শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

‘ধর্ম অবমাননার’ অভিযোগে বাড়ি ও মন্দিরে আগুন, মাশরাফির ঘটনাস্থল পরিদর্শন

আপডেট : ১৬ জুলাই ২০২২, ২১:৪৭

ফেসবুকে একটি পোস্টকে কেন্দ্র করে ‘ধর্ম অবমাননার’অভিযোগ তুলে নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলায় কয়েকটি বাড়ি, দোকান ও মন্দিরে হামলা ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে নড়াইলের সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মর্তুজা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার ও মন্দিরের সংস্কারের আশ্বাস দেন।

এছাড়া বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের সঙ্গে মতবিনিময় করেন মাশরাফি। তিনি সকল ধর্মের লোকদের শান্তিপূর্ণভাবে বসবাসের আহ্বান জানান।

নড়াইলের জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমান, পুলিশ সুপার প্রবীর কুমার রায় স্থানীয় রাজনৈতিক নেতা ও হিন্দু সম্প্রদায়ের বিভিন্ন সংগঠনের নেতার উপস্থিত ছিলেন।

নড়াইলের পুলিশ সুপার প্রবীর কুমার রায় জানান, ঘটনার তদন্ত করে দোষী ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এছাড়া কেউ এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করলে তাদের ও আইনের আওতায় আনা হবে ।

ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলছেন মাশরাফি।

শনিবার সকালে জেলা প্রশাসক ম. হাবিবুর রহমান ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে নগদ টাকা প্রদান করেন এবং পূজামণ্ডপ সংস্কারের ব্যবস্থা করেন। 

প্রসঙ্গত, আকাশ সাহা নামে এক কলেজছাত্রের ফেসবুক পোস্টকে কেন্দ্র করে দিঘলিয়া গ্রামে শুক্রবার জুম্মার নামাজের পর থেকে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। তার গ্রেফতার ও বিচার দাবিতে বিক্ষোভ করে বিক্ষুব্ধ লোকজন। পরে সন্ধ্যায় উত্তেজিত জনতা দিঘলিয়া বাজারের নিত্য দুলাল সাহা, অনুপ সাহা, অশোক সাহা, সনজিদ সাহার মুদি দোকান, গোবিন্দ কুণ্ডু ও গৌতম কুণ্ডুর মিষ্টির দোকান ভাঙচুর করে। এছাড়া সাহা পাড়ার গৌরসাহা, চায়না রানী সাহা, বিপ্লব সাহার বাড়ি ভাঙচুর ও নাড়ু গোপালের বসতঘরে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। উত্তেজিত জনতা রাত ৯টার দিকে আখড়াবাড়ি সার্বজনীন পূজামণ্ডপে আগুন ধরিয়ে দেয়।


           

ইত্তেফাক/ইউবি