সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

হত্যার হুমকি দিয়ে উল্টো অধ্যক্ষের নামে যুবলীগ নেতার মামলা

আপডেট : ০৯ মে ২০২৪, ১৮:২৯

ময়মনসিংহের ঐতিহ্যবাহী নাসিরাবাদ কলেজের অধ্যক্ষ আহমেদ শফিককে গুলি করে হত্যার হুমকির অভিযোগ উঠেছে যুবলীগ নেতা আখেরুল ইমামের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত আখেরুল ইমাম ময়মনসিংহ জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক। 

মঙ্গলবার (৭ মে) ভুক্তভোগী অধ্যক্ষ তার ফেসবুকে পোস্ট করে এ তথ্য জানান। একই সঙ্গে পোস্টে অধ্যক্ষ তার কক্ষের সিসিটিভির একটি ফুটেজের ভিডিও শেয়ার করেন।  

এ ঘটনায় গত ৩০ এপ্রিল কোতোয়ালি থানায় অভিযোগ করা হলেও পুলিশ আসামির বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি পুলিশ। অন্যদিকে বুধবার (৮ মে) দুপুরে ভুক্তভোগী অধ্যক্ষকে আসামি করে সাইবার আইনে আদালতে মামলা করেন অভিযুক্ত আখেরুল ইমাম সোহাগ। এ তথ্য নিশ্চিত করেন আদালতের বেঞ্চ সহকারী মো. আব্দুল মালেক।

অধ্যক্ষকে হত্যার হুমকিদাতা যুবলীগ নেতা সোহাগ মামলার অভিযোগে দাবি করেন, অধ্যক্ষ আহমেদ শফিক বিভিন্ন সময়ে তার ফেসবুকে মানহানিকর ও হুমকিজনক পোস্ট দিয়ে সামাজিকভাবে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করেছেন। এতে আমার মান সম্মানের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে। আমি এ ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করছি।  

অধ্যক্ষ আহমেদ শফিক বলেন, মামলার বিষয়ে কিছু জানি না। তবে আমি কাউকে হুমকি দিইনি। সে (আখেরুল ইসলাম সোহাগ) আমার ছাত্র, আমি তাকে হুমকি দিতে পারি না। সেই আমাকে হুমকি দিয়েছে সেটা ফেসবুকে পোস্ট করেছিলাম। 

জানা যায়, গত ৬ মে অধ্যক্ষ আহমেদ শফিক ফেসবুকে নিজের টাইমলাইনে একটি পোস্ট দিয়ে তাকে গুলি করে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ করেন। এতে যুবলীগ নেতা আখেরুল ইমাম সোহাগকে দায়ী করে তিনি আরও লিখেন, গত ৩০ এপ্রিল সকাল ১১টার দিকে আখেরুল ইমাম সোহাগের নেতৃত্বে প্রায় অর্ধশত সন্ত্রাসী নাসিরাবাদ কলেজ ক্যাম্পাসে প্রবেশ করে সোহাগসহ পাঁচজন অধ্যক্ষের কক্ষে প্রবেশ করে ‘গুলি কইরা মাইরা ফালামু’ বলে আমাকে হুমকি দেয়। (এ ধরনের হুমকি ২০১৮ সালেও সে আমাকে দিয়েছিল)। সেই থেকে আমি আমার জীবনের চরম নিরাপত্তাহীনতা বোধ করছি এবং বড় বেশি অসহায়ত্ব নিয়ে প্রতিটি মুহূর্ত অতিক্রম করছি, বলেও তিনি পোস্টে উল্লেখ করেন। এ ঘটনায় গত ৩০ এপ্রিল অধ্যক্ষ আহমেদ শফিক কোতোয়ালি মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন বলেও জানান তিনি।  

ইত্তেফাক/পিও