মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

গরমের ব্যায়াম; যা করবেন যা করবেন না

আপডেট : ২০ এপ্রিল ২০২৪, ১৫:৩৬

শরীরচর্চার প্রয়োজন নেই কোথায়? ছিপছিপে শরীর থেকে শুরু করে হৃদযন্ত্রের স্বাস্থ্য ভালো রাখা, রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণসহ অনেকে ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রণেও শরীরচর্চা করেন। আবার অনেকে আছেন ফিটনেস ফ্রিক। তাদের জিমে যেতেই হবে। তীব্র এই গরমে জিমে গেলে শরীরের ওপর ভীষণ ধকল পড়বে। অতিরিক্ত গরমে ঘাম হওয়ার পাশাপাশি শরীরে পানিশূণ্যতা দেখা দিতে পারে। আর জিম থেকে বের হয়ে অনেক সময় শরীরে নানা জটিলতাও দেখা দিতে পারে। এ বিষয়ে কিছু পরামর্শ দিয়েছেন মিরপুরের ফিটনেস হ্যাভেন জিমের ইনস্ট্রাকটর গোলাম মাইনুদ্দিন

ডিহাইড্রেশন 
শরীরে পর্যাপ্ত পানি না থাকলে হ্যামস্ট্রিং বা শরীরের অন্য কোনো পেশিতে টান ধরতে পারে। আর পানিশূণ্যতায় মাথা ঘোরা এমনকি দূর্বল হয়ে পড়ার মতো সমস্যা হয়। তখন জিমে মনোযোগ দেয়া যাবে না। উলটো দুর্ঘটনাও ঘটতে পারে। ইলেক্ট্রোলাইট আছে এমন খাবার ও পানীয় প্রয়োজন পান করুন। আপনার ডায়বেটিস থাকলে বাজারের ইলেকট্রোলাইট ড্রিংক পান করবেন না। বরং ডাবের জল, শসা, তরমুজ বেশি করে খাবেন। পানি খাবেন বেশি। একদম ঠান্ডা পানি খাওয়ার চেষ্টা করবেন না। স্বাভাবিক তাপমাত্রার পানি পান করুন।

আটসাট জামা নয়
গরমে ঢিলেঢাকা পোশাকই আরাম দেয় বেশি। কিন্তু ইনস্টা ফিটনেস ইনফ্লুয়েন্সার বা অনেককে দেখে আটসাট পোশাক কিনে ফেলেন অনেকে। এ ধরনের পোশাক পরে দমবদ্ধ হয়ে আসে এমনকি বুকে চাপ বাড়ে। নাইলনজাতীয় ফ্যাব্রিক দিয়ে তৈরি হওয়া আটসাট পোশাক শরীরে হাওয়া চলাচলে বাধা দেয়। অতিরিক্ত চাপ সৃষ্টি করে। গরমে আরামদায়ক, হালকা রঙের পোশাক পরেই শরীরচর্চা করুন।

অতিরিক্ত শরীরচর্চা নয়
বাড়তি গরম যেহেতু তাই শরীরের ওপর বাড়তি চাপ না দেয়াই ভালো। তীব্র গরমে এসি জিমে আপনি হয়তো তা বুঝছেন না কিন্তু বাইরে গরমে বের হলে তখন খারাপ লাগা কাজ করতে পারে। গরমে শরীরচর্চার মাত্রা বুঝতে আপনার ইনস্ট্রাকটরের সঙ্গে আলাপ করুন।

আউটডোর নয়
অনেকেই বাইরে শরীরচর্চা করতে চান। সেটা মন্দ কিন্তু নয়। তবে তীব্র গরমে খুব ভোরে বের হলেও রোদ পড়ার আগেই ফিরে আসুন। বিকেলের দিকটা এবার রেহাই দিন। বিকেলের পরের সময়টা করতে পারেন তাতে কোনো সমস্যা নেই।

পর্যাপ্ত বিশ্রাম জরুরি
ব্যস্ত এই সময়ে হাতে সময় অল্প। তাই জিম ছেড়েই ভো দৌড়। এমনটি করবেন না। প্রয়োজনে কম শরীরচর্চা করুন কিন্তু বিশ্রাম কমাবেন না। 

ইত্তেফাক/এআই

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন