সরিষাবাড়ীতে প্রিজাইডিং অফিসারসহ আটক ৫

সরিষাবাড়ীতে প্রিজাইডিং অফিসারসহ আটক ৫
সরিষাবাড়ীতে আটককৃত একজনকে পুলিশ ভ্যানে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। ছবি: ইত্তেফাক

জামালপুরের সরিষাবাড়ী পৌরসভা নির্বাচনে আর ইউ টি উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ব্যালট পেপার অনিয়মের অভিযোগে কেন্দ্রটি স্থগিত করেছে প্রশাসন। এ ঘটনায় ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার মো. মাহবুবুল আলম তরফদার, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার আব্দুল মোতালেব ও শাহাবুদ্দিন আহমেদকে আটক করেছে পুলিশ।

এদিকে নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ এনে ভোট বর্জন করেছেন বিএনপি মনোনিত মেয়র প্রার্থী এ কে এম ফয়জুল কবীর তালুকদার শাহীন। দুপুর পৌনে ২টার দিকে উপজেলা বিএনপির কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি ঘোষণা দেন।

বিএনপি মনোনীত প্রার্থী অভিযোগ করেন, প্রতিপক্ষ আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের মেয়র প্রার্থী মনির উদ্দিনের লোকজন সকাল থেকে সবগুলো ভোটকেন্দ্র দখল করেছে। এরপর তারা ধানের শীষের এজেন্টদের বের করে দিয়ে গণহারে নৌকা প্রতীকে সিল মারে। তিনি আরো জানান, শুরু থেকেই আওয়ামীলীগের ভয়ভীতি ও হয়রানির কারণে বিএনপির প্রচারণা বাধাগ্রস্ত হয়। ভোটকেন্দ্রগুলোতে ভোটার উপস্থিতি একেবারে কম থাকা সত্ত্বেও তাদের ইচ্ছেমতো ভোট গ্রহণ দেখায়। সংবাদ সম্মেলনে উপজেলা বিএনপির সভাপতি আলহাজ আজিম উদ্দিন আহমদসহ দলীয় স্থানীয় নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

শনিবার ( ৩০ জানুয়ারি) পৌর নির্বাচন শুরু হওয়ার কয়েক ঘণ্টা পরই আরামনগর কামিল মাদরাসা (১ নম্বর) কেন্দ্রে দুই কাউন্সিলর প্রার্থী সুরুজ্জামান (ডালিম) ও লিটন মিয়ার (উটপাখি) সমর্থকদের মধ্যে হাতাহাতির সৃষ্টি হয়। এসময় পুলিশ আর এম রাকিব ও বিশু মিয়া নামে দুইজনকে আটক করে।

ভোট বর্জনের ঘোষণা দিচ্ছেন বিএনপি প্রার্থী

এছাড়া উত্তর বলারদিয়ার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (৭ নম্বর) কেন্দ্রে দু'পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার সৃষ্টি হয়। দুপুর ১টার দিকে সেখানে একটি ককটেল বিস্ফোরণ হয় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান। অপরদিকে বিকেল ৪টার দিকে বাউসি বাঙালি কেন্দ্রে কাউন্সিলর প্রার্থী আফসার উদ্দিনকে (পাঞ্জাবি) প্রতিপক্ষ প্রার্থীর লোকজন মারধর করে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়।

এ পৌরসভায় মোট ভোটার সংখ্যা ৪২ হাজার ৮৬৯ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ২১ হাজার ৩৯ ও মহিলা ভোটার ২১ হাজার ৮৩০ জন। ৯টি ওয়ার্ডের ১৮টি ভোটকেন্দ্রের ১১৭টি বুথে ভোট গ্রহণ করা হয়। নির্বাচনে তিনজন প্রার্থী মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। তারা হলেন, আওয়ামীলীগ মনোনিত মনির উদ্দিন (নৌকা), বিএনপি মনোনিত এ কে এম ফয়জুল কবীর তালুকদার শাহীন (ধানের শীষ) ও বিএনপির বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থী ফজলুল হক খান (নারিকেল গাছ)। এছাড়া সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৪৩ জন ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১০ জন প্রার্থী ছিলেন।

সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাচন অফিসার মাকসুদ আলম জানান, অনিয়মের অভিযোগে আর ইউ টি উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র স্থগিত এবং প্রিজাইডিং অফিসার ও দুইজন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারকে আটক করা হয়েছে।

সরিষাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু মো. ফজলুল করীম জানান, নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক ছিলো। তবে ছোটখাটো ঘটনার জন্য রাকিব ও বিশু নামে দুইজনকে পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে। পরে এদের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

ইত্তেফাক/এসআই

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x