বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন : নেতাকর্মীরা সরব

আপডেট : ২৮ অক্টোবর ২০২২, ১৩:২১

ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনকে ঘিরে নেতা-কর্মীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা লক্ষ্য করা গেছে। নেতা-কর্মী ও সমর্থকরা সরব হয়ে উঠেছেন। সাভার, ধামরাই, দোহার, নবাবগঞ্জ, কেরানীগঞ্জ এ ৫ উপজেলা নিয়ে ঢাকা জেলা গঠিত। 

আগামীকাল শনিবার (২৯ অক্টোবর) দুপুর ২টায় জেলা সম্মেলন রাজধানীর আগারগাঁও শেরেবাংলা নগর পুরাতন বাণিজ্য মেলার মাঠে অনুষ্ঠিত হবে। 

সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম এমপি। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এমপি। 

ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিল গত ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর মাসে। ওই সম্মেলনে বীর মুক্তিযোদ্ধা বেনজির আহমেদকে সভাপতি এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. মাহবুবুর রহমানকে সাধারণ সম্পাদক করে ৭১ সদস্যবিশিষ্ট ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন করা হয়। 

করোনা ভাইরাসের কারণে সম্মেলন ২০১৯ সালের অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হয়নি।

সম্মেলনকে ঘিরে হাইকমান্ডে পদ পেতে আগ্রহীদের লবিং-লিয়াজো চলছে জোরেশোরে। কেন্দ্রীয় নেতাদের পাশাপাশি উপজেলার তৃণমূল নেতা-কর্মীদেরও কদর বেড়েছে। তাদের সমর্থন আদায়ে পদ প্রত্যাশীদের যোগাযোগ রয়েছে সার্বক্ষণিক। 

ইতোমধ্যে সভাপতি হিসেবে বর্তমান সভাপতি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. বেনজীর আহমেদ এমপি, জ্বালানি ও বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু এমপির নাম শোনা যাচ্ছে। 

সাধারণ সম্পাদক পদে বর্তমান কমিটির সাধারণ সম্পাদক ঢাকা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. মাহবুবুর রহমান, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি বর্তমান ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মাসুদ চৌধুরী, বর্তমান কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান ও সাংগঠনিক সম্পাদক পনিরুজ্জামান তরুণের নাম শোনা যাচ্ছে। 

দলীয় একটি সূত্র জানায়, ঢাকা জেলা কমিটিতে নতুন চমকও আসতে পারে। দলকে আরও সুসংগঠিত ও গতিশীল করার স্বার্থে নবীন-প্রবীণের সমন্বয় ঘটিয়ে কমিটি হতে পারে বলে জানা গেছে। 

এদিকে সম্মেলনকে ঘিরে উপজেলাগুলোতে সাজ সাজ রব পড়ে গেছে। নেতা-কর্মী-সমর্থকরা রাতের ঘুম হারাম করে নিজ নিজ প্রার্থীকে জয়ী করতে লবিং, গ্রুপিং ও প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন নিরলসভাবে।

উপজেলাগুলোর বিভিন্নস্থানে ব্যানার-ফেস্টুন-পোস্টার শোভা পাচ্ছে। সম্মেলন ও কমিটি গঠন নিয়ে পদ প্রত্যাশীদের বক্তব্য এক ও অভিন্ন। 

তাদের বক্তব্য- আমরা দেশ ও জনগণের জন্য রাজনীতি করি। দল অবশ্যই যোগ্য ও ত্যাগীদের মূল্যায়ন করবে। তারা বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সবাই একযোগে কাজ করে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

ইত্তেফাক/পিও