বিদেশে বাংলাদেশ মিশনগুলোতে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী পালিত

বিদেশে বাংলাদেশ মিশনগুলোতে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী পালিত
জাপানে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান রাষ্ট্রদূত ও দূতাবসের কর্মকর্তা কর্মচারীগণ। ছবি: সংগৃহীত

শতবর্ষ পেরিয়ে ১০১ বয়স দাঁড়াবে শেখ মুজিবুর রহমানের। বেঁচে থাকলে এমনটাই হতো তার বয়স। গোপালগঞ্জের নিভৃত পল্লি টুঙ্গিপাড়ায় তিনি জন্মগ্রহণ করেছিলেন ১৯২০ সালের ১৭ মার্চ। আর এই দিনটিকে উৎসাহ-উদ্দীপনায় উদযাপন করছে মুজিবের সকৃতজ্ঞ দেশবাসী আর অনুসারীরা। পাশাপাশি বিদেশে বাংলাদেশ মিশনগুলোতে যথাযোগ্য মর্যাদায় বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যদিয়ে পালিত হচ্ছে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী।

টোকিও, জাপান: বুধবার (১৭ মার্চ) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১তম জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন করেছে জাপানের টোকিওস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস। সকালে অনুষ্ঠানের শুরুতে দূতাবাস প্রাঙ্গণে দূতাবাসের কর্মকর্তা–কর্মচারীদের সাথে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান জাপানে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শাহাবুদ্দিন আহমদ। পরে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের সাথে সাথে রাষ্ট্রদূত কর্তৃক জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। অনুষ্ঠানে শিশু দিবস উপলক্ষে শিশুদের প্রতিনিধি হিসাবে দুই জন রাদিয়া ও রায়না বক্তব্য প্রদান করেন। পরে জাপান প্রবাসী বাংলাদেশিগণ এই আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন।

হ্যানয়, ভিয়েতনাম: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১ তম জন্মবার্ষিকী এবং জাতীয় শিশু দিবস ১৭ মার্চ ২০২১ বাংলাদেশ দূতাবাস, হ্যানয়, ভিয়েতনামে যথাযোগ্য মর্যাদা এবং বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে উদযাপন করা হয়। বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণের ভিয়েতনামি ভাষায় অনুবাদ সম্বলিত পুস্তিকার মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

এদিনটি উপলক্ষে মান্যবর রাষ্ট্রদূত কর্তৃক জাতীয় পতাকা উত্তোলন, মহামান্য রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, মাননীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং মাননীয় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ, দোয়া ও মোনাজাত এবং আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এসময় বিশেষ অতিথি হিসাবে ভিয়েতনামের জাতীয় সংসদের মাননীয় সংসদ সদস্য ও পররাষ্ট্র বিষয়ক স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্য মান্যবর মিজ লি থু হা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও আমন্ত্রিত গণ্যমান্য অতিথিদের মধ্যে ভিয়েতনাম পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উচ্চ-পদস্থ কর্মকর্তা, ভারতের মান্যবর রাষ্ট্রদূত, শ্রীলংকার মান্যবর রাষ্ট্রদূত, ডিপ্লোম্যাটিক কোরের সদস্যবৃন্দ, ভিয়েতনাম টিভি চ্যানেলের প্রতিনিধি ও অন্যান্য মিডিয়া, ব্যবসায়ী প্রতিনিধিবৃন্দ, প্রবাসী বাংলাদেশী এবং দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী তাদের পরিবারবর্গসহ উপস্থিত ছিলেন।

নয়াদিল্লী, ভারত: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১তম জন্মদিন উপলক্ষে নয়াদিল্লীস্থ বাংলাদেশ হাই কমিশন যথাযোগ্য মর্যাদায় এ দিনটি পালন করেছে। এদিন উপলক্ষে সকালে দূতাবাস প্রাঙ্গণে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে কর্মসূচি শুরু হয়। পতাকা উত্তোলন করেন মান্যবর হাই কমিশনার মুহাম্মদ ইমরান। পরে তিনি দূতাবাসের কর্মকর্তাদের সঙ্গে নিয়ে দূতাবাস প্রাঙ্গণে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য দেওয়া হয়।

এসময় দূতাবাসের প্রতিরক্ষা উপদেষ্টা ব্রিগ্রেডিয়ার জেনারেল আবুল কালাম আজাদ, দূতাবাস কর্মকর্তা মিনিস্টার (রাজনৈতিক) মো: নুরুল ইসলাম ছাড়াও অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সিঙ্গাপুরে: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১তম জন্মদিন উপলক্ষে সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশ হাই কমিশনে যথাযোগ্য মর্যাদায় এ দিনটি পালন করা হয়েছে। এদিন চ্যান্সারী ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে দিবসের কার্যক্রম শুরু করেন হাইকমিশনার জনাব মো. তৌহিদুল ইসলাম, এনডিসি। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালী এই মহানায়কের স্মৃতির প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন তিনি। দিবস উপলক্ষ্যে প্রদত্ত বাণীসমূহ পড়ে শোনানো হয়, প্রদর্শিত হয় ডকুমেন্টারি, বঙ্গবন্ধুসহ শহীদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

রোম, ইতালি: ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন করেছে বাংলাদেশ দূতাবাস, রোম, ইতালি। ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানের মধ্যে ছিল জাতীয় পতাকা আনুষ্ঠানিকভাবে উত্তোলন, জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, জাতির পিতা ও মুক্তিযুদ্ধের বীর শহিদদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন, বাণী পাঠ, দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

আলোচনা সভায় সম্প্রতি বাংলাদেশের নাগরিকত্ব প্রাপ্ত ইতালির নাগরিক ভিসেনজো ফালকোনে (Vincenzo Falcone) এবং তাঁর স্ত্রী গ্রাজিয়েল্লা মেলানো লউরা এ দিনটি উপলক্ষে তাদের শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করেন। উল্লেখ্য, এ দম্পতি দীর্ঘ ৪০ বছর যাবৎ বাংলাদেশের বসবাস করছেন এবং সাতক্ষীরা জেলায় ঋশিল্পী সংস্থার প্রতিষ্ঠা করে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। এসময় দূতাবাসে রাষ্ট্রদূত মোঃ শামীম আহসান এবং ডিজিটাল প্লাটফর্মে দূতাবাসের অন্যান্য কর্মকর্তারা যুক্ত হয়ে উপস্থিত ছিলেন।

ম্যানিলা, ফিলিপাইন: যথাযথ শ্রদ্ধায় ও আনন্দমুখর পরিবেশে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস-২০২১ উদযাপন করেছে ফিলিপাইনস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস। সকালে দূতাবাসে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে দিবসটির কার্যক্রম শুরু হয়। এরপর রাষ্ট্রদূত আসাদ আলম সিয়াম ও দূতাবাসের অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুস্পার্ঘ্য অর্পণের মাধ্যমে জাতির পিতার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এসময় কেক কাটা, জাতির পিতার জন্য বিশেষ দোয়া-মোনাজাত এবং আপ্যায়নের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

দুবাই: বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল দুবাই উদ্যোগে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১ তম জম্মবাষির্কী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন করা হয়েছে। এইদিন কনস্যুলেট হলরুমে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্প মাল্য অর্পণের মধ্য দিয়ে জম্মবার্ষিকী অনুষ্ঠান শুরু হয়।

এসময় বাংলাদেশ কনস্যুলেটের প্রধান প্রভাষ লামারং এর পরিচালনায় এতে সভাপতিত্ব করেন কনসাল জেনারেল মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন খান। বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন দুবাই কনস্যুলেটের ডেপুটি কনসাল জেনারেল মো: সাহেদুল ইসলাম, লেবার কাউন্সেলর ফাতেমা জাহান, কমার্শিয়াল কাউন্সেলর কামরুল হাসান প্রমুখ। এছাড়া দুবাই জনতা ব্যাংকের ব্যবস্থাপক আবদুল মালেক, প্রকৌশলী আবু জাফর চৌধুরী, ইসমাইল গণি চৌধুরী, প্রকৌশলী আবু নাছের, প্রকৌশলী আবু হেনা, হাজী শফিকুল ইসলাম, মহিউদ্দিন ইকবাল, মোহাম্মদ মহিন,কাউছার নাজ প্রমুখ আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন।

আলোচনা সভা শেষে শিশুদের নিয়ে কেক কাটা হয়। শেষে বঙ্গবন্ধুর বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া মোনাজাত করা হয়। পরে এক সাংস্কৃতিক অনুষ্টানের আয়োজন করা হয়।

সুইডেন: বিনম্র শ্রদ্ধা-ভালবাসার মধ্য দিয়ে সুইডেনের স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস-২০২১ উদযাপিত হয়েছে। সকালে দূতাবাস প্রাঙ্গণে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে দিবসের কার্যক্রম শুরু হয়। পরে বিকালে অনলাইনে জুম প্লাটফর্মে এক আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে মূল বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম। রাষ্ট্রদূত মো. নাজমুল ইসলামের নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন দূতাবাস কর্মকর্তারা। অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় ভাগে মূল বক্তা অধ্যাপক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম ‘বঙ্গবন্ধুর শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক চিন্তা’ বিষয়ে বক্তব্য প্রদান করেন। এরপর অনলাইনে উপস্থিত সুইডেন, নরওয়ে এবং ফিনল্যান্ডে অবস্থানরত শিশু কিশোররা গান, কবিতা আবৃত্তিসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক পরিবেশনায় অংশগ্রহণ করেন।

আবুধাবিস্থ : আবুধাবিস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন করেছে। সকালে দূতাবাস প্রাঙ্গণে মিশনের কর্মকর্তা—কর্মচারী ও প্রবাসীদের অংশগ্রহণে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে দিবসের কার্যক্রম শুরু হয়। অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রদূত আবু জাফর দূতাবাসের অন্যান্য কর্মকর্তাদের নিয়ে জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। রাষ্ট্রদূতের সহধর্মিণী মিসেস সালমা আহমেদের নেতৃত্বে আবুধাবিস্থ বাংলাদেশ মহিলা সমিতি, আবুধাবিস্থ জনতা ব্যাংকের সিইওর নেতৃত্বে ব্যাংকের কর্মকর্তাবৃন্দ, আবুধাবিস্থ বাংলাদেশ স্কুলের অধ্যক্ষের নেতৃত্বে স্কুলের শিক্ষক—শিক্ষার্থীবৃন্দ, বাংলাদেশ বিমানের কর্মকর্তাবৃন্দ, বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি ইফতেখার হোসেন বাবুলের নেতৃত্বে পরিষদের নেতৃবৃন্দ, বাংলাদেশ সমিতির সভাপতি প্রকৌশলী মোয়জ্জম হোসেনের নেতৃতে সমিতির সদস্যবৃন্দসহ বিভিন্ন সামাজিক—সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। এরপর জাতির পিতার জন্মদিন ও জাতীয় শিশু-দিবস উপলক্ষে শিশু—কিশোরদের নিয়ে রাষ্ট্রদূত কেক কাটেন। আলোচনা সভার শুরুতে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করা হয়। পরে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন রাষ্ট্রদূত আবু জাফর।

জার্মান: জার্মান আওয়ামী লীগ আহ্বায়ক কমিটির আয়োজনে এক ব্যতিক্রমী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী পালন করা হয়। জার্মানির ফ্রাঙ্কফুর্ট, বার্লিন , বন , মিউনিকসহ বিভিন্ন শহরে ১৬ই মার্চ ২০২১ মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টা ১মিনিটে বাংলাদেশ সময় রাত ১২টা ১মিনিটে শতপরিবার একসাথে হয়ে একইসাথে একশত মোমবাতি জ্বলিয়ে ও একশত কেক কেটে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী পালন করে । পরে এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় জার্মানির বিভিন্ন প্রদেশ থেকে অংসখ্য নেতাকর্মী অংশগ্রহণ করেন । সভায় সভাপত্বিত করেন জার্মান আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা বিশিষ্ট ব্যবসায়ী জনাব মাসুম মিয়া। সভা পরিচালনা করেন সেলিম ভূইয়া ।

বক্তব্য রাখেন জনাব আনোয়ারুল কবির, জনাব শাহাবুদ্দিন, জনাব হাফিজুর রহমান আলম, জনাব মিজানুর হক খান, জনাব মাবু জাফর স্বপন, মাহফুজ ফারুক, আব্দুল মালেক, নুরজাহান খান নুরি, কে এম লোকমান হোসেন বজলুর রশীদ ভুলু, মোহাম্মদ আলী লিঙ্কন মোল্লা, মোবারক আলী ভূঁইয়া বকুল, নূরে আলম সিদ্দিকী রুবেল, নজরুল ইসলাম খালেদ, রোমান মিয়া, নোমান হামিদ, মাসুদুর রহমান মাসুদ, আলমগীর আলম, হাকিম টিটু , খান লিটন, আবুল কালাম, শাহআলম, বদিউজ্জান, সোহাগ মোল্লা, শেখ রেদোয়ান, রানা ভূঁইয়া, বাপ্পি তালুকদার, সূর্য কান্ত ঘোষ, মো: কুদ্দুস আলী, আওয়াল খান সহ আরও অনেকে।

যুক্তরাষ্ট্র: যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসে যথাযোগ্য মর্যাদা ও শ্রদ্ধার সঙ্গে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস-২০২১ উদযাপন করা হয়েছে। আয়োজনের শুরুতে রাষ্ট্রদূত এম শহিদুল ইসলাম দূতাবাস প্রাঙ্গণে জাতীয় সংগীতের সঙ্গে আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। এরপর রাষ্ট্রদূত এবং দূতাবাসের কর্মকর্তাগণ দূতাবাসে অবস্থিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আবক্ষ ভাস্কর্যে শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদন করেন। এই দিনটি উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডক্টর এ কে আব্দুল মোমেন এবং পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো: শাহরিয়ার আলম কর্তৃক প্রদত্ত বাণী পাঠ করা হয়। অনুষ্ঠানের শেষে বঙ্গবন্ধুসহ তার পরিবারের সব সদস্যের আত্মার মাগফিরাত ও শান্তি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

বাংলাদেশ হাই কমিশন লন্ডন : বঙ্গবন্ধুর ১০১তম জন্মদিবস ও জাতীয় শিশুদিবস ‘চিরন্তন মুজিব’ শীর্ষক এক বিশেষ স্মারক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে উদযাপন করেছে। বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনী থেকে শিশু-কিশোরদের পাঠ, ‘বঙ্গবন্ধু ও ব্রিটেন’বিষয়ে তিন শতাধিক ব্রিটিশ-বাংলাদেশি শিশু-কিশোরের চিত্রাংকন ও ‘জাতির পিতা’শীর্ষক বঙ্গবন্ধুকে উৎসর্গীকৃত শিশু-কিশোরদের এক বিশেষ সংগীত পরিবেশনা ছিলো দিবস উদযাপনের মূল আকর্ষণ।

দিবসটির স্মরণে যুক্তরাজ্য ও আয়ারল্যান্ডে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনীম ব্রিটিশ-বাংলাদেশি শিল্পী আসাদ উল্লাহর আঁকা বঙ্গবন্ধুর একটি পূর্ণ প্রতিকৃতি উন্মোচন করেন এবং মিশনের সিনিয়র কূটনীতিকদের নিয়ে সামাজিক দূরত্ব মেনে এই প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে কূটনীতিক, যুক্তরাজ্যের বৈদেশিক ও কমনওয়েলথ অফিসের প্রতিনিধি, ব্রিটিশ শিক্ষাবিদ ও সাংবাদিক এবং ব্রিটিশ-বাংলাদেশি কমিউনিটির সদস্যসহ অনেক শিশু-কিশোর স্বত:স্ফূর্তভাবে যোগ দিয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা জানান।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা, এমপি, বলেন ‘বঙ্গবন্ধু সব সময় শিশুদের সর্বোত্তম ভবিষ্যত সুনিশ্চিত করতে চেয়েছিলেন এবং আজ তাঁরই সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের প্রতিটি শিশু যাতে সুন্দর ও সম্পূর্ণরুপে বেড়ে উঠতে পারে সে জন্য সম্ভাব্য সব পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন।’

হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনীম বলেন, “প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনকে জাতীয় শিশু দিবস হিসেবে ঘোষণা দিয়েছেন, যাতে দেশ ও বিদেশে প্রতিটি বাংলাদেশি শিশু-কিশোর বঙ্গবন্ধুর প্রগতিশীল, গণতান্ত্রিক ও ধর্মনিরপেক্ষ মূল্যবোধের আদর্শ সম্পর্কে জানতে ও উজ্জীবিত হতে পারে।”

বাংলাদেশ শিশু একাডেমীর সভাপতি লাকি ইনাম শিশুদের জন্য বঙ্গবন্ধু সুগভীর ভালোবাসা, সুদুরপ্রসারি স্বপ্ন এবং তা বাস্তবায়নে যেসব পদক্ষেপ নেয়া হয়েছিলো তার উল্লেখ করে শিশুদের সুন্দর ভবিষ্যৎ নিশ্চিত করার জন্য সেসব বাস্তবায়নের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন।

কোভিড-পরবর্তী সময়ে আগামী ২৬ মার্চ বাংলাদেশে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির প্রথম বিদেশ সফরের কথা উল্লেখ করে যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার মিস গায়ত্রি ইসার কাওর বলেন, এই সফর বাংলাদেশের ৫০তম স্বাধীনতা বার্ষিকীকে ভারত যে অপরিসীম গুরুত্ব ও মর্যাদা দিচ্ছে তারই স্বাক্ষর বহন করে। তিনি প্রধামন্ত্রী শেখ হাসিনা‘র নেতৃত্বে বাংলাদেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নের অকুন্ঠ প্রশংসা করেন।

বঙ্গবন্ধুর প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে যুক্তরাজ্যের বৈদেশিক ও কমনওয়েলথ অফিসের দক্ষিণ এশিয়ার পরিচালক মিসেস লিসা বান্দারি বলেন, “গণতান্ত্রিক, স্বাধীন, ধর্মনিরপেক্ষ ও অন্তর্ভূক্তিমূলক বাংলাদেশ গড়ার যে ভিত্তি শেখ মুজিব গড়ে দিয়ে গেছেন, তা বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন এবং পরবর্তী সময়েও অশেষ অনুপ্রেরণার উৎস হয়ে থাকবে।”

হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনীমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট সাংবাদিক ও কলাম লেখক আবদুল গাফফার চৌধুরী, যুক্তরাজ্য ভিত্তিক এশিয়ান এ্যাফেয়ার্স ম্যাগাজিনের সম্পাদক ডানকান বার্টলেট, বিশিষ্ট বিবিসি সাংবাদিক আশিস রায়, যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ আন্দোলনের সংগঠক সুলতান মাহমুদ শরীফ এবং ব্রিটিশ-বাংলাদেশি কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক বক্তব্য রাখেন।এছাড়া অনুষ্ঠানে সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব শম্পা রেজা বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে প্রখ্যাত কবি নির্মলেন্দু গুণের লেখা একটি কবিতা আবৃত্তি করেন এবং বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী ফাহমিদা নবী বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে একটি গান শুনান।

টরন্টো : টরন্টোর বাংলাদেশ কনসুলেট জেনারেল ভার্চুয়াল কর্মসূচির মাধ্যমে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১-তম জন্মবার্ষিকী এবং জাতীয় শিশু দিবস-২০২১উদযাপন করেছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে ছিলেন নরম মিলার, এমপিপি, যিনি ওন্টারিও প্রিমিয়ার ডাগ ফোর্ডের সংসদ বিষয়ক সহকারী। সম্মানিত অতিথি হিসেবে ছিলেন সাসকাচুয়ান প্রদেশের বাণিজ্য ও রফতানি উন্নয়ন মন্ত্রী জোডি ব্যাংকস। ওন্টারিও প্রদেশের প্রিমিয়ার ডাগ ফোর্ড এবং ম্যানিটোবা প্রদেশের ডেপুটি প্রিমিয়ার কেলভিন গোয়ের্তজেন এ উপলক্ষে বিশেষ বার্তা দিয়েছেন। অনুষ্ঠানে ওন্টারিও, সাসকাচুয়ান, ব্রিটিশ কলম্বিয়া, আলবার্টা ও ম্যানিটোবা প্রাদেশিক সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাবৃন্দ, কূটনীতিক, স্থানীয় কানাডিয়ান গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এবং প্রবাসী বাংলাদেশীগণ উপস্থিত ছিলেন।

বিশেষ বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জন রেইস, এমএলএ এবং ম্যানিটোবার সামরিক বিষয়ক বিশেষ দূত; আনিশ দ্বিবেদী, ওন্টারিও প্রিমিয়ারের বিশেষ উপদেষ্টা; ক্যারা রাউসান, ওন্টারিও রাষ্ট্রাচার প্রধান; শ্যানন হ্যাগার্টি, আলবার্টাররাষ্ট্রাচার প্রধান; লুসি লবমিয়ার, ব্রিটিশ কলম্বিয়ার রাষ্ট্রাচার প্রধান; জেমস র্যা মার, টরন্টো পুলিশ সার্ভিসের প্রধান; আমিন মিয়া, সভাপতি, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, কানাডা;মোস্তফা কামাল, সভাপতি, অন্টারিও আওয়ামী লীগ;সৈয়দ হোসেন মনা, বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং মুনতাকা আহমেদ, প্রেসিডেন্ট, টরন্টো ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্টস ইউনিয়ন।

ওন্টারিও প্রিমিয়ার এবং ম্যানিটোবার ডেপুটি প্রিমিয়ার তাদের বিশেষ ভিডিও বার্তায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে বাংলাদেশকে অভিনন্দন জানিয়েছেন এবংবাংলাদেশের সাথে সম্পর্ক আরও জোরদার করতে তারা নিবিড়ভাবে কাজ করারআশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।

প্রধান অতিথি নরম মিলার এমপিপি বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে বাংলাদেশকে অভিনন্দন জানিয়ে বাংলাদেশের সাথে বিভিন্ন ক্ষেত্রে, বিশেষত বাণিজ্য ও বিনিয়োগের ক্ষেত্রে দীর্ঘ-মেয়াদী সহযোগিতার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। সাসকাচুয়ানের উপমন্ত্রী জোডী ব্যাংকস প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে গতিশীল বাংলাদেশের জনগণকে অভিনন্দন জানিয়েছেন এবং অর্থনৈতিক উন্নয়ন, বাণিজ্য, কৃষি, গবেষণা ইত্যাদি ক্ষেত্রে বাংলাদেশের সাথে একত্রে কাজ করার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন।

কনসাল জেনারেল নাঈম উদ্দিন আহমেদ তার বক্তব্যে বলেন, নিপীড়িত মানুষের মুক্তির জন্য বঙ্গবন্ধুর সংগ্রাম ও ত্যাগের উদাহরণ দেশেরগণ্ডিপেরিয়ে বিশ্বজুড়ে স্বাধীনতাকামী মানুষদের অনুপ্রেরণার এক মহান উৎসহয়ে থাকবে। বঙ্গবন্ধুর জীবন ও দর্শন আমাদের জন্য এক অমূল্য শিক্ষা এবং বিশ্ব শান্তির জন্য অনন্য দৃষ্টান্ত। জাতির পিতার ত্যাগ ও সংগ্রামকে স্মরণ করে কনসাল জেনারেল তার সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীরনেতৃত্বে ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে একটি উন্নত দেশে পরিণত করার অভিযাত্রায় সকলকে সহযোগিতার আহ্বান জানান।

কুনমিং, চীন : বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল, কুনমিং, চীন-এ যথাযোগ্য ভাবগাম্ভীর্য ও মর্যাদার সাথে আজ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন এবং জাতীয় শিশু দিবস- ২০২১ পালন করা হয়।

কনসাল জেনারেল এ এফ এম আমিনুল ইসলাম কনস্যুলেট জেনারেল এর কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সহ জাতীয় পতাকা আনুষ্ঠানিকভাবে উত্তোলনের মাধ্যমে এ দিবসের কর্মসূচির সূচনা করেন। অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে ছিল জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে তাঁর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের শাহাদাত বরণকারী সদস্যদের রুহের মাগফেরাত, ও দেশের সুখ-সমৃদ্ধি কামনা করে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত, রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ, আলোচনা অনুষ্ঠান এবং প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন। জাতির পিতার জন্মদিন এবং জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে ' বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ ' শীর্ষক চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় শিশুদের মধ্যে পুরস্কার বিতরন করা হয় এবং শিশুদের সাথে নিয়ে কেক কাটা হয়।

আলোচনা অনুষ্ঠানে কনসাল জেনারেল আগত অতিথিদের স্বাগত জানিয়ে বক্তব্য প্রদান করেন। বক্তব্যে তিনি বাংলাদেশের ইতিহাসে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবিসংবাদিত নেতৃত্ব ও অবদানের কথা সশ্রদ্ধচিত্তে স্মরণ করেন।

ইত্তেফাক/এমএএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x