ঢাকা মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬
৩৫ °সে


মিয়ানমার সেনাবাহিনী ও রাখাইনের মধ্যে তীব্র সংঘাতের আশঙ্কা

মিয়ানমার সেনাবাহিনী ও রাখাইনের মধ্যে তীব্র সংঘাতের আশঙ্কা
২০১৭ সালে রাখাইন রাজ্যে দেশটির সামরিক বাহিনীর বর্বর অভিযানে সাত লাখের বেশি মুসলিম রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে যায়। ছবি: সংগৃহীত।

মিয়ানমারে রাষ্ট্রদ্রোহের দায়ে প্রখ্যাত রাখাইন নেতা আয়ে মঙকে ২০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির একটি আদালত। এতে করে যুদ্ধরত জাতিগত রাখাইন ও দেশটির সেনাবাহিনীর মধ্যে সংঘাত আরো তীব্র হবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার আয়ের রায়ের পর রাখাইন রাজ্যের রাজধানী সিটওয়েতে আদালতের বাইরে নিরাপত্তা বাহিনী শত শত সমর্থককে শান্ত করার চেষ্টা করে। একইসঙ্গে আয়েকে নিরাপত্তা বাহিনীর পাহারায় অপেক্ষমান পুলিশের ভ্যানে করে নিয়ে যাওয়া হয়।

আরাকান ন্যাশনাল পার্টির সাবেক চেয়ারম্যান আয়ে মঙকে ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে জ্বালাময়ী বক্তৃতার মাধ্যমে ঘৃণা ছড়ানো ও রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে কারাদণ্ড দেয়া হয় বলে জানানো হয়েছে।

মিয়ানমারের রাষ্ট্ সমর্থিত সংবাদ মাধ্যমে বলা হয়েছে, তিনি কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে সমাবেশ করেন এবং বলেন, দাস করে রাখা জাতিগত রাখাইনদের এখনই উপযুক্ত সময় সশস্ত্র সংগ্রাম শুরু করার।

ওইদিন সন্ধ্যার পর পরই রাখাইন বিক্ষোভকারীরা সরকারি ভবন দখল করে। পুলিশ গুলি চালায়। এতে ৭ জন প্রাণ হারায়।

ওই সমাবেশে লেখক ওয়ে হিন অং বক্তৃতা করেন। কয়েকদিনের মধ্যে পুলিশ উভয়কে গ্রেফতার করে। ওয়ে হিন অং এর আইনজীবী জানান, উভয়কে ২০ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

তারা আপিল করবেন কিনা তা নিয়ে আলোচনা করছেন বলে জানান।

আরো পড়ুন: ২৯ বছর পর ক্ষমতা ছাড়লেন কাজাখাস্তানের প্রেসিডেন্ট

রাখাইন রাজ্যে ২০১৭ সালে দেশটির সামরিক বাহিনীর বর্বর অভিযানে সাত লাখ ৪০ হাজার রোহিঙ্গা মুসলিম প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশে পালিয়ে যেতে বাধ্য হয়।

ইত্তেফাক/এসআর

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২১ মে, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন