শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১
The Daily Ittefaq

নন্দীগ্রামে বিজেপির নারী কর্মীকে কুপিয়ে খুন, অভিযুক্ত তৃণমূল

আপডেট : ২৩ মে ২০২৪, ১৮:৩৫

বিজেপি-র এক নারী কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা এবং তার সন্তানসহ আটজনকে আহত করার প্রতিবাদে নন্দীগ্রামে বিক্ষোভ করছে বিজেপির নেতা কর্মীরা। বেশ কয়েকটি দোকান ও বাড়িতে আগুন দেওয়া হয়েছে।

গাছ ফেলে রাস্তা আটকে দেওয়ার ঘটনাও ঘটেছে। রাস্তায় টায়ার ফেলে আগুন ধরানো হয়েছে। পুলিশ ও কেন্দ্রীয় বাহিনী লাঠিচার্জ করেছে।

নন্দীগ্রামের সোনাচূডায় গভীর রাতে রথীবালা আড়ি নামের এক নারী বিজেপি কর্মীকে তৃণমূল কর্মীরা কুপিয়ে খুন করে বলে অভিযোগ। তার আগে ফেস্টুন লাগানো নিয়ে বিজেপি ও তৃণমূলের মধ্যে বাগবিতণ্ডা হয়।

রথীবালার ছেলের অবস্থাও আশঙ্কাজনক। তাকে চিকিৎসার জন্য কলকাতায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সাতজন বিজেপি কর্মীও চিকিৎসাধীন।

সোমবার সকাল থেকে পরিস্থিতি আরও উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। একের পর এক দোকানে আগুন দেওয়া হয়। তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ করছেন বিজেপি কর্মীরা। পরে পুলিশ ও কেন্দ্রীয় বাহিনী গিয়ে তাদের সরিয়ে দেয়।

তৃণমূল এই হত্যাকাণ্ডের দায় অস্বীকার করেছে। তৃণমূল নেতা শেখ সুফিয়ানের দাবি, তৃণমূলকে ফাঁসানোর জন্য এই ধরনের অভিযোগ করা হচ্ছে।

বিজেপির প্রতিক্রিয়া

বিধানসভায় বিরোধী দলীয় নেতা শুভেন্দু অধিকারী বলেছেন, ‘নন্দীগ্রামে একজন নারীকে খুন করা হয়েছে। আপনারা তো জানেন আমি গুন্ডা সোজা করা লোক। একজন মাঝ বয়সি নারীকে মেরে দিলো তার বদলা হবে না?’ বৃহস্পতিবার বিকালে শুভেন্দুর সভা আছে।

বিজেপি নেতা মেঘনাদ পাল বলেছেন, ‘ভোটের মুখে তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা সন্ত্রাস ছড়াতে এই হামলা চালিয়েছে। বুধবার নন্দীগ্রামে সভা করতে এসেছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তার সভার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই বিজেপি কর্মীদের ওপর হামলা করা হলো।’

ইত্তেফাক/টিটি/এসএটি