রোববার, ২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

ইতালিতে দূতাবাস ও কনস্যুলেটে বিজয় দিবস উদযাপন

আপডেট : ১৭ ডিসেম্বর ২০২১, ১০:১০

যথাযথ মর্যাদা ও নানা কর্মসূচীর মধ্যদিয়ে ৫০তম মহান বিজয় দিবস উদযাপন করেছে ইতালিস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস ও মিলান জেনারেল কনস্যুলেট।

বৃহস্পতিবার দিবসের প্রথম প্রহরে দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সঙ্গে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও জাতীয় সঙ্গীতের সঙ্গে পতাকা উত্তোলন করেন রোমস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত শামীম আহসান। এ সময় রাষ্ট্রদূতের নেতৃত্বে সকল শহীদদের স্মরণে একমিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এরপর ঢাকার জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত শপথ গ্রহণে ভার্চুয়াল মাধ্যমে অংশ নেন সবাই।

এ সময় উপস্থিত ও ডিজিটাল পদ্ধতিতে সংযুক্ত অতিথিদের সামনে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী কর্তৃক পাঠানো বানী পাঠ করেন দূতাবাসের কর্মকর্তারা। এছাড়াও বিজয় দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদের শুভেচ্ছা বার্তা প্রচার ও ‘স্বাধীনতা শব্দটি কি করে আমাদের হল’ শীর্ষক প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়।

[ছবি: ইত্তেফাক]

রাষ্ট্রদূত শামীম আহসান বলেন, ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ৩০লক্ষ শহীদ ও বহু মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে বাঙ্গালী জাতি আজ স্বাধীন বাংলাদেশ পেয়েছে। এতকিছু ত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতা রক্ষায় ইতালিতে বসবাসরত পরবর্তী প্রজন্মকে সু-শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে দেশের জন্য কাজ করার উপদেশ দেন রাষ্ট্রদূত’।

তিনি আরও বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর কন্যা বাংলাদেশের সফল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন ‘ভিশন-২০২১’ ‘ভিশন-২০৪১’ ও ‘ডেল্টা প্ল্যান- ২১০০’ কে বাস্তবায়ন করার জন্য সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে। সবাই একসঙ্গে কাজ করলে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা অচিরেই বিশ্বের কাছে রোল মডেল হিসেবে পরিচিতি পাবে’।

 

অনুষ্ঠানের সাংস্কৃতিক পর্বে ‘হাইব্রিড মাধ্যমে’ উপস্থিত অতিথিদের সামনে গান ও নাচ পরিবেশন করেন স্থানীয় বাঙ্গালী শিশু শিল্পীরা। পরে মিস সুস্মিতা সুলতানার পরিচালনায় এবং স্থানীয় সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘সঞ্চারী সঙ্গীতায়ন’র শিক্ষার্থী দীপা পোদ্দার, দিয়া পোদ্দার, সস্তিকা রুপন্তি বনিক, পুনম শীল, মিথিলা দাস মেঘা ও সানি বণিক অতিথিদের সামনে সঙ্গীত পরিবেশন করেন।

সবশেষে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবার এবং দেশ স্বাধীন করতে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়ে শহীদ হওয়া সকলের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত পালন করা হয়।

এছাড়াও একইদিনে দেশটির আরেক বাণিজ্যিক শহর মিলানের বাংলাদেশ জেনারেল কনস্যুলেটেও যথাযথ মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস পালন করা হয়। 

 

ইত্তেফাক/এমআর