বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৩ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

ছয় দেশের চার শতাধিক তরুণের অংশগ্রহণে এসডিজি ইয়ুথ সামিট

আপডেট : ২৭ জুলাই ২০২২, ১৯:৫৩

পর্যটন নগরী কক্সবাজারে ২৩ ও ২৪ জুলাই অনুষ্ঠিত হলো এসডিজি ইয়ুথ সামিট ২০২২। বাংলাদেশ, আফগানিস্তান, নেপাল, ভারত, মালয়েশিয়া ও ইন্দোনেশিয়াসহ ছয়টি দেশের বাছাইকৃত চার শতাধিক তরুণ এ সামিটে অংশ নেয়। সামিটের আয়োজক নয়টি সংগঠনের জোট এসডিজি ইয়ুথ অ্যালায়েন্স।

২৩ জুলাই সামিটের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দ্য আর্থ সোসাইটির নির্বাহী পরিচালক ও এসডিজি ইয়ুথ সামিটের প্রধান উপদেষ্টা মো. মামুন মিয়ার সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সামিটের উপদেষ্টা শারমিন আফরোজ সুমি, ইপসা’র প্রধান নির্বাহী মো. আরিফুর রহমান, এশিয়ায় রিসার্চ অ্যান্ড রিসোর্স ফর উইমেন’র প্রধান নির্বাহী সাই জয়তী রাসেরলা, বেটার বাংলাদেশ টুমরোর সাধারণ সম্পাদক এবং প্রধান নির্বাহী, ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজের পিএলসি তানভীর আনজুম, সাউথইস্ট ইউনির্ভাসিটির ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ডক্টর শমশের আলী।

সামিটে অংশগ্রহণকারীদের একাংশ

দু’দিনব্যাপী আয়োজিত সামিটে ছয়টি বিষয়ে সেশন অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম সেশন ‘ডিসেন্ট ওয়ার্ক ফর ইকোনমিক গ্রোথ’-এ আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ওয়ালটন পিএলসি’র নির্বাহী পরিচালক তানভীর আনজুম, ম্যাসলো বাংলাদেশের ম্যানেজিং ডিরেক্টর শারমিন আফরোজ সুমি। দ্বিতীয় সেশন ‘কোয়ালিটি এডুকেশন ফর দ্য ফিউচার জেনারেশন’ সেশনে আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. সাদেকুল আরেফিন, বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ড. এম. শমসের আলী ও ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রির সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর আনিসুর রহমান মল্লিক।

এদিন বিকেলে সৈকতপাড়ে তামাকবিরোধী র্যালির আয়োজন করা হয়। এতে টোব্যাকো-ফ্রি সিটি কক্সবাজার এবং তামাকমুক্ত কক্সবাজার গড়ার শপথ করেন ছয়টি দেশের প্রায় ৪ শতাধিক তরুণ। এরপরই তারা সৈকতে মেতে ওঠে গান ও ফানুশ উত্সবে। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে রাখাইন নৃত্য, কক্সবাজারের শিল্পীদের পরিবেশনা ও ডেলিগেটসদের পারফরম্যান্সে মুখরিত ছিল সামিট। এতে উপস্থিত ছিলেন মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ ২০১৯—রাফা নানজীবা তুরসা। সংগীত পরিবেশনা করেন জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী শাইরিন জাওয়াদ।

সামিটের দ্বিতীয় ও সমাপনী দিনে প্রথম সেশন ‘ডিসপ্লেসমেন্ট অ্যান্ড মাইগ্রেশনের আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সুইজারল্যান্ড দূতাবাসের প্রোগ্রাম ম্যানেজার শিরিন সুলতানা লিরা; ইপসা’র ডেপুটি ডিরেক্টর মোহাম্মদ শাহজাহান, প্রধান নির্বাহী মো. আরিফুর রহমান ও শামীম হায়দার পাটোয়ারী এমপি। সংসদ সদস্য শামীম হায়দার পাটোয়ারি বলেন, ‘যখন আমরা কোনো সমস্যায় পড়ি তখন সমস্যা সমাধানের জন্য নীতি-নির্ধারকদের ওপর নির্ভর করি। আর নীতি-নির্ধারকরা যেন তরুণবান্ধব নীতি তৈরি করেন। অবশ্য এটি খুব জরুরি হলেও এক্ষেত্রেই ঘাটতি বেশি দেখা যায়।’ দ্বিতীয় সেশন ‘সেক্সুয়াল অ্যান্ড রিপ্রোডাক্টিভ হেলথ অ্যান্ড রাইটস’র আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উম্মে সালমা, সামিয়া রহমান, ড. নাসরীন জাহান।

সমুদ্র সৈকতে র‍্যালী

তৃতীয় সেশন ‘ক্লাইমেট এ্যাকশন’-এ আলোচক হিসেবে ছিলেন তানভীর শাকিল জয় এমপি, নাহিম রাজ্জাক এমপি, আহসান আদেলুর রহমান এমপি এবং মনোয়ার মোস্তফা, কান্ট্রি লিড, ইউরোপিয়ান ক্লাইমেট ফাউন্ডেশন। সেশনে তরুণরা জলবায়ু সংকট, ব্ল-ইকোনোমি, কার্বন ট্যাক্স নিয়ে অভিজ্ঞদের মতামত শোনেন এবং জলবায়ু সংকট নিরসনে ঐক্যবদ্ধভাবে­কাজ করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

চতুর্থ সেশন ‘অন্ট্রাপ্রেনারশিপ, ইনোভেশন অ্যান্ড স্টার্ট আপ’র আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এটুআই’র জাতীয় পরামর্শক ভাস্কর ভট্টাচার্য, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের প্রকল্প পরিচালক (যুগ্ম-সচিব) মো. আলতাফ হোসেন, বন্ডস্টেইন টেকনোলজিস লিমিটেডের সিইও মীর শাহরুখ ইসলাম, জাহাজীর এমডি কাজল আবদুল্লাহ, এসডিজি সেলের সহকারী সাধারণ সম্পাদক মাশহারার ভূঁইয়া। সমাপনী অনুষ্ঠানে ক্লাইমেট পার্লামেন্ট বাংলাদেশের সভাপতি তানভির শাকিল জয় এমপি’র সভাপতিত্বে ভার্চুয়ালি প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন শামীম হায়দার পাটোয়ারী এমপি, আশেক উল্লাহ রফিক এমপি এবং যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সচিব মেজবাহ উদ্দিন।

ইত্তেফাক/এসটিএম