মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

ময়মনসিংহ সিটি নির্বাচন

প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত মেয়র-কাউন্সিলর প্রার্থীরা

আপডেট : ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৬:৪৮

ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আগামী ৯ মার্চ। এ নির্বাচনের প্রতীক বরাদ্দের পর থেকেই শুরু হয়েছে মেয়র-কাউন্সিলর প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা। নানা ব্যানার-পোস্টারে ছেয়ে গেছে নগরীর প্রতিটি অলিগলি। চলছে মাইকিং। ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট চাচ্ছেন প্রার্থী ও তাদের প্রতিনিধিরা। বাসাবাড়ি থেকে দোকানপাট, হাট-বাজার ও নগরীর কাঁচা বাজারগুলোসহ সর্বত্রই প্রার্থীদের বিরামহীন প্রচারণায় নগরজুড়ে নির্বাচনী উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। 

এ নির্বাচনে মেয়র পদে ৫ জন প্রার্থীর মধ্যে ৪ জনই আওয়ামী লীগের, আর বাকি একজন জাতীয় পার্টির। আসন্ন নির্বাচনে সাবেক মেয়র ও মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি ইকরামুল হক টিটুর সঙ্গে মূলত প্রতিদন্দ্বিতা হবে জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ও মেয়র প্রার্থী সাদেকুল হক খান মিল্কী (টজু) ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এহতেশামুল আলমের। তবে প্রচারে এখনো ইকরামুল হক টিটু অন্যদের চেয়ে এগিয়ে আছেন।

ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের সদ্য সাবেক মেয়র ইকরামুল হক টিটু এবার নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন টেবিল ঘড়ি প্রতীক নিয়ে। তিনি আবারও জনগণের ভোটে মেয়র নির্বাচিত হয়ে স্মার্ট নগরী গড়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করে বলেন, বৈশ্বিক কারণে নগরীর প্রত্যাশিত উন্নয়ন সম্ভব হয়নি। তবে আবারও সুযোগ পেলে নগরীর অসমাপ্ত রাস্তাঘাটের উন্নয়ন, যানজট ও জলাবদ্ধতা নিরসন করে আধুনিক ও স্মার্ট নগরী গড়তে চাই।

হাতি প্রতীক নিয়ে মেয়র প্রার্থী সাদেকুল হক খান মিল্কী (টজু) স্মার্ট নগরী গড়ার প্রত্যয় নিয়ে গণসংযোগ করছেন। ভোটারদের মন জয় করতে ১৫ দফা ইশতেহার ঘোষণা করেছেন। এতে আছে ডিজিটাল নগরী গড়ে তোলা, ট্যাক্স কমানো, যানজট ও দুষণমুক্তকরণ, ওভারব্রিজ ও ফ্লাইওভার এবং ড্রেনেজ সিস্টেমের উন্নয়ন ও পরিকল্পিতভাবে পার্ক নির্মাণসহ ১৫ দফা আশ্বাস।

নির্বাচন সামনে রেখে দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে গণসংযোগ করেছেন ঘোড়া প্রতীকের মেয়র প্রার্থী ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এহতেশামুল আলম। তিনি বলেন, নগরবাসীর দুর্ভোগ লাঘবের লক্ষ্য নিয়ে আমি মেয়র প্রার্থী হয়েছি। মানুষ এখন পরিবর্তন চায়। কারণ পরিবর্তন ছাড়া নতুন নগরী গড়া সম্ভব নয়। আমি নির্বাচিত হলে মাদক, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি ও পৌর ট্যাক্স কমাবো।

হরিণ প্রতীক নিয়ে গণসংযোগ করছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কৃষি ও সমবায়বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য মেয়র প্রার্থী কৃষিবিদ রেজাউল হক রেজা। তিনি বলেন, নিয়মিত কাজের পাশাপাশি আমি নির্বাচিত হলে নগরীর বাসিন্দাদের স্বাস্থ্যগত উন্নয়ন ও ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালকে আরও আধুনিক করব। নেতাকর্মী ও কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন জাতীয় পার্টি (কাদের-চুন্নু) সমর্থিত লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী শহীদুল ইসলাম স্বপন মন্ডলও। তিনি নির্বাচিত হলে যানজটমুক্ত, জনগণের বাসযোগ্য আধুনিক নগর গড়তে চান। 

এ নির্বাচনে মেয়র পদে পাঁচ প্রার্থী ছাড়াও নগরের ৩৩টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১৪৯ এবং ১১টি সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে প্রার্থী আছেন ৬৯ জন। তবে নগরীর ১১ নম্বর ওয়ার্ডে ফরহাদ আলম বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় কাউন্সিল নির্বাচিত হওয়ায় কাউন্সিলর পদে ৩২টি ওয়ার্ডে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনে মোট ভোটার সংখ্যা তিন লাখ ৩৬ হাজার ৪৯৬ জন। এর মধ্যে এক লাখ ৬৩ হাজার ৮৩২ পুরুষ, এক লাখ ৭২ হাজার ৬৫৫ নারী ও তৃতীয় লিঙ্গের নয়জন ভোটার ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

ইত্তেফাক/জেডএইচডি