ঢাকা রবিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ৩ ভাদ্র ১৪২৬
২৮ °সে


তারকাটায় মুখ সেলাই, কাঁচি দিয়ে পেটে আঘাত করে স্ত্রী হত্যা!

তারকাটায় মুখ সেলাই, কাঁচি দিয়ে পেটে আঘাত করে স্ত্রী হত্যা!
ঘাতক স্বামীর সঙ্গে নিহত মুক্তা। ছবিঃ ইত্তেফাক।

যৌতুক না দেওয়ায় কাঁচি দিয়ে পেটের বিভিন্ন স্থানে আঘাত, মুখে সুপার গ্লু দিয়ে তারকাটা দিয়ে মুখ সেলাই করে নৃশংস-বর্বরভাবে নির্যাতন করে স্ত্রীকে হত্যা করেছে পাষণ্ড স্বামী! বন্দরে স্বামীর নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়ে ৪ দিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে অবশেষে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন উপরোক্ত নির্যাতনের শিকার গৃহবধূ মুক্তা (২৪)।

গত শুক্রবার রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ২দিন নিবিড় পর্যবেক্ষণে থেকে মারা যান মুক্তা। তার ঘাতক স্বামীর নাম দেলোয়ার। সে পেশায় একজন ইলেকট্রনিক্স মিস্ত্রী।

জানা গেছে, পাঁচ লাখ টাকা যৌতুকের দাবিতে স্বামী দেলোয়ার গৃহবধূ মুক্তাকে অমানুষিক নির্যাতন করতো। গত বুধবার রাতে বন্দরের নবীগঞ্জ কবরস্থান সংলগ্ন বাসায় এক সন্তানের জননী মুক্তা বেগমকে সিজার দিয়ে দেলোয়ার কাঁচি দিয়ে পেটের বিভিন্ন স্থানে আঘাত, মুখে সুপার গ্লু দিয়ে তারকাটা দিয়ে মুখ সেলাই করে নির্যাতন করে। পরে বাড়ির ভাড়াটিয়ারা তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ ৩শ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে গেলে তার অবস্থা বেগতি দেখে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে দ্রুত ঢাকা-মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ২দিন আইসিওতে নিবির পর্যবেক্ষণে থাকার পর শুক্রবার রাতে তিনি মারা যান।

নিহতের মা শিল্পি বেগম জানান, তার মেয়েকে নবীগঞ্জ কবরস্থান সংলগ্ন সিদ্দিক মিয়ার ছেলে দেলোয়ার প্রায় ৫ বছর পূর্বে প্রেমের ফাঁদে ফেলে বিয়ে করে। বিয়ের পর থেকে দেলোয়ার, তার মা চানবানু ও বাবা সিদ্দিক মিয়া যৌতুকের নানাভাবে নির্যাতন করতো। গত শুক্রবার রাতে তার মেয়েকে হত্যার জন্য অমানুষিক নির্যাতন চালায় দেলোয়ার। বাড়ির ভাড়াটিয়ারা খবর দিলে তারা হাসপাতালে গিয়ে মেয়ের অবস্থার বেগতিক দেখে ঢাকা মেডিক্যালে নিয়ে যান। কিন্তু মেয়েটিকে বাঁচানো গেলো না। আমি এ হত্যার বিচার চাই।’

শনিবার বিকেলে ময়না তদন্ত শেষে লাশ এলাকায় নিয়ে এলে নিহতের পিত্রালয় মাঠপাড়ায় মানুষের ঢল নেমে আসে। সকলে হত্যাকারীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।

আরও পড়ুনঃ ৩০ ডিসেম্বর বাংলাদেশের গণতন্ত্র হেরে গেছে : দুলু

এ ব্যপারে বন্দর থানার ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘দুইদিন আগে নারী নির্যাতন মামলা হয়েছে। নিহতের পিতা নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে মামলা করেন। এখন এ মামলায় হত্যার ধারা বসে যাবে। পুলিশ আসামি গ্রেফতারের অভিযান অব্যাহত রেখেছে।’

ইত্তেফাক/নূহু

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৮ আগস্ট, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন