রাখাইনে আবারো গ্রাম জ্বালিয়ে দিলো মিয়ানমার সেনা, নিহত ২

রাখাইনে আবারো গ্রাম জ্বালিয়ে দিলো মিয়ানমার সেনা, নিহত ২
রাখাইনে আগুনে পুড়ে যাওয়া বাড়ির ধ্বংসাবশেষ। ছবি: রেডিও ফ্রি এশিয়া

রাখাইনে আবারো আগুন দিয়ে গ্রাম পুড়িয়ে দিয়েছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। একই সঙ্গে দুজন বেসামরিক লোককে গুলি করে হত্যা করেছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কিউকতাউ শহর এলাকার ইয়াঙ্গুন-সিত্তওয়ে সড়কের পাশে অবস্থিত গ্রামে আগুন দেয় মিয়ানমারের সেনাবাহিনী।

এলাকার বাসিন্দাদের বরাত দিয়ে এ খবর প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক আন্তর্জাতিক সম্প্রচার মাধ্যম রেডিও ফ্রি এশিয়া।

খবরে বলা হয়, ফায়ার পাউং এবং তাউং পাউক গ্রামে কমপক্ষে ১৭০টি বাড়িঘর আগুনে পুড়িয়ে দেওয়া হয়। আর ফায়ার পাউং গ্রামে গুলিবিদ্ধ লাশ পাওয়া যায়।

বরাবরের মতো এবারও অগ্নিসংযোগের অভিযোগ অস্বীকার করেছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী।

তাদের মুখপাত্র মেজর জেনারেল জাও মিন তুন জানান, রাস্তার পাশে পুঁতে রাখা বোমার মাধ্যমে পুলিশ বহনকারী একটি সামরিক গাড়িতে হামলা চালায় আরাকান আর্মির সদস্যরা। এতে দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়।

তবে গ্রামবাসীরা জানান, হান মাং থেইন (৩৫) এবং মং নিন্ট উইন (২৫) নামে নিহত দুই ব্যক্তির আরাকান আর্মির সঙ্গে কোনো সম্পৃক্ততা ছিলো না।

নিহত মং নিন্ট উইনের বাবা ইউ নিয়ো মাং হ্লা থাইল্যান্ডভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য ইরাওয়াদ্দিকে বলেন, ‘কাজ শেষে সন্ধ্যায় বাইকে করে আমার ছেলে বাসায় ফিরছিল। এসময় কিউকতাউয়ে সেনা সদস্যদের মুখোমুখি হয় সে। তারা তাকে পথ দেখাতে বলে। এরপর গ্রামের কাছে একটি বিস্ফোরণ হয়।’

‘তারপর সামরিক ট্রাকগুলো গ্রামটিকে ঘিরে ফেলে। আগুন দেওয়ার আগে বাসিন্দাদের বাড়িঘর ছেড়ে চলে যেতে বলে সৈন্যরা। এরপর সৈন্যরা ঘরের মালামাল লুট করে এবং বাড়িগুলোতে আগুন জ্বালিয়ে দেয়।’ এ সব কথা বলছিলেন ইউ নিয়ো মাং হ্লা।

তিনি আরো বলেন, ‘বেশ কয়েকবার গুলি করার পরে সৈন্যরা কিছুক্ষণ থামে। আমরা দেখলাম সৈন্যরা আমাদের বাড়ির জিনিসপত্র নিয়ে ট্রাকে তুলছিল। আমি তাদের কাছে যেতেই তারা আমার উপর হামলা করল। আমাদের জোর করে বাড়ি থেকে বের করে দেওয়া হয়।’

ইত্তেফাক/জেডএইচ

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত