, পাশাপাশি চোখের ক্লান্তভাবও কাটিয়ে তোলে।

হাইড্রেটিং ক্রিম ও লিপ বাম 
 মেকআপ করার আগে মুখে ভালো মানের একটি হাইড্রেটিং ক্রিম মাখুন ত্বকের ধরণ বুঝে। যাতে করে ত্বকে মেকআপ ব্লেন্ড করতে সুবিধে হয়, মেকআপ সেটও করে ভালো।
মুখের মতো ঠোঁটও শুষ্ক হয়ে যায়, তাই লিপস্টিক লাগানোর আগে অবশ্যই লিপ বাম বুলিয়ে নিন। মেকআপ সম্পূর্ণ মেকআপ করা শেষ না হওয়া পর্যন্ত ঠোঁটে লিপ বাম রাখুন। লিপস্টিক লাগানোর পূর্বে ঠোঁটে একটু কনসিলার লাগিয়ে নিবেন যাতে করে লিপস্টিকের কালার টা সুন্দর আসে।

প্রাইমার
মুখে সরাসরি ফাউন্ডেশন লাগানো উচিৎ নয়। এতে করে কিছুক্ষণ পর মুখ থেকে তেল বেরিয়ে ফাউন্ডেশনের প্রলেপ নষ্ট হয়ে যেতে পারে। মুখ ফ্যাকাশে হয়ে যেতে পারে। তাই শুরুতেই প্রাইমার লাগিয়ে নিন।

কন্সিলার
আমাদের সম্পূর্ণ মুখমন্ডলের কিছু জায়গা থাকে একটু কালচে কিংবা একটু লালচে। সেই জায়গাগুলোকে কমলা, হালকা গোলাপী,  কিংবা পেস্ট কালার  দাগের ঘনত্ব বুঝে লাগিয়ে নিন। তা না হলে সরাসরি ফাউন্ডেশন দিলে মেকআপটা কালো কালো হয়ে যাবে।

ফাউন্ডেশন
প্রথমত ত্বকের আন্ডারটোন। ফাউন্ডেশন বাছাইয়ের ক্ষেত্রে আন্ডারটোন-এর ভুমিকা অপরিসীম।  ত্বকের আন্ডারটোন বুঝে  ফাউন্ডেশন বাছাই করুন। এছাড়াও ত্বকের রঙের সাথে যায় এরকম শেড বাছাই করুন না বুঝে খুব সাদা সেট কিংবা খুব কালো সেট নিলে সম্পূর্ণ মেকআপ নষ্ট হয়ে যাবে। আর ফাউন্ডেশন প্রথমে আঙ্গুল দিয়ে পুরো মুখে  দিয়ে নিন। তারপর একটি বিউটি ব্লেন্ডার কিংবা একটি ব্রাশের সাহায্যে সম্পূর্ণ মুখে আস্তে করে চেপে চেপে মেখে নিন।

পাউডার
সম্পূর্ণ মেকআপটি সেট করতে পাউডারের ভূমিকা অপরিসীম। তাই মুখে ভালো করে পাউডার চেপে চেপে মেখে নিন। এছাড়াও পাউডারের কলারটি যেনো কালারলেস কিংবা হলুদ রঙের ব্যবহার করার চেষ্টা করুন।

চোখের সাজ
সম্পূর্ণ সাঝের অন্যতম আকর্ষণীয় জায়গায় হচ্ছে চোখের সাজ। বর্তমান সময়ে চোখের অনেক অভিনব সাজ রয়েছে। কত নিখুঁতভাবে সুন্দর করে চোখকে নানান রং দিয়ে সাজিয়ে তোলা যায় সেটাই এখন ট্রেন্ড। এছাড়াও চোখের সাজ সম্পূর্ণ ব্যক্তি বিশেষ নির্ভর করবে। কেউ আছে চোখে খুব হালকা সাজ পছন্দ করে কেউ বা গাঢ়। তবে বসন্তকে কেন্দ্র করে চোখে একটু রঙিন সাজ দিলেই সম্পূর্ণ সাজটি মনোরম হয়ে উঠবে। পোশাকের সাথে সঠিক চোখের সাজ নির্বাচন করা সাজে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। এছাড়াও চোখে কাজল, আইলাইনার, মাস্কারা যেন বাদ না যায় সে দিকে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে। চোখকে বিস্ময়কর দেখাতে আইল্যাশ ও লেন্স এর অপরিসীম।

ব্রোঞ্জিং
ব্রোঞ্জিং না করলে সম্পূর্ণ মেকআপটা ফ্যাকাসে দেখাবে।ফেইসের ট্যান ভাবটাকে এনহ্যান্স করার জন্য ব্রোঞ্জিং করা হয়। ব্রোঞ্জিং এর মাধ্যমে একটি সানকিসড লুক পাওয়া যায়। ব্রোঞ্জিং করলে  ফেইসে একটি ন্যাচারাল ওয়ার্ম ভাব আসে এবং লুকটা গ্লোয়ি লাগে। পাউডার ব্রোঞ্জিং করার জন্য ফাউন্ডেশন অ্যাপ্লাইয়ের পর লুজ পাউডার দিয়ে সেট করে নিয়ে ব্রোঞ্জিং করা ভালো। এতে ব্রোঞ্জিং এর ফিনিশিং ভালো আসবে।

ব্লাশন ও হাইলাইটার 
সম্পূর্ণ সাঝের মধ্যে ব্লাশন ত্বককে দীপ্তিময় করে তুলবে। সম্পূর্ণ মুখে যখন একটি গোলাপী কিংবা পিচ কালারের সুন্দর আভা আসবে, সম্পূর্ণ মুখমণ্ডলীতে অন্যরকম গ্লো তৈরি হবে। সব ধরনের ত্বকের জন্যই পাউডার ব্লাশন উপযোগী। এটি ত্বকে ম্যাট ফিনিশিং দেয়। পাউডার ব্লাশন লাগাতে ঘন ও মোলায়েম ব্রেসুলের মোটা ব্লাশন ব্রাশ ব্যবহার করুন। ব্লাশন লাগানোর সময় আয়নার সামনে হাসুন। হাসলে গালের যে অংশ ফুলে ওঠে তাকে অ্যাপল বলে। সার্কুলার মোশনে গালের অ্যাপলে ব্লাশন লাগান। মুখের হাই পয়েন্টসগুলোতে ফ্যান ব্রাশের সাহায্যে হাইলাইটার লাগান। মুখের যে পয়েন্টগুলোতে আলো পরে সেইসব জায়গায় হাইলাইটার ব্যবহার করতে হবে। এতে করে আপনার ফেসে একটি পারফেক্ট স্ট্রাকচার তৈরি হবে। এছাড়াও হাইলাইটারের রং নির্বাচন করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। বসন্তের সাজের সাথে রোজ গোল্ড কিংবা গোল্ডেন কালারের হাইলাইটার বেশি মানানসই। 

সেটিং স্প্রে
সম্পূর্ণ সাঝটি সঠিকভাবে সারাক্ষণ সেট থাকার জন্য সেটিং স্প্রে ব্যবহার করুন এতে করে দীর্ঘ সময়ের জন্য আপনার সাঝটি ঠিকঠাক থাকবে।

প্রাণঢালা আনন্দে রঙিন মনে রঙিন সাজে বসন্ত হয়ে উঠুক সুন্দর ও স্মরণীয়।

ইত্তেফাক/এআই

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন