বেটা ভার্সন
আজকের পত্রিকাই-পেপার ঢাকা মঙ্গলবার, ০৭ জুলাই ২০২০, ২৩ আষাঢ় ১৪২৭
২৮ °সে

ক্রিকেটে ফেরার ব্যাপারে সতর্ক বিসিবি

ক্রিকেটে ফেরার ব্যাপারে সতর্ক বিসিবি
বিসিবি।

গতকালই অনুশীলনে ফিরল শ্রীলঙ্কা দল। এর আগেই তোড়জোড় শুরু করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ইংল্যান্ডও ক্রিকেট ফেরানোর জন্য নানা পদক্ষেপ নিতে শুরু করেছে। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক হলো—বাংলাদেশ, তথা উপমহাদেশে করোনা সংক্রমণ এখন বেড়েই চলেছে। এ অবস্থায় বাকিরা কী করছে, সেটা নিয়ে ভাবছে না বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। তারা বরং নিজেদের দেশের পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে সতর্কভাবেই এগোতে চায় ক্রিকেট ফেরানোর ব্যাপারে।

বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন বলছিলেন, ক্রিকেট ফেরানোর আগে তারা খেলোয়াড়দের স্বাস্থ্য নিরাপত্তা নিয়ে নিশ্চিত হতে চান, ‘দেখুন, আমাদের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সম্পদ হলেন ক্রিকেটাররা। তাদের স্বাস্থ্য নিয়ে আমরা কোনো আপস করব না। আমাদের আগে নিশ্চিত হতে হবে যে, ওনাদের কোনো ঝুঁকি নেই। তেমনটা হলে তবে ক্রিকেট ফেরানোর প্রক্রিয়া শুরু হবে।’

আপাতত এখনই সেই সম্ভাবনাও দেখছেন না সুজন। তিনি বলছিলেন, দেশের অবস্থা তারা পর্যবেক্ষণ করছেন। যা বুঝতে পারছেন, তাতে ক্রিকেট মাঠে ফেরাতে সময় লাগবে, ‘মাত্র গতকালই (রবিবার) দেশের এক দিনের সর্বোচ্চ মৃত্যুর ঘটনা ঘটল। এ অবস্থায় তাড়াহুড়া করা যাবে না। আমি মনে করি, আমাদের আরো সময় নিতে হবে। পরিস্থিতি কোনদিকে যায়, সেটা দেখতে হবে।’

তবে বিসিবি বসে নেই। সুজন বলছিলেন, তারা ভেতরে ভেতরে সবকিছু প্রস্তুত রাখছেন। যাতে খুব অল্প সময়ের নোটিশে মাঠে অনুশীলন বা খেলা শুরু করে দেওয়া যায়। তিনি বলছিলেন, ‘ক্রিকেট মাঠে ফেরার অবস্থায় যাওয়ার আগে ব্যাকগ্রাউন্ডে অনেক কাজ থাকে। সেগুলো আমরা আপডেট রাখছি। মাঠসহ অন্যান্য সবকিছু তৈরি রাখছি। সংশ্লিষ্ট সকলের সঙ্গে আলাপ করছি। এমনকি ক্রিকেটাররা মাঠে ফিরলে কী ধরনের প্রস্তুতি লাগবে, কী ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে হবে, সেটাও আমরা ঠিক করে রাখছি। বলতে পারেন, আমাদের ভেতরে ভেতরে সবসময় প্রস্তুতিটা আছে।’

সেই সঙ্গে ক্রিকেটারদেরও বিসিবি প্রস্তুত রাখছে বলে জানালেন সুজন। তারা শুরু থেকেই ক্রিকেটারদের সঙ্গে এ ব্যাপারে যোগাযোগ রাখছেন, ‘ক্রিকেটারদের মানসিক ও শারীরিকভাবে প্রস্তুত রাখা হচ্ছে। এ জন্য আমাদের সাপোর্ট স্ট্যাফরা কাজ করছেন। ক্রিকেটারদের সঙ্গে আলোচনাও করা হচ্ছে। তাদের মতও নেওয়া হচ্ছে। ফলে আমরা কাজ চালিয়ে যাচ্ছি।’

আরও পড়ুন: ১০ দিনে হেঁটে ২ হাজার কিলোমিটার!

বিসিবির পুরো কাজটাই এখন দূর থেকে চলছে। অফিস কার্যত বন্ধ। সুজন বললেন, যার যার প্রয়োজন, তিনি অফিসে যাবেন। তবে যাদের এখনই প্রয়োজন নেই, তারা এরকম দূর থেকেই কাজ চালিয়ে যাবেন, ‘আমরা অফিসের কাজ কখনোই বন্ধ রাখিনি। সবাই দূর থেকে কাজ করছেন। কোনো কাজে কাউকে অফিসে দরকার হলে তিনি স্বাস্থ্যবিধি মেনে অফিসে যাচ্ছেন। পরের নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এভাবেই আমাদের কাজ চলবে।’

ইত্তেফাক/আরআই

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত